Main Menu

ফটিকছড়িতে মেয়ের সাথে অভিমান করে প্রবাসী পিতার আত্মহত্যা

 

ওমর ফারুক. ফটিকছড়ি :

ফটিকছড়িতে মেয়ের সাথে অভিমান করে এক প্রবাসী পিতার অাত্মহত্যার ঘটনা ঘটেছে। গতকাল মঙ্গলবার রাতে ফটিকছড়ি পৌর সদরের বায়তুল হিকমা মাদ্রাসা পার্শ্বস্থ এজাহার ম্যানশন নামক একটি ভাড়া বাসায় এ ঘটনা ঘটে। 

অাত্মহুতি দেয়া পিতার নাম মো.ইদ্রিস (৪৫)। তিনি উপজেলার নারায়নহাট ইউনিয়নের পূর্ব চানপুর বলি পাড়ার সুলতান সওদাগর বাড়ির মৃত ইছহাকের পুত্র।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, শারিরীক অসুস্থতার কারণে ইদ্রিস গত ছয় মাস পূর্বে ছুটিতে প্রবাস থেকে দেশে অাসেন। অাগামী ২২ ফেব্রুয়ারী তার প্রবাসে ফিরে যাবার কথা। স্ত্রী রাহেনা বেগম (৩৯) উপজেলার দৌলতপুর এবিসি স্কুলে শিক্ষকতার কারণে পূর্ব থেকে ফটিকছড়ি পৌর সদরের ঐ ভাড়া বাসায় পরিবার নিয়ে থাকতেন। তাদের সংসারে ২ মেয়ের প্রথম জন আছমা অষ্টম শ্রেণীতে পড়ে। ঘটনার রাতে অাছমা মোবাইলে ‘গেইম’ খেলছিল। তার পিতা ইদ্রিস মেয়েকে মোবাইলে ‘গেইম’ না খেলার জন্য বার বার বারণ করার পরও অাছমা কথা না শুনে গেইম খেলতে থাকলে এক পর্যায়ে মেয়েকে মারধর করে বাবা। মেয়ের উপর হাত উঠালে স্ত্রী’র সাথেও ঝগড়া বেঁধে যায় ইদ্রিসের। এ সময়  স্ত্রী-কন্যা মিলে তাকে বকাবকি করলে অপমান সইতে না পেরে রাত আনুমানিক সাড়ে দশটা থেকে বার’টার যেকোন সময় রুমের দরজা বন্ধ করে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করে। ওই রাতে নিহতের পরিবার ও প্রতেবেশীরা উদ্ধার করে নাজিরহাটস্থ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করে। খবর পেয়ে ফটিকছড়ি থানার পুলিশ হাসপাতাল থেকে লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।

এ ব্যাপারে ফটিকছড়ি থানার পুলিশ পরিদর্শক (এস.আই) দেলোয়ার বলেন, ‘প্রবাসী ইদ্রিস মেয়ের সাথে অভিমান করে আত্মহত্যা করেছে বলে প্রাথমিক তদন্তে নিশ্চিত হয়েছি। এ ঘটনায় কেউ কোন অভিযোগ দেয়নি।’






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *