Main Menu

ফেনীতে জেলা ছাত্রলীগ নেতার উপর হামলা

 

ফেনী প্রতিনিধি :

ফেনী শহরেরর মিজান রোডে জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি ইকবাল মাহমুদ সৈকতকে রবিবার রাতে পিটিয়েছে সাংগঠনিক সম্পাদক লতিফ খান রায়হান ও তার সহযোগিরা। দু’জনই পরশুরাম উপজেলার বাসিন্দা। এনিয়ে চাপা ক্ষোভ ও উত্তেজনা বিরাজ করছে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও সংগঠন সূত্র জানায়, রবিবার রাত ১০ টার দিকে শহরের মিজান রোডের গ্র্যান্ড হক টাওয়ার থেকে বাসার উদ্দেশ্যে রওয়ানা হয় জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি ইকবাল মাহমুদ সৈকত। পথিমধ্যে ডায়াবেটিক হাসপাতালের সামনে পৌঁছলে জেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক লতিফ খান রায়হান কয়েকজন সহযোগি নিয়ে তার উপর অতর্কিত হামলা চালায়। তার চিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসলে হামলাকারিরা পালিয়ে যায়। আহত ইকবালকে উদ্ধার করে ফেনী আধুনিক সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে বাসায় ফিরে যায়। রাত ১২ টার দিকে ফের ডাক্তারপাড়ার বাসায় হামলা চালানো হয়। বাসার দরজা ভেঙ্গে ভিতরে প্রবেশ করে তাকে না পেয়ে আসবাবপত্র ভাংচুর করা হয়। এসময় বাইরে বেশ কয়েকরাউন্ড ফাঁকা গুলি ও বোমা ফাটিয়ে আতংক সৃষ্টি করে হামলাকারিরা। খবর পেয়ে রাতে ফেনী মডেল থানার এস আই রমিজ উদ্দিন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। আহত ইকবালকে দেখতে গতকাল সোমবার সকালে সংগঠনটির জেলা সভাপতি সালাহউদ্দিন ফিরোজ ও সাধারণ সম্পাদক জাবেদ হায়দার সহ নেতারা তার বাসায় যান।

আহত ইকবাল হোসেন জানান, পূর্বপরিকল্পিতভাবে লতিফ খান রায়হান তার উপর হামলা চালিয়েছে। ঘটনাটি জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও সংসদ সদস্য নিজাম উদ্দিন হাজারীকে অবহিত করা হয়েছে। কেন এ হামলা হয়েছে এ ব্যাপারে সৈকত অবগত নয় বলে জানান।

অন্যদিকে ঘটনার পর থেকে লতিফ খান রায়হানের মোবাইল বন্ধ থাকায় তার বক্তব্য জানা যায়নি।

এদিকে, ফেনী জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি ইকবাল মাহমুদ সৈকতের উপর হামলাকারি ছাত্রলীগ নেতা লতিফ খান রায়হানকে কারণ দর্শানো (শোকজ) নোটিশ দিয়েছে জেলা ছাত্রলীগ। সোমবার জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক স্বাক্ষরিত তাকে এ নোটিশ দেয়া হয়।

নোটিশে উল্লেখ করা হয়, ‘রবিবার জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি ইকবাল মাহমুদ সৈকতের উপর মিজান রোডের ডায়াবেটিস হাসপাতালের সামনে ও পরবর্তীতে তার ডাক্তারপাড়ার বাসায় হামলার ঘটনায় অভিযোগের প্রেক্ষিতে যথাপোযুক্ত কারণ দর্শানোর জন্য নির্দেশ প্রদান করা হলো। কেন সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেয়া হবে না তা আগামী ৩ দিনের মধ্যে লিখিত আকারে জবাব দেয়ার জন্য নির্দেশ দেয়া হয়েছে।’

ফেনী মডেল থানার ওসি মো: রাশেদ খান চৌধুরী জানান, অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *