Main Menu

মেয়র হলে সাংবাদিকদের ‘ফ্ল্যাট দেবেন’ নৌকার প্রার্থী জাহাঙ্গীর

ঢাকা : মেয়র নির্বাচিত হলে গাজীপুর সিটি করপোরেশন এলাকায় কর্মরত সাংবাদিকদের ফ্ল্যাট-বাড়ি সুবিধা দেওয়ার কথা জানালেন আওয়ামী লীগের মেয়র পদপ্রার্থী মো. জাহাঙ্গীর আলম।২১ এপ্রিল, শনিবার দুপুরে গাজীপুরের ছয়দানা এলাকায় তার নিজ বাসায় সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় এ কথা বলেন জাহাঙ্গীর।

জাহাঙ্গীর আলম বলেন, ‘আমি জানি অত্যন্ত অল্প সম্মানী নিয়ে সাংবাদিকরা কাজ করেন। এ অবস্থায় সত্য প্রকাশ করা অনেক বেশি কঠিন হয়ে যায়। সেই হিসেবে আমি চেষ্টা করব- এই সিটিতে যেসব সাংবাদিক বসবাস করেন, তাদের সবার জন্য আবাসিক ব্যবস্থা করার। প্রত্যেকে ফ্ল্যাট-বাড়ি সুবিধাটা পান এবং আমি আপনাদের মেডিকেল সুবিধা ও আপনাদের সন্তানদের ফ্রি লেখাপড়া করার ব্যবস্থা যেন করতে পারি, সে কারণে আমার জন্য দোয়া করবেন।’এ মেয়র পদপ্রার্থী বলেন, ‘একেবারেই পরিবারের সদস্য মনে করে আপনাদের সার্বিক সহযোগিতা চাই। পরিকল্পিত সিটি করপোরেশন করতে চাই, যেটা গ্রিন সিটি, ক্লিন সিটি হিসেবে বাস্তবায়ন করতে চাই।’জাহাঙ্গীর আলম বলেন, ‘পরিকল্পনায় রয়েছে বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার লোকজনের জন্য ৮ হাজার বিঘা জমি নিয়ে আবাসিক এলাকা গড়ে তুলতে চাই। জাপান, চীনসহ উন্নত দেশের মতো শ্রমিকদের জন্য আলাদা আবাসন গড়ে তোলার; যেখানে মার্কেট, খেলার মাঠসহ নানা সুবিধা থাকবে। চায়না ব্যাংকের সাথে সহযোগিতার মাধ্যমে এটা করতে চাচ্ছি। পুরো সিটিকে আধুনিক করতে এরই মাঝে মাস্টার প্ল্যান করা হয়েছে।’বর্তমান মেয়রের সমালোচনা করে জাহাঙ্গীর বলেন, ‘নিয়ম হচ্ছে যিনি সিটি করপোরেশনের প্রধান ব্যক্তি থাকবেন তিনি শারীরিকভাবে সুস্থ থাকবেন। আর যদি তিনি নিজেকে ঠিকমতো রক্ষা করতে না পারেন; তবে আপনাকে-আমাকে কেমন করে রক্ষা করবেন।’ জাহাঙ্গীর আলম আরও বলেন, ‘এটা আবেগের জায়গা না, এটা কাজের জায়গা। আল্লাহ যদি আপনাদের সহযোগিতায় মেয়র নির্বাচিত করে তাহলে পরবর্তীতে প্রত্যেক ওয়ার্ড ভিত্তিক উন্নয়নের যেসব কমিটি হবে, সব কমিটিতে ওইসব এলাকার সাংবাদিক যারা আছেন তারা থাকবেন।’এ সময় নির্বাচনী আচরণবিধি কোনোভাবেই লঙ্ঘন করছেন না বলে দাবি করেন আওয়ামী লীগের এই প্রার্থী।প্রধান প্রতিপক্ষ প্রার্থীর সমালোচনা করে জাহাঙ্গীর আলম বলেন, ‘আমার যারা প্রতিপক্ষ দল আছে, ওনাদের মধ্যে ভোটার ছাড়া যারা কেন্দ্রীয় রাজনীতির সাথে জড়িত, তারা এসে এখানে বর্ধিত সভা করছে। যারা এলাকার ভোটার নয়, তারা যদি এসে বর্ধিত সভা করে তাহলে এটা কতটুকু আইনে সঠিক হয়? স্থানীয় এ নির্বাচন সমাধান করবে স্থানীয়রা। এখানে জাতীয় কিছু নয়।’ মতবিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মজিবুর রহমান।






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *