Main Menu

বিএনপি নববর্ষকে ধর্মীয় আবরণ দেয়ার চেষ্টা করেছিল: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

নিউজ ডেস্ক :

বাংলা নববর্ষ নিয়ে ভুল ভ্রান্তি ছড়ানো নোংরা রাজনীতির বহিঃপ্রকাশ। তাই পহেলা বৈশাখ বাংলাদেশের সার্বজনীন উৎসব হওয়া সত্ত্বেও, বিএনপি এই উদযাপন নিয়ে ধর্মীয় ভুল ব্যাখ্যা দেয়ার চেষ্টা করলে, প্রধানমন্ত্রী জনসম্মুখে বিএনপিকে নিন্দা জানায়।

দেশবাসী কি ভুলে গেছে ২০০৫ সালে বিএনপির শাসনামলে রমনা বটমূলে বর্ষবরণ উদযাপনে নৃশংস বোমা হামলার ঘটনা ? বিএনপি ও জামাত বরাবরই বাঙালির এই প্রাণের উৎসব উদযাপনের বিরোধী। কারণ এই একটি উৎসবই জাতি, ধর্ম, বর্ণ নির্বিশেষে সকল বাংলাদেশী নাগরিককে এক করে সার্বজনীন ভ্রাতৃত্ববোধের শিক্ষা দেয়। কিন্তু বিএনপি কি চায় দেশের সকল ধর্মের মানুষ মিলেমিশে বসবাস করুক ? তারা তা চায় না বলেই পহেলা বৈশাখ উদযাপন কে হিন্দুদের উৎসব ও সংষ্কৃতি বলে বিভেদ সৃষ্টির অপপ্রয়াস চালায়।

শেখ হাসিনার সরকার চায় দেশের মধ্যে হিন্দু মুসলিমসহ সকল ধর্মের মানুষের মধ্যে ঐক্য ও সম্প্রীতি বজায় থাকুক। তাই এই সরকার বাংলা নববর্ষে উৎসব ভাতা প্রদানের ব্যবস্থা করে।

নববর্ষের শুভেচ্ছা বিনিময় সভায় প্রধানমন্ত্রী দেশবাসীকে সজাগ থাকার আহবান জানান এসব স্বাধীনতা বিরোধী অপশক্তির বিরুদ্ধে যারা দেশের মানুষের মধ্যে বিভেদ সৃষ্টি করে বিদেশী এজেন্ডা বাস্তবায়ন করে।

সমাজ, ধর্ম ও  সংষ্কৃতির উপর আঘাত হানতে পারে এমন কোনো শক্তি যাতে  ভবিষ্যতে ক্ষমতায় না আসতে পারে সে সতর্ক বাণীও প্রদান করেন তিনি।

পহেলা বৈশাখের মত সার্বজনীন উৎসবকে যারা ধর্মীয় আবরণ দিয়ে কলুষিত করতে চায়, দেশের ঐক্য ও সম্প্রীতি রক্ষায় তাদেরকে বর্জন করতে হবে এখনই।






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *