Main Menu

ইউনুসের ক্ষুদ্র ঋণ মানুষকে শোষণ করে : রাশেদ খান মেনন

 

নিউজ ডেস্ক: “শান্তিতে” নোবেল পুরষ্কার প্রাপ্ত ড.ইউনুস কাজ করেছেন ক্ষুদ্র ঋণ প্রকল্প নিয়ে। এই ক্ষুদ্র ঋণ আমাদের দেশে নোবেল পুরস্কার নিয়ে আসলেও তার এই সূক্ষ্ম প্রকল্পের মাধ্যমে সাধারণ মানুষ কিভাবে শোষণ হচ্ছে তা সকলেরই জানা বলে মন্তব্য করেছেন সমাজকল্যাণ মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন।

এ নিয়ে সুশীল সমাজের অনেকেই অনেক কথা বলেছেন। স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ক্ষুদ্র ঋণকে সুদখোরের ব্যবসা বলেছেন। কিন্তু বর্তমান সরকার যে পদ্ধতিতে সাধারণ মানুষকে সুদহীন ঋণ প্রদান করছেন তার সাথে সুদযুক্ত ঋণের কোনো সম্পর্ক নেই।’

বুধবার (১৪ মার্চ) সকালে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) ৪নং ওয়ার্ডের কমিউনিটি সেন্টার হলে সুদমুক্ত ক্ষুদ্র ঋণ এবং বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন ব্যক্তিদের সুবর্ণ নাগরিক কার্ড বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এ কথা বলেন।

প্রতিবন্ধীদের জন্য নানা ধরণের উদ্যোগ গ্রহণ করেছে সরকার এমন মন্তব্য করে তিনি বলেন, প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের সমাজের বিশেষ ব্যক্তি হিসেবে চিহ্নিত করে সম্মানিত করার পাশাপাশি তাদের বলা হচ্ছে ‘দেশের সুবর্ণ নাগরিক’।

এনজিওদের সাথে সরকারি ঋণের পার্থক্যটা বুঝতে হবে উল্লেখ করে মেনন বলেন, এতদিন ক্ষুদ্র ঋণের মাধ্যমে জনগণের কোনো সুবিধা হয়নি। বরং বর্তমান সরকারের সুদহীন ক্ষুদ্র ঋণ ব্যবস্থা সাধারণ মানুষের মনে দাগ কাটতে সক্ষম হয়েছে।

তিনি বলেন, অনেকেই মনে করেন ক্ষুদ্র ঋণ ব্যবস্থা ড. মুহাম্মদ ইউনূস করেছেন কিন্তু এটি সত্য নয়। ক্ষুদ্র ঋণ ব্যবস্থা ১৯৭৪ সালে প্রথম চালু করেছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। এ কারণে বঙ্গবন্ধুই হচ্ছেন ক্ষুদ্র ঋণের প্রথম প্রবক্তা।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন ঢাকা-১৫ আসনের সংসদ সদস্য কামাল আহমেদ মজুমদার। ঢাকা বিভাগীয় সমাজসেবা পরিচালক তপন কুমার সাহা এতে সভাপতিত্ব করেন।






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *