Main Menu

চট্রগ্রামে ডাঃ শাহাদাত হোসেন সহ সকল রাজবন্দিদের মুক্তির দাবীতে অনশন

 

 

চটাটগ্রাম ব্যুরোঃ বিএনপি চেয়ারপার্সন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া ও চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সভাপতি ডাঃ শাহাদাত হোসেনকে কারাবন্দী করার পরিণাম শুভ হবে না উল্লেখ করে চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রদল সভাপতি গাজী মোঃ সিরাজ উল্লাহ বলেন, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া বাংলাদেশের অবিসংবাদিত নেত্রী এবং ডাঃ শাহাদাত হোসেন বীর চট্টলার আন্দোলনের শক্তি। তাদেরকে গ্রেপ্তার করে এ অবৈধ সরকার নিজেদের পতনকে আরও ত্বরান্বিত করেছে। বেগম খালেদা জিয়া শুধু বিএনপির নেত্রী নন, তিনি বাংলাদেশের ১৬ কোটি মানুষের নেত্রী। বেগম খালেদা জিয়া বাংলাদেশের নিপীড়িত মানুষের নেত্রী, অধিকার বঞ্চিতদের আশার আলো, এদেশের আপামর জনসাধারণের আস্থা ও ভরসার প্রতীক। তিনি অন্যায়ের কাছে কখনো মাথা নত করেন নি এবং ভবিষ্যতেও করবেন না। একটি ভূয়া ও কাল্পনিক মামলায় বাংলাদেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় নেত্রী কারাবন্দী করে আওয়ামীলীগ সবচেয়ে বড় ভূল করেছে। কারণ এদেশের মানুষ তাদের চরিত্র সম্পর্কে ভাল করেই অবগত আছেন। জনগণ আজ এ বাকশালী সরকারের বিরুদ্ধে রাস্তায় নামতে শুরু করেছে। অবিলম্বে তীব্র গণ আন্দোলনের মাধ্যমে আমাদের প্রিয় দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া ও ডাঃ শাহাদাত হোসেনকে মুক্ত করে আনবে গণতন্ত্রপ্রেমী জনতা। তিনি আরও বলেন, ডাঃ শাহাদাত হোসেন বীর চট্টলাবাসীর অহংকার। চট্টলাবাসীর প্রাণের নেতাকে গ্রেপ্তার করে সরকার যে ভূল করেছে তার খেসারত দিতে হবে তাদেরকে। ডাঃ শাহাদাত হোসেন জেলে রেখে মুক্তিকামী জনতার আন্দোলনের গতি কমানো যাবে না। বরং জনগণ আরও বেশী আন্দোলনমুখী হবে। আমরা জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল চট্টগ্রাম মহানগরীর পক্ষ থেকে আমাদের প্রাণের চেয়েও প্রিয় আপোষহীন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া ও ডাঃ শাহাদাত হোসেন এর নিঃশর্ত মুক্তির দাবী জানাই। অন্যথায় চট্টগ্রামবাসীর ক্ষোভের আগুনে জ্বলে ছারখার হয়ে যাবে আওয়ামীলীগ সরকারের অবৈধ ক্ষমতার মসনদ। সাবেক প্রধানমন্ত্রী বিএনপি চেয়ারপার্সন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া ও চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সভাপতি ডাঃ শাহাদাত হোসেনসহ সকল রাজবন্দিদের মুক্তির দাবিতে গত ১৪ ফেব্র“য়ারি সকাল ৯ টা থেকে বিকাল ৪ ঘটিকা পর্যন্ত নাসিমন ভবনস্থ দলীয় কার্যালয় সামনে চট্টগ্রাম মহাগর ছাত্রদলের উদ্যোগে এক অনশন  কর্মসূচির বক্তব্য কালে মহানগর ছাত্রদল সভাপতি গাজী মোহাম্মদ সিরাজ উল্লাহর উপরোক্ত বক্তব্য রাখেন।

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন মহানগর ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক বেলায়েত হোসেন বুলু, সহ-সভাপতি জসিম উদ্দিন চৌধুরী, জিয়াউর রহমান জিয়া, যুগ্ম সম্পাদক আলী মর্তুজা খান, কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সদস্য শেখ রাসেল, যুগ্ম সম্পাদক জমির উদ্দিন নাহিদ, বাকলিয়া থানা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক মোস্তাকিম মাহমুদ, চান্দগাঁও থানা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক গোলজার হোসেন, চকবাজার থানা ছাত্রদলের সভাপতি নুরুল আলম শিপু, সাধারণ সম্পাদক সাদ্দামুল হক প্রমুখ।






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *