Main Menu

ফসল রক্ষা বাধ নির্মাণে কোন অনিয়ম বরদাস্ত করা হবে না: সুনামগঞ্জে পানিসম্পদ মন্ত্রী 

এস,এম,ওয়াহিদুল ইসলাম, সুনামগঞ্জ থেকেঃ গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী জনাব আনোয়ার হোসেন মঞ্জু বলেছেন- ভাটি বাংলার একমাত্র সম্বল বোর ফসল রক্ষা বাধে এবারে কোন অনিয়ম, দুর্নীতি সহ্য করা হবেনা। কঠোর পর্যবেক্ষণ ও তদারকি করা হবে, দরকার হলে তিন মাসের জন্য সকল মন্ত্রণালয় সুনামগঞ্জে চলে আসবে, আমি প্রয়োজনে তিনমাস সুনামগঞ্জেই থাকবো তবুও হাওরের ফসলহানির ঘটনার পুনরাবৃত্তি যেনো না ঘটে। বাঁধের কাজের জন্য কারিগরি লোকজন হাওরে নিয়ে আসবো। তারা বলবে বাঁধের কাজ কিভাবে হবে।
এ মন্ত্রণালয়ের যে অবস্থা দেখলাম সেখানে তো তিন’শ কোটি টাকার নিচে কোন প্রজেক্ট-ই নেই। কিন্তু অর্থ বিভাজনে কি আছে সেটাও আমি জানি। আমি মন্ত্রণালয়ে আসলামই মাত্র ৪দিন। আমার মন্ত্রণালয়ের অধীনে যে সকল কর্মকর্তা রয়েছেন তারা আমাকে নিশ্চিত করতে হবে যে, হাওরে আবারো ফসলহানির মতো ঘটনার পুনরাবৃত্তি হবেনা।
জেলা প্রশাসক (ভারপ্রাপ্ত) মো. এমরান হোসেনের সভাপতিত্বে শুক্রবার রাত ১০টায় সুনামগঞ্জ সার্কিট হাউসে ‘হাওরসহ পানি উন্নয়ন বোর্ডের অন্যান্য চলমান প্রকল্পের সর্বশেষ অবস্থা নিয়ে কর্মকর্তাদের সাথে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন আনোয়ার হোসেন মঞ্জু।
আলোচনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, অর্থ ও পরিকল্পণা মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী এমএ মান্নান এম,পি,। পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব জাফর আহমদ খান, সুনামগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট পীর ফজলুর রহমান মিসবাহ, সুনামগঞ্জ-মৌলভীবাজার সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য শামছুন নাহার বেগম, সিলেট-২ আসনের সাংসদ ইয়াহিয়া চৌধুরী, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মতিউর রহমান, পুলিশ সুপার মো, বরকুল্লাহ খান, পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী কর্মকর্তা আবু বক্কর ছিদ্দক ভূঁইয়া।
বক্তব্য রাখেন দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান হাজী আবুল কালাম, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইসরাত জাহান, জেলা আওয়ামী লীগ নেতা সিরাজুর রহমান সিরাজ।
সভায় বক্তারা জেলার হাওরাঞ্চলের কৃষকদের স্বার্থে এ বছর ফসলরক্ষা বাঁধ নির্মাণে গাফিলতি যেনো না করা হয় সে বিষয়টির প্রতি গুরুত্বারোপ করেন। পাশাপাশি দ্রুততম ও নির্ধারিত সময়ের মধ্যে বাঁধের কাজ শেষ করাসহ বাঁধের কাজে যেনো কোনভাবেই ত্রুটি না থাকে, সে বিষয়ে প্রকল্পে দেখভালের দায়িত্বে থাকা কর্তাব্যক্তিরা যেনো তাদের দায়িত্ব পালনে শতভাগ নিশ্চয়তা দিতে পারেন এ বিষয়টিকেও সামনে রেখে আলোচনা করেন। তবে ৮শ’টি পিআইসি কমিটির মধ্যে এখনো পর্যন্ত মাত্র ১৩১টির কাজ শুরু হওয়া নিয়ে অনেকেই ক্ষোভ প্রকাশ করেন। পরে পানি সম্পদ মন্ত্রী দঃ সুনামগঞ্জে স্থানীয় এম,পি, ও প্রতিমন্ত্রী এম, এ, মান্নানের শানিগঞ্জস্থ নতুন বাসভবন হিজলে যাত্রা বিরতি করেন এসময় অন্যান্যের মধ্যে ছাতক-দোয়ারার এম,পি, মহিবুর রহমান মানিক, বিশ্বনাথ-বালাগঞ্জ-উসমানীনগরের জাতীয় পার্টির এম,পি, এহিয়া চৌধুরী, জেলা পরিষদ সদস্য জহিরুল ইসলাম সহ বিভিন্ন জনপ্রতিনিধি ও সরকারী কর্মকর্তা ও রাজনৈতিক এবং সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

 






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *