Main Menu

ময়মনসিংহে ডিবি’র ফাঁদে নকল মন্ত্রী ! বাংলারদর্পন

 

বাংলারদর্পন ডেস্কঃ

ময়মনসিংহ: ময়মনসিংহ জেলা গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)’র খাঁচায় ধরা পড়েছে স্বপন মন্ডল নামের এক শীর্ষ প্রতারক। সে নিজেকে ধর্মমন্ত্রী, ডিবি’র কর্মকর্তা, ডিজিএফআইয়ের ক্যাপ্টেন, কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা আবার কখনও মন্ত্রী বা এমপির পিএস পরিচয় দিয়ে দীর্ঘদিনধরে প্রতারনা করে আসছিল।

এ প্রতারকের ফাঁদে পড়ে নিঃস্ব হয়েছেন নানা পেশাজিবী শতশত মানুষ। মানুষের টাকা আতœসাৎ ছাড়াও প্রতারনার ফাঁদে ফেলে সরকারি চাকুরী দেয়ার কথা বলে শতশত মেয়েদের ইজ্জত লোন্ঠন করেছেন তিনি। ময়মনসিংহের গফরগাঁও, গাজীপুরের কাপাসিয়া, শ্রীপুর, নারায়নগঞ্জ, ঢাকার উত্তরাসহ দেশের বিভিন্ন এলাকায় অন্তত ডজনেরও বেশি বিয়ে করেছেন প্রতারক স্বপন মন্ডল। গফরগাঁও উপজেলা শ্রমীকলীগ সভাপতি সোহানুর রহমান সোহাগ জানান একেক দিন একে প্রাইভেটকারে চড়ে ধাপটের সাথে চলতেন কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা ও শিল্পপতি পরিচয় দানকারি এই স্বপন মন্ডল।

তিনি সবসময় বলতেন সরকারি চাকুরী থেকে শুরু করে বদলি প্রমোশনসহ যে কোন কাজের জন্য আমাকে ফোন করবেন বা সরাসরি যোগাযোগ করবেন।

রবিবার রাতে স্বপন মন্ডলকে জেলার ভালুকা উপজেলা সদর থেকে গ্রেপ্তার করেছে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ(ডিবি)র ওসি আশিকুর রহমানের নেতৃত্বে একদল পুলিশ।

ডিবি’র হাতে গ্রেফতার স্বপন মন্ডল জেলার ভালুকা উপজেলার রাজৈ ইউনিয়নের বাসিন্দা সালাউদ্দিন মন্ডলের ছেলে।

সোমবার ময়মনসিংহের জেলা পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলাম তার নিজ কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে স্বপন মন্ডলকে গ্রেফতারে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

সংবাদ সম্মেলনে কর্মগুনে আলো ছড়ানো এসপি সৈয়দ নুরুল ইসলাম জানান স্বপন মন্ডল ধর্মমন্ত্রী অধ্যক্ষ মতিউর রহমান স্যারের কন্ঠস্বর অবিকল নকল করে মুঠোফোনে কথা বলেছে। এ ছাড়াও স্বপন মন্ডল নিজেকে ডিবি’, ডিজিএফআইয়ের কর্মকর্তাসহ বিভিন্ন পরিচয়ে দীর্ঘদিনধরে মোবাইল ফোনে কথা বলে আসছে। স্বপন মন্ডল যে কোন ব্যাক্তির কন্ঠস্বর অবিকল নকল করে কথা বলতে পারেন বলেও জানান তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে জানান গত ১৯ সেপ্টেম্বর গফরগাঁও উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) রেজাউল করিমকে ভালুকা উপজেলায় বদলি করার কথা বলে ১৭ লাখ টাকা আত্মসাত করেন। এছাড়াও প্রতারক স্বপন নিজেকে ডিজিএফআইয়ের ক্যাপ্টেন আরিফ পরিচয় দিয়ে ত্রিশাল উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ইকবালকে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মনোনয়ন পাইয়ে দেয়ার নামে ১০ লাখ টাকা আত্মসাত করেছেন। নারায়ণগঞ্জের হাইওয়ে পুলিশের ওসি কাইয়ুমকে বদলি করার নামে ১৮ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন স্বপন মন্ডল।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার নুরে আলম জানান, স্বপন মন্ডলের বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগ এনে কোতোয়ালি মডেল থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। তাকে রিমান্ডে এনে তার সহযোগী প্রতারক চক্রের সদস্যদের চিহিৃত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *