Main Menu

ভারতকে ২৬৫ রানের টার্গেট দিয়েছে বাংলাদেশ

 

ঢাকা : চ্যাম্পিয়নস ট্রফির সেমিফাইনালে উঠেই বাংলাদেশ গড়েছে ইতিহাস। আজ শেষ চারের লড়াইয়ে ভারতকে হারাতে পারলে চলে যাবে নতুন উচ্চতায়। কিন্তু সেই লক্ষ্যে শুরুতে ব্যাট করতে নেমে সংগ্রহটা প্রত্যাশা অনুযায়ী বড় করতে পারলেন না বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা। তামিম (৭০) ও মুশফিকের (৬১) ব্যাটে ভর করে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির ফা্ইনালে যেতে ভারতকে ২৬৫ রানের টার্গেট দিয়েছে বাংলাদেশ। ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৭ উইকেটের বিনিময়ে ২৬৪ রান সংগ্রহ করে বাংলাদেশ।

যে কোনো টুর্নামেন্টে বড় দলের সাথে খেলার বাড়তি উত্তেজনা থাকে। সেটি যদি আবার বড় আসরের সেমি-ফাইনালে ওই টুর্নামেন্টেরই বর্তমান চ্যাম্পিয়নের সাথে হয় তাহলে তো কথাই নেই! তার ওপর এই ভারত দলের সাথে দারুণ এক ক্রিকেট মাঠের শত্রুতা এখন বাংলাদেশের। টসে হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুতেই হোঁচট খায় বাংলাদেশ।

উইকেট বিলিয়ে দিয়ে ফিরে যান সৌম্য সরকার। ব্যর্থতা টেনে এনে এখানেও ১ রানে ১ উইকেট হারানো দল সৌম্য বানিয়ে যান। ভুবনেশ্বর কুমারের অ্যাঙ্গুলার বল। স্টাম্পের বাইরে থেকে রোমাঞ্চে ভর না করলে বলটা কেন টেনে আনবেন সৌম্য।

সৌম্যর ০ রোমাঞ্চে টান ধরাতে পারে না। সাব্বির রহমান এসেই বাউন্ডারি মারেন জসপ্রিত বুমরাহকে। অন্যপ্রান্তে তামিম দেখে চলেন সাব্বিরের খেলা। দ্রুত ছোটেন ওয়ান ডাউনের ব্যাটসম্যান। ৪টি বাউন্ডারি মেরে ফেলেন। রান হয়ে যায় ১৯। কিন্তু ভুবনেশ্বর তো ফর্মে। তাকে কাট করতে গিয়ে সেই রোমাঞ্চেই হয়তো ঠিক মেলাতে পারেন না সাব্বির। নইলে ব্যাকওয়ার্ড পয়েন্টে ওভাবে ফিল্ডারের হাতে কেন তুলে দেবেন বল? ১৯ রান করে বিদায়।

৩১ রানে ২ উইকেট পড়ে বাংলাদেশের। সেখান থেকে মুশফিকুর রহীমকে নিয়ে দুর্দান্ত এক জুটি গড়ে বাংলাদেশকে ম্যাচে ফিরিয়ে আনেন তামিম। তবে অল্প সময়ের ব্যবধানে তামিম-সাকিব ও মুশফিকের বিদায়ে বেশ চাপের মুখে পড়ে যায় টাইগাররা।

আগের ম্যাচে করেছিলেন সেঞ্চুরি। সঙ্গে অবিশ্বাস্য এক ম্যাচ জয়ের নায়ক বনে যান সাকিব আল হাসান। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে অসাধারণ ব্যাটিং করা সাকিব পারলেন না ভারতের বিপক্ষে সেমিফাইনালে। আউট হয়ে গেছেন তিনি ১৫ রান করে।

রবীন্দ্র জাদেজার বলে মহেন্দ্র সিং ধোনির গ্ল্যাভসে ধরা পড়েন এই অলরাউন্ডার। এই আঘাত সামলে ওঠার আগেই আবার ধাক্কা খায় বাংলাদেশ। এবার সেট ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহিম ফিরে যান প্যাভিলিয়নে। ৮৫ বলে ৬১ রান আসে তার ব্যাট থেকে। ক্যারিয়ারের ২৬তম ফিফটি হাঁকানো ইনিংসে ছিল ৪টি বাউন্ডারি।

এরপর ৪২.৩ ওভারে সাজঘরে ফেরেন মোসাদ্দেক হোসেন (১৫)। আর ৪৫তম ওভারের শেষ বলে বোল্ড হন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ (২১)।

শেষপর্যায়ে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজার ৩০ ও তাসকিন আহমেদের ১১ রানের ইনিংসে ভর করে বাংলাদেশের স্কোরবোর্ডে জমা হয়েছে ২৬৪ রান।

ভারতের তিন বোলার দুটি করে উইকেট নিয়েছেন। ভুবনেশ্বর, বুমরাহ ও যাদভ। একটি উইকেট গেছে জাদেজার ঝুলিতে।

কাগজে কলমে ভারত শক্তিশালী দল হলেও সাম্প্রতিক ফর্মের কারণে র্যাংকিংয়ে শুরুর দিকে থাকা দলটিকে হারানোর স্বপ্ন বুনছে বাংলাদেশ। প্রথমবারের মতো আইসিসির কোনো টুর্নামেন্টে ফাইনাল খেলার স্বপ্ন নিয়ে মাঠে নেমেছে মাশরাফিবাহিনী।

বৃষ্টির বাধায় বাংলাদেশ-ভারতের দ্বিতীয় সেমি-ফাইনাল নির্ধারিত সময়ের ১০ মিনিট পর স্থানীয় সময় সকাল ১০টা ৪০ মিনিটে শুরু হয়। বাংলাদেশ সময় বেলা সাড়ে তিনটায় শুরু হওয়া ম্যাচটি সরাসরি সম্প্রচার করছে বিটিভি, জিটিভি, মাছরাঙা টিভি ও স্টার স্পোর্টস। দু’দলই এই ম্যাচে তাদের অপরিবর্তিত একাদশ নিয়ে মাঠে নেমেছে। চার স্পেশালিস্ট পেসার নিয়ে খেলতে নেমেছে বাংলাদেশ। পরিবর্তন আসেনি ভারতের একাদশেও।

বাংলাদেশ দল: তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকার, সাব্বির রহমান, মুশফিকুর রহীম, সাকিব আল হাসান, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত, তাসকিন আহমেদ, মাশরাফি বিন মর্তুজা, রুবেল হোসেন ও মোস্তাফিজুর রহমান।

ভারতীয় দল: রোহিত শর্মা, শিখর ধাওয়ান, বিরাট কোহলি, যুবরাজ সিং, মাহেন্দ্র সিং ধোনি, কেদার যাদব, হার্দিক পান্ডিয়া, রবীন্দ্র জাদেজা, ভুবনেশ্বর কুমার, রবীচন্দ্রন অশ্বিন ও জাস্প্রিত বুমরাহ।






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *