Main Menu

লন্ডন হামলায় নিহত ৭ অাহত ৪৮

 

 

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : যুক্তরাজ্যের লন্ডনে হামলায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে সাতজনে দাঁড়িয়েছে।

এ ঘটনায় হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে ৪৮ জনকে। নিহতের সংখ্যা আরো বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। এ ছাড়া তিন হামলকারী পুলিশের গুলিতে নিহত হয়েছে।

২২ মে দেশটির ম্যানচেস্টারে এক সংগীত অনুষ্ঠানে আত্মঘাতী বোমা হামলায় ২৯ জন নিহত ও ৬৪ জন আহত হন। ভয়াবহ ওই ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতেই এবার হামলা হলো যুক্তরাজ্যের প্রাণকেন্দ্র লন্ডনে।

স্থানীয় সময় শনিবার লন্ডন ব্রিজে পথচারীদের ওপর দিয়ে একটি সাদা গাড়ি উঠিয়ে দেওয়ার পর গাড়ি থেকে নেমে আসে তিন ব্যক্তি। তারা পার্শ্ববর্তী বরা মার্কেটে লোকজনের ওপর ছুরি দিয়ে হামলা চালায়। পুলিশের দাবি, ওই তিন ব্যক্তি ভুয়া সুইসাইড ভেস্ট পরে এসেছিল।

হামলাকারী তিন ব্যক্তিকে বাধা দিতে গিয়ে ছুরিকাঘাতে আহত হন পুলিশের এক কর্মকর্তা। তবে লন্ডন পুলিশ জানিয়েছে, এতে তার জীবন যাওয়ার ঝুঁকি নেই।

অধিকাংশ রাজনৈতিক দল সাধারণ নির্বাচনের প্রচার-প্রচারণ বন্ধের ঘোষণা দিয়েছে। কিন্তু ইউকেআইপি দলের নেতা পল নাটাল জানিয়েছেন, তিনি নির্বাচনী প্রচার অব্যাহত রাখবেন। কারণ উগ্রাবাদীরা চাইছে সব কিছু বন্ধ থাকুক।

প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে নির্বাচনী প্রচার বন্ধ রেখে নিরাপত্তাবিষয়ক কোবরা কমিটির সঙ্গে জরুরি বৈঠক করছেন। এ বিষয়ে শিগগিরই তার বিবৃতি দেওয়ার কথা রয়েছে।

লন্ডন অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস জানিয়েছে, পাঁচটি হাসপাতালে ৪৮ জনকে ভর্তি করেছে তারা। এ ছাড়া লন্ডন ব্রিজ ও লন্ডন ব্রিজ রেলওয়ে স্টেশন বন্ধ রেখেছে কর্তৃপক্ষ।

এদিকে, এ হামলার নিন্দা জানিয়েছেন বিশ্বনেতারা। ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ম্যানুয়েল ম্যাক্রোঁ বলেছেন, সব সময়ই তার দেশ ব্রিটেনে পাশে আছে। উল্লেখ্য, শনিবারের হামলায় দুজন ফরাসি আহত হয়েছেন।

অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী ম্যালকম টার্নবুল বলেছেন, ব্রিটেনের জনগণের জন্য তার ‘প্রার্থনা ও গভীর সংহতি’ রয়েছে। তিনি আরো জানিয়েছেন, এ হামলায় এক অস্ট্রেলীয়কে হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে এবং একজন ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এ ঘটনার পর এক টুইটে জানিয়েছেন, ‘লন্ডন ও যুক্তরাজ্যের সহযোগিতায় যা করার আছে, তা করবে যুক্তরাষ্ট্র। সব সময় পাশে আছে যুক্তরাষ্ট্র। আমরা তোমাদের সঙ্গে আছি। ঈশ্বর আশীর্বাদ করুন।’

এক বিবৃতিতে জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মেরকেলও এ হামলার তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন। ইউরোপীয় কমিশনের প্রেসিডেন্ট জিন ক্লদ জাঙ্কার এ হামলাকে ‘রোমহর্ষক’ বলে অভিহিত করেছেন। এ ছাড়া রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনও ব্রিটিশদের প্রতি তার গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেছেন।

তথ্যসূত্র : বিবিসি অনলাইন






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *