Main Menu

নোয়াখালীতে শিক্ষক’র সাথে প্রবাসীর স্ত্রীর পলায়ন

নিজস্ব প্রতিবেদক: সামাজিক ভাবে বিয়ে, অন্তস্বত্বা, অতঃপর নানা কৌশলে স্বামী প্রবাসে থাকার সুযোগে স্বর্ণলংকার নিয়ে নিজের গৃহ শিক্ষক সাথে অবৈধ সম্পর্কে জড়িয়ে শ্বশুর বাড়ি থেকে পালিয়ে গেছেন এক প্রবাসীর সুন্দরী স্ত্রী । প্রবাসে থাকা স্বামীকে তালাক দিয়ে গৃহ শিক্ষক সাথে ঘর বাধতে মরিয়া সুন্দরী গৃহবধূ। ঘটনা ওখানেই শেষ হতে পারতো । ভাগ্যের নির্মম পরিহাস ভেবে প্রবাসী যুবক অর্থ- কড়ি সম্মান সব হারিয়েও নিশ্চুপ ছিলেন। কিন্তু বাধ সাধে তাসলিমা আক্তার পলি নামের প্রবাসীর সুন্দরী স্ত্রী সহ তার পরিবারের লোভ। আগেই যেহেতু বিভিন্ন কৌশলে টাকা আদায় করা গেছে, সেহেতু আরও চাপ দিলে টাকা বেরুবে এমনটাই পরিকল্পনা তাদের, সেই লক্ষেই বর্তমানে অসহায় পরিবারটিকে চাপের মুখে রাখতে মিথ্যা মামলা করে হয়রানি করে যাচ্ছেন বলে অভিযোগ অসহায় পরিবারটির।
ঘটনাটি ঘটেছে নোয়াখালী জেলার সুবর্নচর উপজেলার চর জুবলী গ্রামে ভূক্তভোগীর অভিযোগের ভিত্তিতে সরেজমিনে গিয়ে জানতে চাইলে বেরিয়ে আসে চাঞ্চল্যকর অনেক তথ্য। নোয়াখালী সদর উপজেলার , হরিনায়নপুর গ্রামের মো ঃ মান্নান এর মেয়ে তাসলিমা আক্তার পলি (বর্তমানে নোয়াখালীর সোনাপুর ডিগ্রী কলেজের ছাত্রী) সাথে  নোয়াখালী জেলার সুবর্নচর উপজেলার চর জুবলী গ্রামের ইব্রাহিম খলিল ধনুর পুত্র, জিসান রহমান সোহেল  (বর্তমানে ওমান প্রবাসী) গত ১২ নভেম্বর ১৫সালে সামাজিক ভাবে বিয়ে হয়। বিয়ের ৪ মাস পর তাসলিমা আক্তার পলি অন্তস্বত্বা হওয়ার খবর ছড়িয়ে পড়লে সবার মাঝে নেমে আসে আনন্দের ঝড়। কিছু দিন পরে সংসারে অভাব মোচন করতে একটু সুখে থাকার আশায় ধার কর্য করে ২০১৬ সালে জিসান রহমান ওমান পাড়ি দেয়, কিন্তু সেখানে ও শান্তিতে নেই, দালালের খব্বরের পড়ে, যে কাজের কথা ও যতটাকা বেতন তার অর্দ্ধেক ও নয়, বর্তমানে খেয়ে না খেয়ে মানবেতর জীবন কাটাচ্ছেন ঐ যুবক যেতে না যেতে গৃহ শিক্ষক সাথে পরকিয়ায় জড়িয়ে পড়ে তাসলিমা আক্তার পলি  কিছু দিন পর জিসান বিশ্বস্ত সুত্রে জানতে পারেন, পলি ও তার মা রিনা বেগম গৃহ শিক্ষক পরামর্শে অনাগত সন্তানকে নস্ট করে ফেলে জিসান রহমান স্ত্রীর সাথে যোগাযোগ বন্ধ করে দেওয়ার কিছু দিন পরে পলি জিসানকে ফোন করে তালাক চাই ও যত দ্রুত মোহরানা টাকা দেওয়ার চাপ দেয়।






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *