Main Menu

১ লাখ ৭৩ হাজার কোটি টাকার এডিপি অনুমোদন | বাংলারদর্পন

নিউজ ডেস্ক :

উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে দেশের অর্জন, বাস্তবতা ও সক্ষমতা বিবেচনা করে প্রতিশ্রুতিশীল বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি হতে পারে দেশের সমৃদ্ধির পথে অন্যতম হাতিয়ার। বর্তমান সরকার দেশকে মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত করে দেশকে ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত দেশে পরিণত করতে অঙ্গীকারবদ্ধ। দেশকে সে কাঙ্খিত লক্ষ্যে নিয়ে যেতে ২০১৮ থেকে ২০১৯ সালকে সামনে রেখে বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি বা এডিপি অনুমোদন করেছে সরকার।

শতভাগ বাস্তবায়নের লক্ষ্য নিয়ে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদ আগামী ২০১৮-১৯ অর্থবছরের জন্য এক লাখ ৮০ হাজার ৮৬৯ কোটি টাকার বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি বা এডিপি অনুমোদন করেছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ সভায় অনুমোদিত মুল এডিপির আকার হচ্ছে ১ লাখ ৭৩ হাজার কোটি টাকা। এর বাইরে স্বায়ত্ব শাসিত সংস্থার নিজস্ব অর্থায়নে ৭ হাজার ৮৬৯ কোটি ১৭ লাখ টাকা কোটি টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।

অনুমোদিত এডিপিতে ১৪৫২ টি প্রকল্প রাখা হয়েছে। এর মধ্যে বিনিয়োগ প্রকল্পর সংখ্যা ১২২৭ টি, কারিগরি প্রকল্প ১১৭ টি, জেডিসিএফ এর দুটি প্রকল্প রয়েছে। এর বাইরে স্বায়ত্বশাসিত সংস্থার প্রকল্পের সংখ্যা ১০৫ টি।

যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন, পদ্মা সেতু এবং পদ্মা সেতুতে রেল সংযোগ প্রকল্পের গুরুত্ব বিবেচনা করে নতুন বাজেটে সর্বোচ্চ বরাদ্দ দেয়া হয়েছে পরিবহন খাতে। এছাড়া অগ্রাধিকার বিবেচনায় দ্বিতীয় সর্বোচ্চ বরাদ্দ বিদ্যুৎ এবং তৃতীয় সর্বোচ্চ বরাদ্দ দেয়া হয়েছে ভৌত পরিকল্পনা-পানি সরবরাহ ও গৃহায়ণ খাতে।

বর্তমান সরকারের প্রধানমন্ত্রী ২০২১ সালের মধ্যে বিদ্যালয়ে শিশুদের উপস্থিতি নিশ্চিতকরণ, ২০২১ সালের মধ্যে মধ্যম আয়ের দেশে পৌঁছা, ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণসহ সবার জন্যে বিদ্যুৎ সুবিধা নিশ্চিতকরণের যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন, তা পরিকল্পিত উন্নয়ন বাজেটের মাধ্যমে বাস্তবায়ন সম্ভব বলে ধারণা করছেন সমালোচকরা।






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *