Main Menu

রাঙ্গুনিয়া যুবলীগ নেতা হাশেম খুন : প্রেমিকার স্বীকারোক্তি 

নিজস্ব প্রতিনিধি :

 

পরকিয়ার জের ধরেই খুনের শিকার হন রাঙ্গুনিয়ার যুবলীগ নেতা আবুল হাশেম।জিফু বেগম নামের এক মহিলা পুলিশের হাতে গ্রেফতার হওয়ার পর হাশেম হত্যার রহস্যের জট খুলতে সক্ষম হয় পুলিশ। ৬ মে রবিবার চট্টগ্রাম পুলিশ সুপার কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সন্মেললে চট্টগ্রাম জেলা পুলিশ সুপার নুরে আলম মিনা আবুল হাশেম ওরফে বাচা হত্যার রহস্য তুলে ধরেন। জেলা পুলিশ সুপার সাংবাদিকদের জানান, রাঙ্গুনিয়া উপজেলা যুবলীগের সাবেক সহ সভাপতি আবুল হাশেম ওরফে বাচার সাথে রাঙ্গুনিয়া পৌর এলাকার ইছাখালী জাকিরাবাদ এলাকার আইয়ুব আলীর স্ত্রী জিফু বেগমের (৪০) সাথে অনৈতিক সম্পর্ক গড়ে ওঠে। তাদের দুজনের আপত্তিকার কিছু ছবি আবুল হাশেম তার মোবাইলে ধারন করে ছবিগুলোর ভয় দেখিয়ে জিফু বেগমের সাথে শারীরিক সম্পর্ক করতো আবুল হাশেম। এই অনৈতিক সম্পর্কের জের ধরে দুজনের মাঝে এক সময় তিক্ততা গড়ে উঠে। সেই সূত্র ধরে আবুল হাশেমকে জুসের সাথে ঘুমের ঔষধ মিশিয়ে অচেতন করে আবুল হাশেমের শরীরে কাপড় পেঁছিয়ে তাতে আ্গুণ ধরিয়ে দেন। গত ৪ মে শুক্রবার ভোররাতে রাঙ্গুনিয়ার পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ডে ইছামতি গ্রাম থেকে আবুল হাশেমের অগ্নিদগ্ধ লাশ উদ্ধার করে রাঙ্গুনিয়া থানা পুলিশ।বাইরে থেকে বাচার শয়নকক্ষ তালাবদ্ধ থাকায় তার মৃত্যু নিয়ে নতুন রহস্যের সৃষ্টি হয়। এই রহস্যের জট খুলতে গিয়ে এক পর্যায়ে পুলিশের হাতে গ্রেফতার হন জিফু বেগম।তার স্বীকারোক্তি অনুযায়ী উপজেলার পোমরা খাঁ মসজিদের পুকুর থেকে বাচার ৪টি মোবাইল ফোন উদ্ধার করে পুলিশ।৬মে রবিবার পুলিশ সুপারের কার্যালয় থেকে সংবাদ সম্মেলন শেষে জিফু বেগমকে আদালতে সোপর্দ করা হয়।এই ঘটনা রাঙ্গুনিয়ায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়।






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *