Main Menu

প্রধানমন্ত্রীর অঞ্চলভিত্তিক উন্নয়নের অংশ হিসেবে এগিয়ে যাচ্ছে বরিশাল-পটুয়াখালী | বাংলারদর্পন 

নিউজ ডেস্ক: বাংলাদেশকে একটি আধুনিক ও উন্নততর দেশ হিসেবে প্রতিষ্ঠা করতে নিরলস পরিশ্রম করে যাচ্ছেন বঙ্গবন্ধু কন্যা ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। যার অংশ হিসেবে উন্নয়নের ছোঁয়ায় পরিবর্তিত হচ্ছে দেশের প্রতিটি বিভাগ, জেলা, উপজেলা। প্রধানমন্ত্রীর অঞ্চলভিত্তিক উন্নয়নের অংশ হিসেবে বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে সমান্তরাল গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে বরিশাল এবং পটুয়াখালী। উন্নত হচ্ছে সেখানকার শিক্ষা, স্বাস্থ্য, কৃষি ও যোগাযোগ ব্যবস্থা সহ উন্নত জীবন ব্যবস্থার প্রতিটি ক্ষেত্র।

সম্প্রতি বরিশাল-পটুয়াখালী কেন্দ্রীক উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে প্রধানমন্ত্রীর পরিকল্পনায় বিভিন্ন প্রকল্প হাতে নেয়া হয়েছে। সেগুলোর মধ্যে-পটুয়াখালী ৫০ শয্যাবিশিষ্ট ডায়াবেটিস হাসপাতাল, মির্জাগঞ্জ উপজেলার দেউলী ১০ শয্যাবিশিষ্ট মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্র, বাউফলের সাবুপাড়া গ্রামে ১০ শয্যাবিশিষ্ট মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্র, সরকারি শিশু পরিবারের (বালিকা) নবনির্মিত হোটেল ভবন, কাজী আবুল কাশেম স্টেডিয়াম, দশমিনা উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স ভবন, কলাপাড়া উপজেলার পশ্চিম চাকামইয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কাম সাইক্লোন সেন্টার, পূর্ব ডালবুগঞ্জ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কাম সাইক্লোন সেন্টার, হোগলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কাম সাইক্লোন সেন্টার, বাউফলের ধানদী মডেল হাইস্কুল কাম সাইক্লোন সেন্টার, কলাপাড়া উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স, গলাচিপা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স, জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে ডিজিটাল পাবলিসিটি স্ক্রিন এবং শহীদ শেখ কামাল স্মৃতি কমপ্লেক্সের অডিটোরিয়াম অন্যতম।

এছাড়া, গত ৮ ফেব্রুয়ারি বরিশালে ৭৫টি উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন ও ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন প্রধানমন্ত্রী। এরমধ্যে ৪১টি প্রকল্প উদ্বোধন এবং ৩৪টি নির্মাণ কাজের ভিত্তিপ্রস্তরও স্থাপন করেন তিনি। বিভিন্ন উন্নয়নমূলক প্রকল্পগুলোর মধ্যে রয়েছে-বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর একাডেমিক ভবন, বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ সিপাহি মোহাম্মদ মোস্তফা কামাল একাডেমিক ভবন, শহীদ আবদুর রব সেরনিয়াবাত কেন্দ্রীয় লাইব্রেরি, বঙ্গবন্ধু হল, শেখ হাসিনা হল, শেরেবাংলা হল, বরিশাল গণপূর্ত বিভাগের আওতাধীন সরকারি শিশু পরিবার বালিকা (দক্ষিণ) বরিশালের নিবাসীদের নবনির্মিত ডরমেটরি ভবন, বরিশাল সদরে কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তরের আধুনিকায়ন ও শক্তিশালীকরণ শীর্ষক ভবন নির্মাণ প্রকল্প, বরিশাল বিভাগীয় ও জেলা শিল্পকলা একাডেমি নির্মাণ প্রকল্প, জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স ভবন, বাবুগঞ্জ ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স স্টেশন (বি-টাইপ), মেহেন্দিগঞ্জ থানা কমপ্লেক্স ভবন।

এছাড়া, স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের আওতায় আগৈলঝাড়া, গৌরনদী, বাকেরগঞ্জ, হিজলা, মুলাদী, মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স ভবন, গৌরনদী উপজেলা পরিষদ কমপ্লেক্স ভবন, উজিরপুর উপজেলার হারতা-বানারীপাড়া বর্ডার রাস্তায় ২৮০ মিটার প্রি-স্ট্রেস গার্ডার ব্রিজ, বানারীপাড়া উপজেলাধীন চৌমোহনা জিসি-বানারীপাড়া হেড কোয়ার্টার ভায়া বিশারকান্দি, ওমারের পাড় রাস্তায় নান্দুগার নদীর ওপর ২৯০ মিটার আরসিসি গার্ডার ব্রিজ, মেহেন্দিগঞ্জের উলানিয়া-কালীগঞ্জ ব্রীজের উদ্বোধন করেন।

এসময় বরিশালের কৃষিখাতে উন্নয়নের লক্ষ্যে, জেলা পরিষদের আওতাধীন মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলায় বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন করপোরেশনের আওতায় বরিশালে সদরে অবস্থিত ৩ হাজার মেট্রিকটন ধারণক্ষমতা সম্পন্ন বীজ প্রক্রিয়াজাতকরণ ও সংরক্ষণাগার, ২ হাজার মেট্রিকটন ধারণক্ষমতা সম্পন্ন আলু বীজ হিমাগারেরও উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী।

বরিশালের স্বাস্থ্যক্ষেত্রে উন্নয়নের লক্ষ্যে জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের আওতাধীন বরিশাল নগরের রুপাতলী এলাকায় ১৬ এমএলডি শোধন ক্ষমতাসম্পন্ন সার্ফেস ওয়াটার ট্রিটমেন্ট প্লান্ট, ৩১ শয্যাবিশিষ্ট মেহেন্দিগঞ্জে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স।

শিক্ষাখাতে উন্নয়নের লক্ষ্যে, শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের আওতাধীন শহীদ আরজু মনি ও শহীদ আবদুর রব সেরনিয়াবাত সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের পৃথক সাত তলা দুটি একাডেমিক ভবন, দেশরত্ন শেখ হাসিনা মহাবিদ্যালয়ের একাডেমিক ভবন নির্মাণ বরিশাল ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ, হিজলা ডিগ্রি কলেজের ৪-তলা একাডেমিক ভবন, হিজলার সংহতি মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয়।

মেহেন্দিগঞ্জের উলানিয়া মোজাফ্ফর খান ডিগ্রি কলেজের চারতলা একাডেমিক ভবন। বরিশাল সিটি করপোরেশনের আওতায় বঙ্গবন্ধু অডিটরিয়াম ভবন, কড়াপুর ১০ শয্যা বিশিষ্ট মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্র, হিজলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সকে ৩১ শয্যা থেকে ৫০ শর্যায় উন্নীতকরণ, ৪নং মাহিলাপাড়া ইউনিয়ন পরিষদ কমপ্লেক্স ভবন এবং মুলাদী ইউনিয়ন পরিষদ কমপ্লেক্স ভবন।

এছাড়া, ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনযোগ্য বিভিন্ন উন্নয়নমূলক প্রকল্পের মধ্যে রয়েছে- বরিশাল গণপূর্ত বিভাগের আওতাধীন বরিশাল পুলিশ সুপার (এসপি) অফিস নির্মাণ, বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশ লাইন্স নির্মাণ, নারী কারারক্ষীদের বাসভবন নির্মাণ, বিভাগীয় হিসাব নিয়ন্ত্রকের কার্যালয় নির্মাণ, বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের সদর দফতর ভবন, শহীদ আবদুর রব সেরনিয়াবাত টেক্সটাইল ইনস্টিটিউট নির্মাণ, কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র (টিটিসি) নির্মাণ, মুলাদী থানা ভবন নির্মাণ এবং বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল সংলগ্ন নার্সিং হোস্টেল নির্মাণ প্রকল্প, শহীদ আবদুর রব সেরনিয়াবাত অডিটরিয়াম ভবন, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স ভবন এবং আগৈলঝাড়া উপজেলা পরিষদ কমপ্লেক্স ভবনের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রীর উন্নয়নের স্রোত ধারা শুধু বরিশালে নয়, প্রবাহিত হচ্ছে সমগ্র বাংলাদেশে। জননেত্রীর উন্নয়নের মহাপরিকল্পনা সর্বজন সমাদৃত। এমন প্রচেষ্টা একটি দেশকে সফলতার উন্নত শিখরে পৌঁছে দিতে পারে। সে পথেই এগিয়ে চলছে দেশ, এগিয়ে চলেছে প্রধানমন্ত্রীর স্বপ্নের বাংলাদেশ।






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *