Main Menu

নারী শিক্ষায় অবদান রাখায় ‘গ্লোবাল উইমেন্স লিডারশিপ অ্যাওয়ার্ড’ পেলেন শেখ হাসিনা

নিউজ ডেস্ক :

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাত ধরে বিশ্ব দরবারে আবারো উজ্জ্বল হলো বাংলাদেশের নাম। বাংলাদেশসহ প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে নারী শিক্ষার প্রসার এবং ব্যবসায়িক উদ্যোগে অসামান্য ভূমিকা রাখার স্বীকৃতিস্বরুপ যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক এনজিও গ্লোবাল সামিট ফর উইমেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতে তুলে দিতে যাচ্ছে ‘গ্লোবাল উইমেন্স লিডারশিপ অ্যাওয়ার্ড’। অস্ট্রেলিয়ার সিডনিতে ২৬ এপ্রিল থেকে অনুষ্ঠিতব্য নারীদের বৈশ্বিক সম্মেলনে এ পুরস্কার তুলে দেওয়া হবে প্রধানমন্ত্রীর হাতে।

একটি দেশের টেকসই উন্নয়নের জন্য নারী ও কন্যাশিশুর ক্ষমতায়ন অপরিহার্য। মেধা ও দক্ষতায় নারীরা যেন যেকোনো প্রতিযোগিতায় নিজেদের অনন্যতার প্রমাণ দিতে পারে সেই লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দায়িত্ব গ্রহণের পর থেকেই কাজ করে যাচ্ছেন নিরন্তর।

এর ফলশ্রুতিতে মেয়েদের জন্য বাংলাদেশে দ্বাদশ শ্রেণি পর্যন্ত শিক্ষা অবৈতনিক করা হয়েছে যা লিঙ্গ সমতা রক্ষায় পালন করছে যুগান্তকারী ভূমিকা। স্নাতক পর্যায়ে নারী শিক্ষাকে উৎসাহিত করতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে গঠন করা হয়েছে শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট ফান্ড যাতে প্রাথমিকভাবে প্রদান করা হয় এক হাজার কোটি টাকা সীড মানি। ইতোমধ্যে এই ফান্ড থেকে স্নাতক ও সমপর্যায়ের ১ লক্ষ ২৯ হাজার ৮১০ জন ছাত্রীকে প্রায় ৭৩ কোটি টাকার উপবৃত্তি প্রদান করা হয়েছে। এছাড়াও নারীদের কারিগরি শিক্ষায় বিকশিত করতে ৬টি মহিলা কারিগরি বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

সরকারের এমন যুগোপযোগী সিদ্ধান্তে নারীদের জন্য উন্মোচিত হয়েছে বিরাট সম্ভাবনার দ্বার। বিভিন্ন পেশায় নারীদের অংশগ্রহণ আজ বেড়েছে অনেকাংশে । পাশাপাশি খর্বিত হয়ে এসেছে নারী-পুরুষের বৈষম্যের দেয়াল।

নারীদের অগ্রগতির জন্য শেখ হাসিনার গৃহীত পদক্ষেপ দেশের গন্ডি ছাড়িয়ে আজ আলোচিত হচ্ছে বিশ্বদরবারে। উন্নয়নের এমন ধারা অব্যাহত থাকলে অচিরেই বাংলাদেশ হয়ে উঠবে শান্তি ও সমতার প্রতীক, এমনটিই মনে করে দেশবাসী।






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *