স্বাস্থ্যকথা সোনাগাজী  প্রতিনিধি বাহার উল্লাহ বাহার এর মেয়ে  রাদিয়া মুস্তারী সারিকা ( ৫)। সে সোনাগাজী সদর ইউনিয়নের উত্তর ছাড়াইতকান্দি রেজিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রথম শ্রেণীতে পড়ে। সোমবার সকালে  ক্লাশে লিখতে না পারায় প্রথম শ্রেণীর ছাত্রীকে পিটিয়ে অাহত করে শ্রেনী শিক্ষক।

নির্যাতনের বর্ননা দিয়ে বাহার তার ফেসবুকে লিখেন,

প্রতিদিনের মত ৯  এপ্রিল সোমবার সকালে সে স্কুলে যায়।
স্কুল থেকে আসার পর আমি যখন তাকে গোসল করার জন্য ডাকি সে গোসল করতে রাজি হচ্ছিলো না। আমি ধমক দিয়ে ডাকলে সে গোসল করতে আসে। শরীর থেকে গেঞ্জি খুলে দেখি তার সারা পিঠে অনেকগুলো দাগ ফুলে আছে। তাকে জিঙ্গেস করলাম এগুলো কিসের দাগ ? মেয়েটি কাঁদতে লাগলো এবং বললো যে, তাকে ক্লাশে লিখতে না পারার কারনে লাভলী ম্যাডাম বেত দিয়ে মেরেছে।

এর পর আমি স্কুলে ছুটে যাই এবং প্রধান শিক্ষক রফিকুল ইসলাম সহ অন্যান্য শিক্ষক ও শিক্ষিকা ও লাভলী ম্যাডামকে বিষয়টির ব্যাপারে জিঙ্গেস করি যে এটাই কী শিশু শিক্ষার্থীদেরকে পড়ানোর পদ্ধতি ? আমিও শিক্ষক ছিলাম ৭/৮ বছর শিক্ষকতা করেছি এই ধরনের ঘটনাতো কখনো ঘটেনি।

আমি স্কুলে গিয়ে কয়েকজন ছাত্র / ছাত্রীদেরকে জিঙ্গেস করলাম তাদের একই বক্তব্য লাভলী ম্যাডাম খুব মারে। বেত ব্যবহারের নিয়ম না থাকলেও আমি সরেজমিনে গিয়ে দেখি শিক্ষক ও শিক্ষিকাদের হাতে মোটা বেত নিয়ে ক্লাশ করাচ্ছেন।

উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তাদের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করছি। সঠিকভাবে তদারকি না করার কারনে ঘটনা গুলো ঘটছে। উক্ত ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত দাবী করছি।

চিত্রে থাকতে পারে: ১ জন, কাছাকাছি