Main Menu

দিরাইয়ের মাদক সম্রাজ্ঞী, মক্ষীরানী  হেলেনা আক্তার খেলা গ্রেফতার

নিজস্ব প্রতিবেদক :

 

সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলার পৌররের আনোয়ার পুর নয়া হাটি থেকে ৫২ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট সহ অবশেষে দিরাইয়ে শীর্ষ মাদক সম্রাজ্ঞী, দেহব্যবসার হুতা, সুদের ব্যবসায়ী মক্ষীরানি হেলেনা আক্তার খেলা কে (৪৫) আটক করেছে থানা পুলিশ।

শনিবার দিবাগত রাত নয়টায় গোপন সংবাদে, এস আই মশিউর রহমানের নেতৃত্বে মহিলা পুলিশসহ অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

রোববার সকালে ধৃত মক্ষীরানি হেলেনা আক্তার খেলাকে দিরাই থানায় মাদক নিয়ন্ত্রন আইনে দায়েরকৃত মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে মাধ্যমে সুনামগঞ্জ জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

কে এই খেলা:- বাগবাড়ি গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা রউফ মিয়ার মেয়ে মাদক সম্রাজ্ঞী খেলা যৌবনে বেপরোয়া চলাফেরায় অতিষ্ঠ হয়ে সালিশ ব্যক্তিত্ব বাবা বিশের পূর্বেই তাকে বিয়ে দেন।

তারপর স্বামী বদল সহ অসামাজিক কার্যলাপের কারণে মুক্তিযোদ্ধা বাবা নিজের সম্মান রক্ষার্থে আর ঠাই দেননি নিজের আঙ্গিনায়। একেরপর এক স্বামী বদলের পর এখন ৪নং স্বামী ঘাগটিয়া গ্রামের মৃত উকিল আলির ছেলে আব্দুল হাফিজ এখনো বর্তমান আছেন। দিরাই বাস স্যান্ড এর ঠিক দক্ষিণ দিক পার্শে বাজারিয়া খালের সরকারি জায়গা অবৈধ দখল করে প্রায় দেড়যুগ ঘরবাড়ি তৈরি করে বসবাস করে আসছে। সেই থেকে বিভিন্ন এলাকার উঠতি বয়সের মেয়েদের মাধ্যমে দেহব্যবসা সহ বাসাতে মদ,জুয়ার আড্ডা ও মাদক সেবীদের আখড়াতে পরিণত করেছেন নিজ বাসাকে। নাম পরিচয় গোপনীয় রাখার শর্তে এক ব্যবসায়ী ও পার্শবর্তী এক বাসার মালিক বলেন, কতিপয় খারাপ ব্যক্তির কৃতকর্মের জন্য এই এলাকাকে তাফালিং পাড়া বলে লোকে ডাকে! এইপাড়ায় বসবাস করি বলেতে লজ্জা লাগে। ভয়ংকর মাদক সম্রাজ্ঞী খেলা উঠতি বয়সের বখাটে ও স্কুল কলেজের ছেলেদেরকে একদিকে পতিতা মেয়ে দিয়ে প্রলুব্ধ করছে, অপর দিকে মরণ নেশা ইয়াবা দিয়ে তাদেরকে নেশার ঘোরের মধ্যে রাখছে! ফলে পরিবার হারাচ্ছে তাদের উপার্জনশীল ছেলেকে। বারবার বিভিন্ন অজুহাতে অভিভাবক এর নিকট থেকে টাকা

নিতে যখন ব্যর্থ হয় তখন এইসব ছেলেরা জড়িয়ে পড়ে বিভিন্ন অপরাধে। বাড়ছে চুরি সহ বিভিন্ন অপরাধ মূলক কার্যক্রম। এমনকি আলোচিত মুন্নি হত্যাকারীও ছিল তাফালিং পাড়ার নিয়মিত মাদক সেবী জানিয়েছেন একব্যক্তি। দেহব্যবসা ও মাদকের পাশাপাশি সুদী ব্যবসার জন্যও কুখ্যাত হেলেনা আক্তার খেলা! একবার তার কাছে কেউ ঋণগ্রস্ত হলে ঋণ গ্রহীতাকে কৌশলে জড়িয়ে পেলে বিভিন্ন অসামাজিক কার্যকলাপে! সন্ধ্যার পর পারত পক্ষে ভদ্রলোকেরা তাফালিং পাড়া মাড়াতে ভয়পান দেহপসারিনী ও মাদকসেবীদের ভয়ে।

আর একাজে সহযোগিতা করছেন বাগবাড়ি সহ আশেপাশে এলাকার কিছু বখাটে ও রাজনীতির লেবাছ ধারী কিছু যুবনেতা! এবিষয়ে সম্পূর্ণ দেখভাল করছেন (বর্তমান) চতুর্থ স্বামী আব্দুল হাফিজ।

আজ মাদক সম্রাজ্ঞী ও মক্ষীরানিকে গ্রেফতারের মধ্যদিয়ে উঁচু পর্যায় হাত দিলেন দিরাই থানা পুলিশ।

 

এব্যাপারে দিরাই থানার এস,আই, মশিউর রহমান বলেন গোপন সংবাদে জানা গেছে দীর্ঘদিন ধরে দিরাই বাসষ্ট্যান্ড এলাকায় বসবাস করে হেলেনা আক্তার (খেলা) ইয়াবাসহ মাদক ব্যবসা করছে । গোপন খবরে অভিযান চালিয়ে রাত সাড়ে নয়টায় তাকে ৫২ পিস মরণ নেশা ইয়াবা ট্যাবলেটসহ আটক করে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে। এব্যাপারে দিরাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোস্তফা কামাল বলেন মাদকের বিরুদ্ধে আমরা জিরো টলারেন্স। কাউকে ছাড় দেওয়া হবেনা। দিরাই পৌরসভার ৭নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর বিশ্বজিত রায়  বাংলার দর্পণ ডটকম  কে বলেন আমার এলাকায় মহিলা মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতারের খবরে বিস্মিত আমি মাদকের বিরুদ্ধে পুলিশের একশন কে স্বাগত জানাই।






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *