Main Menu

১ম এইচএসসি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হলো নকল এবং প্রশ্নফাঁস মুক্ত | বাংলারদর্পন

নিউজ ডেস্ক :

প্রশ্ন ফাঁস মুক্ত সমাজ গঠনের প্রত্যয়ে সরকারের গৃহীত বহুমুখী পদক্ষেপ আশার আলো দেখতে শুরু করেছে। ২রা এপ্রিল থেকে অনুষ্ঠিত হওয়া এইচএসসি পরীক্ষা শুরু হয় প্রশ্ন ফাঁসের কোনো ঝুঁকি ছাড়াই। প্রশ্ন ফাঁস না হওয়ায় শিক্ষার্থী ও সচেতন অভিভাবকরা সাধুবাদ জানায় সরকারকে।

বিগত কয়েক বছর প্রশ্ন ফাঁসকারীদের দৌরাত্ম্য বেড়ে গেলে, এ বছর প্রশ্ন ফাঁসের শংকার মধ্য দিয়ে শুরু হয় এইচএসসি পরীক্ষা। প্রশ্ন ফাঁসের মতো অনৈতিক কর্মকাণ্ডকে রোধ করতে সরকার বিজি প্রেসের নিরাপত্তা বৃদ্ধি করে প্রেস থেকে প্রশ্ন ফাঁস বন্ধ করতে সচেষ্ট হয়। পরীক্ষা চলাকালীন সময়ে পরীক্ষাকেন্দ্রের ২০০ গজের মধ্যে দর্শনার্থীদের অবস্থানের উপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়। আর পরীক্ষার আগে অন্তত ৩০ মিনিট আগে পরীক্ষার্থীকে পরীক্ষাকেন্দ্রে প্রবেশের আদেশ জারি করে সরকার।

এই বছর প্রথবারের মতো পরীক্ষার মাত্র ২৫ মিনিট আগে প্রশ্নপত্রের সেট নির্ধারণ করার ফলে আগে থেকে কারোই জানা সম্ভব হয়নি কোন সেটে হতে যাচ্ছে পরীক্ষা। তাই প্রশ্ন ফাঁসকারী চক্র পরীক্ষার আগে কোন সুরাহাই করতে পারেনি কীভাবে প্রশ্ন ফাঁস করা যায়।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যাতে কেউ প্রশ্ন ফাঁস করতে না পারে তার জন্যে নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা কড়া নজরদারি রাখে ফেসবুক, ইউটিউব ও টুইটারে। ছাপাখানা থেকে পরীক্ষার কেন্দ্রে প্রশ্নপত্র পৌঁছানোতে বজায় রাখা হয় কঠোর গোপনীয়তা ও নিরাপত্তা।

সরকারের গৃহীত বাস্তবমুখী এসব পদক্ষেপ সমূহের কারণে প্রশ্নপত্র ফাঁসের কোনো হুমকি ছাড়াই ১ম এইচএসসি পরীক্ষা সম্পন্ন হয়। দেশবাসী আশা করছে সাফল্যের এই ধারাবাহিকতা বজায় থাকলে প্রশ্ন ফাঁসের ঝুঁকি ছাড়াই শেষ হবে এইচএসসি পরীক্ষা।






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *