Main Menu

সিঙ্গাপুরে অর্কিডের নাম শেখ হাসিনা, দেশবাসীর জন্য উৎসর্গ

 

নিউজ ডেস্ক

বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনের সিঙ্গাপুর সফর উপলক্ষে সিঙ্গাপুর বোটানিক গার্ডেনের একটা অর্কিডের নামকরণ করা হয়েছে তার নামে।

মঙ্গলবার এই অর্কিডটির নাম অবমুক্ত করা হয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই বিরল সম্মাননা ভাগ করে নিয়েছেন দেশবাসীর সঙ্গে, বলেছেন, এ ফুল তিনি উৎসর্গ করলেন দেশবাসীর উদ্দেশ্যে।

এর আগে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী সিঙ্গাপুর সফরে যাওয়ার আগেই শোণা যাচ্ছিল, সিঙ্গাপুর বোটানিক গার্ডেনে অর্কিড ফুলের একটি প্রজাতির নাম রাখা হয়েছে শেখ হাসিনা।

১৮৫৯ সালে প্রতিষ্ঠিত সিঙ্গাপুর বোটানিক্যাল গার্ডেন ইউনেস্কোর বিশ্ব ঐতিহ্যের একটি অংশ। এর অনেকগুলো অংশের অন্যতম একটি ন্যাশনাল অর্কিড গার্ডেন। এখানে প্রায় এক হাজার প্রজাতির অর্কিড সংরক্ষণ করা হয়েছে। রয়েছে দুই হাজার প্রজাতির হাইব্রিড অর্কিডও। এই হাইব্রিড অর্কিড তৈরির গবেষণা করা হয় ন্যাশনাল অর্কিড গার্ডেনে। এখানেই গবেষণা করা হয়েছে শেখ হাসিনা নামে অর্কিডটির।

গাঢ় বেগুনী রঙের “শেখ হাসিনা” অর্কিডটা সম্পর্কে গবেষকরা বলছেন এ অর্কিডটা দৃঢ়তা ও কোমলতার সঠিক মেলবন্ধন।

এ অর্কিডটি বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রকৃতিকে সঠিকভাবে প্রকাশ করে। তার দেশের মানুষের প্রতি সংবেদনশীলতা ও দক্ষ রাষ্ট্র পরিচালনার গুণের কথা যেন এক বাক্যে বলে দেয় এই অর্কিডটি।

ন্যাশনাল অর্কিড গার্ডেনের ভিআইপি গার্ডেনে শোভা পাচ্ছে অর্কিডের এই বিশেষ প্রজাতিটি। এর আগেও সিঙ্গাপুর তার আমন্ত্রিত রাষ্ট্রীয় অতিথিদের সম্মানে অর্কিডের নাম অবমুক্ত করেছে। ১৯৫৭ সাল থেকে সিঙ্গাপুর সরকার অতিথিদের আমন্ত্রণ জানানোর এ প্রথা শুরু করেন। গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের সম্মানে তৈরি হাইব্রিড জাতের অর্কিডগুলোকে ভিআইপি গার্ডেনে প্রদর্শন করা হয়।

২০১৭ সাল পর্যন্ত ন্যাশনাল অর্কিড গার্ডেনে ২০০টি এমন অর্কিড ছিল যাদের নাম কোনো রাষ্ট্রীয় গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তির নাম। এখানে আরও আছে, লৌহমানবী খ্যাত সাবেক ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী মার্গারেট থ্যাচারের অর্কিড। আছে ব্রিটিশ রাজপুত্র উইলিয়াম ও রাজবধূ ক্যাথরিনের নাম অনুসারে ‘উইলিয়াম-ক্যাথরিন’ অর্কিড। এসবের পাশে আজ থেকে শোভা পাবে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নামে, ‘শেখ হাসিনা’ অর্কিড






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *