Main Menu

গেলো বছরে বিমানে যাতায়াত করেছে ৪১০ কোটি যাত্রী -বাংলারদর্পন

ডেস্ক রিপোর্ট :

বিশ্বব্যাপী বিমানে যাতায়াতকারী মানুষের সংখ্যা বেড়েছে। আন্তর্জাতিক সিভিল এভিয়েশন সংস্থা গতকাল জানায়, স্বল্পমূল্যে বিমানে যাতায়াতের সুবিধা বেড়ে যাওয়ায় ২০১৬ সালের চেয়ে ২০১৭ সালে এয়ার ট্রাফিক রেকর্ড পরিমাণে বেড়ে গেছে। মানুষ তুলনামূলকভাবে এখন অনেক বেশি পরিমাণে বিমানে যাতায়াত করছে। খবর এএফপি ও চ্যানেলনিউজ এশিয়ার।

প্রাথমিক তথ্য যাচাই করে সংস্থাটি জানায়, ২০১৭ সালে রেকর্ডসংখ্যক ৪১০ কোটি যাত্রী বিশ্বব্যাপী বিমানে চড়েছে। যেটা ২০১৬ সাল থেকে ৭.১ শতাংশ বেশি।

সংস্থাটির সভাপতি ওলুমুআইয়া বানার্ড আলিউ বলেন, বিশ্বব্যাপী বিমান সংস্থাগুলোর মধ্যে নিরাপত্তা, সাবধানতা, দক্ষতা ও সচেতনতা বেড়ে যাওয়ায় আন্তর্জাতিকভাবে এয়ার ট্রাফিক বেড়ে গেছে।

সম্প্রতি এক সমীক্ষায় দেখা গেছে, ১৯৪৬ সালে প্লেন ক্র্যাশ প্রথম নথিবদ্ধ হওয়ার পর ২০১৭ সালকেই সবচেয়ে নিরাপদ বিমান ভ্রমণের বছর হিসেবে গণ্য করা হয়।

জাতিসংঘের সহযোগী এ সংগঠনটি আরো জানায়, গত বছর অল্পদামের বিমান ক্যারিয়ারগুলোতে আনুমানিক ১২০ কোটি যাত্রী চড়েছে।

রেভিনিউ প্যাসেঞ্জার কিলোমিটার(আরপিকে) এর মতে, ২০১৬ সালের চেয়ে ২০১৭ সালে মানুষ আট শতাংশ বেশি বিমান দূরত্ব অতিক্রম করেছে।

মধ্যপ্রাচ্য ছাড়া পৃথিবীর প্রত্যেকটি অঞ্চলেই এয়ার ট্রাফিকের সংখ্যা বেড়েছে। মধ্যপ্রাচ্যে তেলের দাম পড়ে যাওয়ায় এবং ডলারের মূল্য বেড়ে যাওয়ায় ২০১৬ সালের চেয়ে ২০১৭তে এয়ার ট্রাফিক কমে গেছে পাঁচ শতাংশ।

লাতিন আমেরিকা এবং ক্যারিবীয় বিমান সংস্থাগুলোর আরপিকে বেড়েছে ১০ শতাংশ যেখানে এশিয়া-প্যাসিফিক অঞ্চলে বেড়েছে ৯.৬ শতাংশ. আফ্রিকা ৭.৬ শতাংশ এবং উত্তর আমেরিকায় ৪.৯ শতাংশ হারে বেড়েছে বিমান যাত্রীর সংখ্যা।

আন্তর্জাতিক সিভিল এভিয়েশন সংস্থা আরো জানায়, গেলো বছর জেট ফুয়েলের দাম ২৫ শতাংশ বেড়ে গেলেও গত যুগের তুলনায় অনেক সহনীয় ছিল। ২০১৭ সাল শেষে বিশ্বব্যাপী বিমান সংস্থাগুলো আনুমানিক ৬ হাজার কোটি ডলার মুনাফা করেছে বলেও জানা যায়।






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *