Main Menu

নিশ্চিত মৃত্যুর হাত থেকে অল্পের জন্য বেঁচে গেলেন চিফ হুইপ ফিরোজ

 

নিউজ ডেস্ক :

পটুয়াখালীর বাউফলে চিফ হুইপ আ স ম ফিরোজকে হত্যা চেষ্টার সময় রাম দা সহ  মোঃ রনি নামের এক সন্ত্রাসীকে হাতেনাতে আটক করেছে পুলিশ।  বাউফল পৌরসভার ৮ নম্বর ওয়ার্ডে তাঁর বাড়ি। তাঁর কাছ থেকে একটি ধারালো রাম দা, গাঁজা, একটি অ্যান্ড্রয়েড মোবাইল ফোনসেট ও দুই হাজার টাকা পাওয়া যায়।

আজ বিকেল ৩টার দিকে বাউফল উপজেলা পরিষদের অডিটরিয়ামে বাউফল উপজেলা শিক্ষা কমিটির সভা চলছিল। শিক্ষা কমিটির প্রধান উপদেষ্টা হিসেবে সভায় উপস্থিত ছিলেন চিফ হুইপ আ স ম ফিরোজ। এ সময় রনি সভা কক্ষে চিফ হুইপের সঙ্গে কথা বলার জন্য কয়েকবার ঢোকার চেষ্টা করেন। পুলিশ তাকে বাধা দিলে তিনি ধাক্কা দিয়ে ভেতরে ঢুকে পড়েন। এরপর চিফ হুইপের কাছাকাছি যাওয়ার চেষ্টা করলে তাঁর নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা পুলিশ সদস্যরা তাঁকে আটক করে ফেলেন।

ঘটনার কিছুক্ষণ আগে ওই যুবককে মোটরসাইকেলে করে অডিটরিয়াম হলের কাছে পৌঁছে দেওয়া হয় বলে জানান কয়েকজন প্রত্যক্ষদর্শী। চিফ হুইপকে পরিকল্পিতভাবে হত্যার জন্যই ওই যুবককে এখানে পাঠানো হয়েছে।

৭ মার্চ উপলক্ষে র‍্যালি ও বিভিন্ন প্রোগ্রামের কারণে চিফ হুইপ মহোদয় আজ সারা দিনই নেতাকর্মী পরিবেষ্টিত ছিল। দুপুরের পর যখন সব নেতাকর্মী বাড়ি ফিরে যান ঠিক তখনই এই ঘটনা ঘটে। এটা অত্যন্ত গভীর একটি ষড়যন্ত্রের অংশ। কয়েকদিন আগে বিলবিলাস মাঠে ছাত্রলীগের কর্মিসভায় প্রকাশ্যে অবৈধ অস্ত্র প্রদর্শন, সম্প্রতি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সভায় হামলা চালিয়ে সভা পণ্ড করে দেওয়ার চেষ্টা এবং আজকের এই ঘটনা একই সূত্রে গাঁথা।’

শিক্ষা কমিটির ওই সভায় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বাউফল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোহাম্মাদ আবদুল্লাহ আল মাহমুদ জামান, বাউফল উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মো. রিয়াজুল হকসহ শিক্ষা কমিটির অন্য সদস্যরা।






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *