Main Menu

সুনামগঞ্জ পৌরসভার উপ-নির্বাচন-২৯ মার্চ,  মনোনয়ন প্রত্যাশীরা মাঠে

 

এস,এম,ওয়াহিদুল ইসলাম, সুনামগঞ্জ থেকেঃ-

সুনামগঞ্জ পৌরসভার মেয়র পদের উপনির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর পরই প্রার্থিতা নিয়ে আলোচনা শুরু হয়েছে। কারা প্রার্থী হবেন, কোন দলের মনোনয়ন কে পাবেন এ নিয়ে পাড়া-মহল্লা ও চায়ের দোকানে চলছে নানা আলোচনা। এরই মধ্যে আটজন নেতা মেয়র পদে লড়তে প্রচারণায় নেমে পড়েছেন। কেউকেউ নিজ এলাকাবাসী ও দলীয় নেতাকর্মী নিয়ে গণসংযোগ এবং মতবিনিময় করে জনপ্রিয়তা প্রমাণ করার মাধ্যমে নিজ দলীয় প্রার্থীতা নিশ্চিত করতে মরিয়া।

 

আওয়ামী লীগের জাতীয় কমিটির সদস্য, সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক পৌর মেয়র আয়ূব বখত জগলুল গত ১ ফেব্রুয়ারি হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে ঢাকায় মৃত্যুবরণ করেন। তিনি সুনামগঞ্জ পৌরসভার টানা দুবারের মেয়র ছিলেন।

 

মেয়র জগলুলের মৃত্যুতে শূন্য হওয়া মেয়র পদের উপনির্বাচন হবে ২৯ মার্চ। তফসিল অনুযায়ী মনোনয়নপত্র জমাদানের শেষ দিন ১ মার্চ; ৪ ও ৫ মার্চ বাছাই; ১২ মার্চ প্রত্যাহার; ১৩ মার্চ প্রতীক বরাদ্দ এবং ভোটগ্রহণ ২৯ মার্চ।

 

মেয়র পদে লড়তে এ পর্যন্ত প্রচার-প্রচারণায় নেমেছেন প্রয়াত আয়ূব বখত জগলুলের পরিবার থেকে তার ছোট ভাই নাদের বখ্ত, গত নির্বাচনের নিকটতম স্বতন্ত্র প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী হাছন রাজার প্রপৌত্র দেওয়ান গণিউল সালাদীন, সুনামগঞ্জ চেম্বার অব কমার্সের পরিচালক আওয়ামী লীগ নেতা শংকর চন্দ্র দাস, আওয়ামী লীগ নেতা ও জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক দেওয়ান ইমদাদ রেজা চৌধুরী, আওয়ামী লীগ নেতা সুনামগঞ্জ জেলা ও দায়রা আদালতের পিপি ড. অ্যাডভোকেট খায়রুল কবির রুমেন, জেলা যুবলীগের সদস্য সাবেক ভারপ্রাপ্ত মেয়র নুরুল ইসলাম বজলু, গত নির্বাচনে বিএনপির প্রার্থী পৌর ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ মো. শেরগুল আহমদ, সাবেক কাউন্সিলর ও জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের আহ্বায়ক আব্দুল্লাহ আল নোমান এবং বিএনপি নেতা দেওয়ান সাজাউর রাজা সুমন।

 

সরকার দলের মনোনয়ন প্রত্যাশী যারাঃ- জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকের কাছে নৌকা প্রতীক চেয়ে লিখিতভাবে আবেদন করেছেন নাদের বখ্ত, দেওয়ান ইমদাদ রেজা চৌধুরী, অ্যাডভোকেট খায়রুল কবির রুমেন, শংকর চন্দ্র দাস ও নুরুল ইসলাম বজলু।

 

আর বিএনপি থেকে মনোনয়নপ্রত্যাশী অধ্যক্ষ মো. শেরগুল আহমদ(গত নির্বাচনে ৩য় স্থান অধিকারী), আব্দুল্লাহ আল নোমান(সাবেক কাউন্সিলর) ও দেওয়ান সাজাউর রাজা (সুমন)

 

আর স্বতন্ত্র প্রার্থী দেওয়ান গণিউল সালাদীন।

 

সাজাউর রাজা বিশাল শো-ডাউনঃ- গতকাল বৃহস্পতিবার শহরে সমর্থকদের নিয়ে নির্বাচনী শো-ডাউন করেছেনদেওয়ান সাজাউর রাজা সুমন। তিনি শো-ডাউন উত্তর সমাবেশে বলেন, ‘ছাত্রজীবন থেকেই আমি রাজনীতি ও নানা সামাজিক কাজে যুক্ত আছি। সাধারণ মানুষের সঙ্গে থেকে তাদে সেবা করতে চাই। দলের নেতাদের সঙ্গে আলাপ করে সবুজ সংকেত পেয়ে মাঠে নেমেছি। আশাকরি, বি,এন,পি,র মনোনয়ন পাব।

 

নাদের বখ্ত প্রতিক্রিয়াঃ- আওয়ামীলীগ দলীয় মনোনয়নের আবেদন করে এক প্রতিক্রিয়াতে নাদের বখ্ত বলেন, ‘আমার বড় ভাই আয়ূব বখ্ত জগলুল সুনামগঞ্জ শহরবাসীর সেবায় নিয়োজিত ছিলেন। তিনি এভাবে চলে যাবেন আমরা কেউই ভাবতে পারিনি। আমি আওয়ামী লীগের মনোনয়ন নিয়ে নির্বাচন করতে চাই। সুনামগঞ্জবাসীর পাশে থাকতে চাই।’

 

দেওয়ান গণিউল সালাদীনের প্রতিক্রিয়াঃ সুনামগঞ্জ পৌরসভার উপনির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পরে গত নির্বাচনে দ্বিতীয় স্থান অধিকারী দেওয়ান গণিউল সালাদীন বলেন, ‘আমি গত নির্বাচনে প্রার্থী ছিলাম, এবার উপনির্বাচনেও প্রার্থী হব। সে লক্ষ্যে মাঠে গণসংযোগ করছি। সাধারণ ভোটাররা আমার সাথে আছেন।

 

উল্লেখ্য- ২০১৫ সালের ৩০ ডিসেম্বর সুনামগঞ্জ পৌরসভায় সর্বশেষ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ওই নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে মেয়র নির্বাচিত হন আয়ূব বখ্ত জগলুল। তিনি পান ১৪ হাজার ৮৪৫ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী দেওয়ান গণিউল সালাদীনের ভোট ছিল ১০ হাজার ৪৮৬। তৃতীয় স্থানে ছিলেন বিএনপির অধ্যক্ষ মো. শেরগুল আহমদ। তিনি পান ২ হাজার ৪১৪ ভোট।






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *