Main Menu

ওয়ার্ড সেক্রেটারি থেকে ৬ ধাপ পেরিয়ে উপজেলা সেক্রেটারি হয়েছেন মেধাবি ছাত্রলীগ নেতা ইফতেখার

আইয়ুব নবী ফরহাদ :

ইফতেখার হোসেন খন্দকার এর সাথে আমার সাথে পরিচয় ২০০৫ সাল থেকে ,তার আগ থেকে সে ছাত্রলীগ করতো, ইফতেখার একজন মাষ্টার্স পাস করা ছাত্রনেতা।

ছাত্রলীগে তার পদবী –

আমিরাবাদ ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ড ছাত্রলীগ সাধারন সম্পাদক ২০০৩ সাল।

সোনাগাজী সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের যুগ্ম আহবায়ক ২০০৬ সাল।

আমিরাবাদ ইউনিয়ন ছাত্রলীগের যুগ্ম আহবায়ক ২০১৪ সাল।

আমিরাবাদ ইউনিয়ন ছাত্রলীগ সভাপতি ২০১৬ সাল দায়ীত্ব পালন করেছেন।

২০১৭ থেকে বর্তমানে সোনাগাজী উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক এর দায়ীত্ব অাছেন ।

বিএনপির সরকারের সময়ে ছাত্রলীগ করার অপরাধে ইফতেখারের পরিবার ৩ বছর চট্রগ্রামে পালিয়ে ছিলো পরবর্তিতে সোনাপুরের বিএনপি নেতা শেখ আনোয়ার কে জমি বিক্রি করে ২৫ হাজার টাকা চাঁদা দিয়ে বাডিতে এসেছিলো।

আওয়ামীলীগের সকল আন্দোলন সংগ্রাম মামলা হামলায় ইফতেকার ছিলো প্রথমে।

 

 

ইফতেখার সবসময়  হাইব্রীড বিরোধী –

রাজনৈতিক কারনে এই ছাত্রনেতার পুরো পরিবার বার বার নির্যাতনের শিকার হতে হয়েছে। দলের সিদ্বান্ত ও  নীতি গত কারনে স্থানীয় সাংসদের সাথে তার বিরোধ থাকায়  দীর্ঘদিন গ্রামছাড়া ছিলেন।

ইফতেখার ফেনী গনমানুষের নেতা সাংসদ নিজাম উদ্দিন হাজারীর প্রশ্নে আফোস করেনি, করেনা এবং করবেনা।

গত ১২ তারিখ উপজেলা অা’লীগ কার্যালয়ের সামনে ছাত্রলীগের দুগ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনায় ইফতেখারকে জড়ানোর পায়তারা চলছে।

আপনারা কতটুকু উদ্দেশ্য প্রনোদীত হলে এই হামলার দায় ইফতেখারের উপর চাপানোর চেষ্টা করছেন তা ভিডিও ফুটেজ দেখলে বোঝা যায়।সোনাগাজী থানার সিসি ক্যামেরা দেখে বুঝা যায় রবিনের উপর হামলার সময় ইফতেখার হামলাকারিদের কে বার বার বাধা দিচ্ছে হামলাকারিদের মারধর করলো তারপরেও আপনারা বলছেন ইফতেখার হামলাকারী।

 

আপনাদের উদ্দেশ্য আমরা বুঝি এবং সবাই বোঝেন –

সোনাগাজী উপজেলার ছাত্ররাজনীতি যখন বহুরূপীতে ভরপুর তখন ইফতেখারের মতো সৈনিকদের পরিশ্রমের ফলে সোনাগাজীর ছাত্রলীগ আজ একটি সুসংগঠিত মুজিব আদর্শের চেতনায় ফেনী গনমানুষের নেতা নিজাম উদ্দিন হাজারি এমপির নেতৃত্বে এগিয়ে যাচ্ছে এবং সোনাগাজীর অনেক বহুরুপি নেতার অবস্থান নষ্ট হচ্ছে ঠিক তখনি একটি সাজানো নাটকে ইফতেখার কে জডিয়ে ফেনী জেলা ছাত্রলীগের সম্মান এবং সোনাগাজী উপজেলা ছাত্রলীগের বদনাম করার জন্য বহুরুপি নেতাদের ষড়যন্ত্র বাস্তবায়ন করার চেষ্টা করছেন।

আমি ফেনী জেলা ছাত্রলীগের প্রতি দৃষ্টি আকর্ষন করছি একটি সুষ্ঠ তদন্তের মাধ্যমে উদঘাটন করা হোক………

সবাই জানে উপজেলা ছাত্রলীগের প্রায় সকল ইউনিটের সভাপতি সম্পাদক রবিনের নিয়ন্ত্রনে,,,,হামলার সময় তাদের ভূমিকা কি ছিলো,এতগুলো লোক থাকতে রবিন কেন মার খেলো,,,,,?

সোনাগাজীর অসংখ্য নেতা থাকতে রবিনের মতো আপনাদের চোখে জনপ্রিয় একটা নেতা বার বার মার খায় কেন….?

 

নাকি ইফতেখারের মতো মুজিব আদর্শে বিশ্বাসী প্রিয়নেতা নিজাম উদ্দিন হাজারি এমপির একজন পরিক্ষীত সৈনিক কে বাধাগ্রস্ত করার জন্য সব সাজানো পরিকল্পনা ছিল,?

সুক্ষ মাথায় চিন্তা করুন সব বেরিয়ে আসবে।

এই সোনাগাজীতে এমনো কর্মী আপনাদের পাশে আছে যারা গতকাল বিএনপি করে আজকে আওয়ামীলীগ হয়েছে,এমনো লোক আছে যারা আজকে আপনার লোক ছিলো কালকে অন্যকারো হয়েছে হামলাকারী সবাই ইফতেখারের লোক এটা আদো সত্য নয়।

ইতিমধ্যে সোনাগাজী পুলিশ প্রধান অভিযুক্ত চৌধুরী কে গ্রেপ্তার করেছে, যান তাকে জিজ্ঞেস করে দেখেন সে কার লোক ?কার ইশারায় রবিনের উপর হামলা করেছে,,?সে যদি ইফতেখারের নাম বলে তাহলে তাকে দল থেকে বহিস্কার করা হোক…না হলে ইফতেখারদের বিরুদ্ধে ষডযন্ত্র কারী নোবেল পুরস্কারের উপযুক্ত অভিনেতাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হোক।

ইফতেখার এক নেতার নীতিতে বিশ্বাসী ইফতেখার যদি অন্যায় করে তাকে তার নেতা মারবে কাটবে জেলে দিবে আবার জেল থেকে বেরিয়ে সেই ইফতেখার বলবে আমার নেতা নিজাম উদ্দিন হাজারি আপনাদের মতো দিনেরাতে নেতা বদলাবেনা।

 

যারা ফেসবুকে অপপ্রচার করছেন তাদের উদ্দেশ্যে বলছি

যত করতে পারেন করেন তবে মনে রাখবেন ইফতেখারেরা হারেনা ওরা লড়াই করতে জানে এবং বিজয় চিনিয়ে আনতে জানে কারন ইফতেখারদের বুকে ধম আছে কারন সে একরুপী আপনাদের বুকে ধম নাই কারন আপনাদের একাধিক রুপ।

 

একটা কথা মনে রাখবেন ইফতেখার বানের জলে বেসে আসেনি শত বাধা মামলা হামলা নির্যাতন এমনকি পরিবারের উপর নির্মম নির্যাতন সহ্য করে আজকের সোনাগাজী উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক ইফতেখার হয়েছে।

সোনাগাজী আওয়ামীলীগ একটি সুন্দর পরিচ্ছন্ন সুসংগঠিত শক্তিশালী পরিবার দয়াকরে কেউ এই পরিবারের সম্মান নষ্ট করবেননা,বি-এনপি জামাতের বিরুদ্ধে সবাই রুখে দাঁড়ান।

মন্তব্য প্রতিবেদন,

লিখক – সাধারন সম্পাদক, অামিরাবাদ ইউনিয়ন যুবলীগ।

শেয়ার করুনঃ





Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *