Main Menu

সোনাগাজীতে একইদিনে ৩ মুক্তিযোদ্ধাকে গুলি করে হত্যা করেছিল রাজাকার শাহজাহান অাকবর

 

সৈয়দ মনির অাহমদ,  ৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, মঙ্গলবার ১৮:১০ >> ফেনীর সোনাগাজী থানার চর ছান্দিয়া ইউনিয়নের মহেশ্চর ও বাখরিয়া গ্রামে একই দিনে ৩ মুক্তিযোদ্ধাকে গুলি করে হত্যা করেছিল রাজাকার শাহজাহান অাকবর। ১৯৭১সালে মহান মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে ১৪ অক্টোবর বৃহস্পতিবার দুপুর ২টায় এ হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটে।

শাহজাহান অাকবর বাখরিয়া গ্রামের ধোপাদার বাড়ীর  অানার অাহম্মদ কেরানীর ছেলে। সে মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার নুরুল অাবছার হত্যা মামলার অাসামী।

সরজমিনে জানা যায়, ১৯৭১ সালের অক্টোবরের প্রথম সপ্তাহে মহেশ্চর গ্রামে সমবায় বাজার সংলগ্ন ব্রিজের পাশ্বে টেলিফোনের একটি খাম্বা ধ্বংস করেছিল মুক্তিযোদ্ধারা।

এতে ক্ষিপ্ত হয়ে পরদিন স্থানীয় রাজাকার শাহজাহান অাকবর তার সহযোগীদের নিয়ে মহেশ্চর ও বাখরিয়া গ্রামে ব্যাপক ধ্বংসযজ্ঞ চালায়।  ওইদিন দুপুরে থানা সংগ্রাম কমিটির অাহ্বায়ক অা.ক.ম ইসহাক এর ঘরসহ তার অাত্বীয়দের ঘরবাড়ীতে অগ্নিসংযোগ করে রাজাকাররা।

একই সময় অা.ক.ম ইসহাকের চাচাতো ভাই মুক্তিযোদ্ধা ফয়েজ অাহম্মদ, মুক্তিযোদ্ধা ওলি অাহম্মদ তার ভাই মুক্তিযোদ্ধা কামাল উদ্দিনকে বাড়ী থেকে তুলে নিয়ে গুলি করে হত্যা করেছিল রাজাকার শাহজাহান অাকবর ও সহযোগীরা।

ফয়েজ অাহম্মদ বাখরিয়া গ্রামের মাওলানা ছিদ্দিক সাহেবের বাড়ীর অানোয়ার অাহম্মদের ছেলে।

শহীদ মুক্তিযোদ্ধা ফয়েজ অাহম্মদ এর  ভাই হাফেজ অাহম্মদ জানান, মুক্তিযুদ্ধে অংশ নেয়ায় ফয়েজ অাহম্মদকে গুলি করে হত্যা করেছিল শাহজাহান অাকবর।  হত্যার পর তারা জানাজা পড়াতে দেননি, লাশটি পরিবারকে দেখতেও দেননি।

তার স্ত্রী  আয়েশা বেগম জানান, নৃশংসভাবে তার স্বামীকে  হত্যা করেছিল রাজাকাররা, তিনি মুক্তিযোদ্বা ফয়েজ অাহম্মদের স্বীকৃতি ও ওই হত্যাকান্ডের বিচার দাবী করেছেন।

 

ওলি উল্যাহ ও কামাল উদ্দিন মহেশ্চর গ্রামের বক্স আলী মাঝি বাড়ীর নুর অাহম্মদের ছেলে।

শহীদ মুক্তিযোদ্বা ওলি উল্যাহর স্ত্রী মানিকজান ও ছেলে আবদুস সোবহান জানান, যুদ্ধে অংশ নেয়ার দায়ে ওলি উল্যাহকে  শাহজাহান রাজাকার গুলি করে হত্যা করেছিল।  শাহজাহানের ভাই মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার নাছির উদ্দিন জমি ও অর্থ দেয়ার  অাশ্বাস দেয়ায় মামলা করেননি।  তারা ওই হত্যাকান্ডের বিচার চান। শহীদ কামাল উদ্দিনের স্ত্রী ছালেহা বেগম ও ছেলে আবু ইউছুফ জানান, ঘর থেকে ডেকে নিয়ে ওলি ও কামাল কে হত্যা করেছিল রাজাকার শাহজাহান।  স্বাধীনতার ৪৬ বছর পরও নুন্যতম স্বীকৃতি পায়নি তারা দুই ভাই।  শহীদ স্বীকৃতি ও হত্যাকান্ডের বিচার চেয়ে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন শহীদ পরিবার গুলো।

 

সাবেক থানা মুক্তিযোদ্বা কমান্ডার মফিজুল হক পাটোয়ারী জানান, সোনাগাজীর তালিকাভু্ক্ত  রাজাকার শাহজাহান অাকবর। মতিগঞ্জে মাকসুদুর রহমান মিলু,  ফয়েজ অাহম্মদ, কামালউদ্দিন,  ওলি অাহম্মদসহ  বহু মুক্তিযোদ্ধাকে প্রকাশ্যে খুন করেছিল।  তার ভাই নাছির  মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার হওয়ায়  সে বার বার  রক্ষা পেয়ে যায়। শাহজাহানকে দ্রুত বিচারের আওতায় অানার জোর দাবী জানান তিনি।






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *