Main Menu

স্ত্রীকে হত্যা করে পাকিস্তানি মন্ত্রীর আত্মহত্যা

 

অনলাইন ডেস্ক :

স্ত্রীকে হত্যার পর আত্মহত্যা করেছেন পাকিস্তানের প্রাদেশিক মন্ত্রী মির হাজার খান বিজারানি। পুলিশ জানিয়েছে, মন্ত্রী মির হাজার তাঁর স্ত্রী ফারিহা রাজ্জাককে তিনবার গুলি করে হত্যার পর একই অস্ত্রের গুলিতে আত্মহত্যা করেন।

গত বৃহস্পতিবার মন্ত্রীর করাচির বাসভবন থেকে দুজনকে মৃত উদ্ধার করা হয়। দাম্পত্য কলহ থেকে এ ঘটনা ঘটেছে বলে ধারণা করছে পুলিশ। গতকাল পাকিস্তানের ইংরেজি দৈনিক ডনের ওয়েবসাইটে এ তথ্য জানানো হয়।

পাকিস্তান পিপলস পার্টির (পিপিপি) নেতা মির হাজার খান বিজারানি সিন্ধু প্রদেশের পরিকল্পনা ও উন্নয়নমন্ত্রী ছিলেন। তাঁর স্ত্রী ফারিহা রাজ্জাক ছিলেন সাংবাদিক। তিনি ২০০২ থেকে ২০০৭ সাল পর্যন্ত পিপিপির প্রার্থী হিসেবে সিন্ধু অ্যাসেম্বলিতে সদস্য ছিলেন।

গতকাল দক্ষিণ করাচি জোনের পুলিশের উপমহাপরিদর্শক এক বিজ্ঞপ্তিতে জানান, ঘটনাস্থলে পাওয়া খালি বুলেটের খোসাগুলো একই অস্ত্রের। পারিপার্শ্বিক অবস্থা ও প্রাথমিক ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন থেকে ধারণা করা হচ্ছে, স্ত্রীকে গুলি করে হত্যার পর মির হাজার একই অস্ত্র দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। স্ত্রীকে তিনি তিনবার গুলি করেন।

পুলিশ জানায়, গত বৃহস্পতিবার বেলা আড়াইটায় মন্ত্রী ও তাঁর স্ত্রীর মরদেহ তাঁদের বাসভবনের দ্বিতীয় তলায় পড়ে রয়েছে জানিয়ে ফোন আসে পুলিশের কাছে। পুলিশ গিয়ে দেখতে পায়, শয়নকক্ষসংলগ্ন পড়ার ঘরের দরজার কাছে ফারিহা রাজ্জাকের মরদেহ পড়ে আছে। ওই কক্ষের সোফায় পড়ে আছে মন্ত্রীর মরদেহ। বাড়ির চার গৃহকর্মী ও দুই নিরাপত্তারক্ষীকে জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিশ জেনেছে, মন্ত্রী ও তাঁর স্ত্রীর মধ্যে কয়েক দিন ধরে ঝগড়া চলছিল। ঘটনার সময় বাড়ির দরজা ভেতর থেকে বন্ধ ছিল। পরে মন্ত্রীর ছেলে গৃহকর্মীদের নিয়ে দরজা ভেঙে ভেতরে প্রবেশ করেন।






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *