Main Menu

জোরারগঞ্জে ফেন্সিডিলসহ  ১ মাদক বিক্রেতাকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব

 

চট্টগ্রাম ব্যুরো : বর্তমানে আমাদের দেশের যুব সমাজের অধঃপতনের অন্যতম প্রধান কারণ মাদকাসক্তি। দেশের যুবসমাজের একটি বড় অংশ আশংকাজনকভাবে মাদক হিসেবে ব্যবহৃত ইয়াবা ট্যাবলেট, ফেন্সিডিল, দেশী বিদেশী মদসহ নানা ধরনের মাদকদ্রব্যের প্রতি আসক্ত হয়ে পড়ছে। মাদকের টাকা জোগাড়ের জন্য মাদকাসক্ত যুব সমাজ বিভিন্ন ধরনের অনৈতিক ও অপরাধমূলক কর্মকান্ডে জড়িয়ে পড়ছে। যুব সমাজকে মাদকের ভয়াল থাবা থেকে রক্ষার জন্য র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই দেশব্যাপী বিভিন্ন মাদকের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনা করে আসছে যা দেশের সর্বস্তরের জনসাধারন কর্তৃক ইতোমধ্যেই বিশেষভাবে প্রশংসিত হয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় র‌্যাব-৭, চট্টগ্রাম এ বৎসর ০১ জানুয়ারি ২০১৭ হতে অদ্য ৩০ জানুয়ারি ২০১৮ ইং তারিখ পর্যন্ত সর্বমোট ৩১৯ টি বিভিন্ন ধরনের অস্ত্রসহ মোট ৪৮ টি ম্যাগাজিন এবং ৩,৪৭৭ রাউন্ড বিভিন্ন ধরনের গুলি/কার্তুজ উদ্ধারের পাশাপাশি ৭৪ লক্ষ ৮১ হাজার ১২ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট এর পাশাপাশি ৩১ হাজার ৮৪৭ বোতল ফেন্সিডিল, ২,৬৫২ বোতল বিদেশী মদ ও বিয়ার, ০৫ লক্ষ ১২ হাজার ১৭৫ লিটার দেশীয় তৈরী মদ, ৭১৮ কেজি ২৮০ গ্রাম গাঁজা, ৩৬০ গ্রাম হেরোইন এবং ৪০০ গ্রাম আফিম উদ্ধার করেছে।

 

এরই ধারাবাহিকতায় র‌্যাব-৭, চট্টগ্রাম গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে জানতে পারে যে, কতিপয় মাদক ব্যবসায়ী একটি প্রাইভেটকার যোগে বিপুল পরিমাণ মাদকদ্রব্য নিয়ে কুমিল্লা হতে চট্টগ্রামের দিকে আসছে। উক্ত সংবাদের ভিত্তিতে অদ্য ৩০ জানুয়ারি ২০১৮ ইং তারিখ ১৭২০ ঘটিকার সময় স্কোয়াড্রন লিডার শাফায়াত জামিল ফাহিম, পিপিএম এর নেতৃত্বে র‌্যাবের একটি আভিযানিক দল চট্টগ্রাম জেলার জোরারগঞ্জ থানাধীন বারিয়ারহাট বাজারস্থ গ্রীন টাওয়ারের নীচে আল নুর হোটেলের সামনে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের উপর একটি বিশেষ চেকপোষ্ট স্থাপন করে গাড়ি তল্লাশী করতে থাকে। এ সময় কুমিল্লা হতে চট্টগ্রামগামী ০১টি প্রাইভেটকারটির গতিবিধি সন্দেহজনক হলে র‌্যাব সদস্যরা গাড়িটিকে থামানোর সংকেত দিলে গাড়িটি রাস্তার পাশে থামিয়ে ০১ জন লোক দৌড়ে পালানোর চেষ্টাকালে র‌্যাব সদস্যরা ধাওয়া করে আসামী মোঃ মশিউর রহমান মফিজ (২৮), পিতা-মৃত নেকবর আলী, গ্রাম- বদরপুর উকিল বাড়ী (কালিয়াজুড়ী), থানা-সদর, জেলা-কুমিল্লা’কে আটক করে। পরবর্তীতে উপস্থিতি সাক্ষীদের সম্মুখে আটককৃত আসামীকে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদে তার দেখানোমতে উক্ত প্রাইভেটকারটি (চট্ট-মেট্টো-গ-গ-৬১৫৭) তল্লাশী করে গাড়ির ভিতরে বস্তার মধ্যে সুকৌশলে লুকানো অবস্থায় ১০০০ বোতল ফেন্সিডিল উদ্ধারসহ উক্ত প্রাইভেটকারটি জব্দ করা হয়। উল্লেখ্য যে, আসামী উক্ত প্রাইভেটকারটি ব্যবহার করে দীর্ঘদিন যাবত দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে ফেন্সিডিল পাচার করে আসছে। উদ্ধারকৃত ফেন্সিডিলের আনুমানিক মূল্য ৮ লক্ষ টাকা।

 

গ্রেফতারকৃত আসামী এবং উদ্ধারকৃত মালামাল সংক্রান্তে পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের নিমিত্তে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইন ১৯৯০ এর ১৯(১) টেবিল এর ৩(খ)/২১ ধারা মোতাবেক চট্টগ্রাম জেলার জোরারগঞ্জ থানায় হস্তান্তর কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন।






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *