Main Menu

সোনাগাজীর বগাদানায় পল্লী বিদ্যুতের গ্রাহকরা দালাল মোস্তফার হাতে জিম্মি

 

ফেনী প্রতিনিধি : সোনাগাজী উপজেলার বগাদানা ইউনিয়নের লোকজন স্থানীয় দালাল ইলেক্ট্রিক মোস্তফা ও তার ছেলে লিটনের পল্লী বিদ্যুতের খুটি বানিজ্যে অতিষ্ট বগাদানা, আউরার খীল, আলাম পুর, কেরামতিয়া ও তাকিয়া বাজারের জনগন ।

সরেজমিনে অনুসন্ধান ও ভূক্তভোগী এলাকাবাসী জানায়, মোস্তফা ও তার ছেলে লিটন পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির নিয়োগ প্রাপ্ত ইলেক্ট্রিশিয়ান দাবী করিয়া নিরীহ ,দিনমজুর ও রিক্সা চালক সহ নিন্ম আয়ের জনসাধারন থেকে প্রতিটি বিদ্যুতের খুটি বাবদ =২৫,০০০/= ( পঁচিশ হাজার টাকা) এবং প্রতিটি মিটার সংযোগের জন্য =৪০০০/=(চার হাজার টাকা) করে হাতিয়ে নিচ্ছে । সরকার পল্লী গ্রামের প্রত্যন্ত অঞ্চলের মানুষের দৌড় ঘোরায় মাষ্টার প্ল্যানের মাধ্যমে বিনা পয়সায় বিদ্যুৎ বিতরনের ব্যবস্থা হাতে নিয়েছে । মাষ্টার প্ল্যান ২০১৪-১৫ইং ও মাষ্টার প্ল্যান ২০১৫-১৬ইং অনুযায়ী  প্রত্যন্ত অঞ্চলের প্রতিটি বাড়ি থেকে অবৈধভাবে ‘মোস্তফা’ ও তার ছেলে ‘লিটন’ প্রায় কোটি টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে  । এসব অবৈধ টাকা দিয়ে “মোস্তফা মঞ্জিল” নামে অট্রালিকা বাড়ি নির্মান করছে  এবং কাজীর হাট বাজারে ‘মোস্তফা ইলেক্ট্রিক’ নামে তার রয়েছে বিশাল দোকান, যেখানে বসে অবৈধ টাকা পয়সার লেনদেন হয় বলে জানাযায় ।

জানাযায় , এরই মধ্যে ভূক্তভোগী এলাকাবাসীর কেউ কেউ মোস্তফা ও তার ছেলের বিরুদ্ধে সোনাগাজী জোনাল অফিসে ডিজিএম এর নিকট লিখিত অভিযোগ করেও কোন প্রতিকার না পাইয়া ফেনী পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির চেয়ারম্যান এর নিকট লিখিত অভিযোগ করেন  ।  সোনাগাজী জোনাল অফিসের ডিজিএম কার্যালয়ের   কিছু অসাধু কর্মকর্তা এই মোস্তফার অনৈতিক কাজে  জডিত ।

অারো জানা যায়, শুধু মোস্তফা নয় সোনাগাজীর প্রত্যন্ত অঞ্চলে এরকম অনেক মোস্তফাকে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে দালাল হিসেবে ।

ভূক্তভোগীরা মোস্তফা সহ সোনাগাজীর প্রত্যন্ত অঞ্চলে দালাল চক্রের বিরুদ্ধে বিষয়টি তদন্ত মূলক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনে সংশ্লিস্ট দপ্তরের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

সোনাগাজী পল্লী বিদ্যুত অফিসের ডিজিএম মহিউদ্দিন মোশায়েদ উল্যাহ জানান, সমিতির নির্ধারিত পরিমান টাকা দেয়ার ব্যাপারে বার বার গ্রাহকদের অবগত করা হয়েছে।  উদ্বৃত্ত টাকা দিলে দায়ভার গ্রাহকের। তবে অভিযোগ পেলে খতিয়ে দেখা হবে।

পল্লী বিদ্যুতের ডিলার মোস্তফা অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন,  পল্লী বিদ্যুত সমিতির নির্ধারিত ফির বাহিরে নেয়ার সুযোগ নাই।






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *