Main Menu

বিশ্ব মানবতায় সেরা বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা > বাংলারদর্পন

 

নিজস্ব প্রতিবেদক : ০৮ জানুয়ারি ২০১৮। 

পোপ ফ্রান্সিস এবং বিল গেটসকে পিছনে ফেলে ২০১৭ সালে বিশ্বের সবচেয়ে মানবিক মানুষ মনোনীত হয়েছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্নের ডেকিন ইউনিভার্সিটির ‘সেন্টার ফর হিউম্যান লিডারশিপ’ তাঁকে ২০১৭ সালের `মানবতার চ্যাম্পিয়ন’ হিসেবে বিবেচনা করেছে। মানবতার দিক থেকে বিশ্বের দ্বিতীয় ব্যক্তি হলেন পোপ ফ্যান্সিস। তৃতীয় স্থানে আছেন মার্কিন ধনকুবের বিল গেটস। চতুর্থ স্থানের জন্য বিবেচিত হয়েছেন জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মেরকেল। আর তালিকার পঞ্চম স্থানে জায়গা করে নিয়েছেন চার হাজার ৪০০ কোটি মার্কিন ডলার সম্পদের মালিক ওয়ারেন বাফেট।

সেন্টার ফর হিউম্যান লিডারশিপের পার্টনার হলো সেভ দ্য চিলড্রেন, আইকেইএ ফাউন্ডেশন, কেয়ার, প্লান ইন্টারন্যাশনাল, রিলিফ ইন্টারন্যাশনাল, অক্সফাম, ওয়ার্ল্ড ভিশনসহ মোট ১৬ টি আন্তর্জাতিক উন্নয়ন ও মানবিক সংস্থা।

প্রতিষ্ঠানটি তার প্রতিবেদনে বলেছে, ‘বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রমাণ করেছেন যে নিপীড়িত মানুষের পাশে দাঁড়ানোর জন্য একটি বিশাল হৃদয়ই যথেষ্ট। বাংলাদেশ কোনো উন্নত রাষ্ট্র নয়, অফুরন্ত সম্পদও নেই দেশটির, তারপরও মিয়ানমারের রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিয়ে শেখ হাসিনা বিশ্ব মানবতার নেতৃত্ব নিয়েছেন।’ এটিকে সেন্টার ফর হিউম্যান লিডারশিপ একটি অভূতপূর্ব ঘটনা হিসেবে চিহ্নিত করে বলেছে, ‘এর মাধ্যমে প্রমাণ হয়েছে যে, আর্ত মানবতার সেবার জন্য শুধু টাকা নয় একটি মানবিক মনও প্রয়োজন, প্রয়োজন উদারতা, সাহস এবং মমত্ববোধ।‘ প্রতিষ্ঠানটি ২০১৭’র বিশ্ব মানবতা পরিস্থিতির প্রতিবেদনে রোহিঙ্গা ইস্যুকে বিদায়ী বছরের সবচেয়ে মানবিক বিপর্যয়ের ঘটনা হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে।

রিপোর্টে বলা হয়েছে এই মুহূর্তে বিশ্বে ১৩ কোটি ৫৭ লাখ মানুষের বিভিন্ন ধরনের ত্রাণ এবং সাহায্য প্রয়োজন। এই সহায়তা প্রদান করতে দুই হাজার ২৫০ কোটি মার্কিন ডলার প্রয়োজন হবে। বিশ্বব্যাপী শান্তি ও মানবতার নিরন্তর আহ্বান জানানোর জন্য শেখ হাসিনার পরই মানবিক মানুষ হয়েছেন খ্রিস্টীয় ধর্মগুরু পোপ ফ্রান্সিস। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ‘মানবতার সব ইস্যুতেই তাঁর অবস্থান দৃঢ় এবং স্পষ্ট।

সেন্টার ফর হিউম্যান লিডারশিপের মতে, বিশ্বে ২০১৭ সালে তৃতীয় মানবিক ব্যক্তি হলেন, বিল গেটস। বিশ্বের অন্যতম শীর্ষ ধনী এই ব্যক্তিটি বিল অ্যান্ড মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে শিক্ষা, স্বাস্থ্য বিশেষ করে শিশু ও মাতৃ স্বাস্থ্য এবং দারিদ্র বিমোচনে কাজ করেন।

সিরীয় শরণার্থীদের স্থান দিয়ে এবং শত প্রতিকূলতা আর রাজনৈতিক ঝুঁকির মুখেও তাদের থেকে মানবতার হাত সরিয়ে না নেওয়ার কারণে মানবতার চতুর্থ নেতা নির্বাচিত হয়েছেন অ্যাঙ্গেলা মেরকেল।

আর পঞ্চম স্থানে আছেন আরেক ধনকুবের ওয়ারেন বাফেট। যিনি তাঁর সম্পদের বেশিরভাগই দান করেন বিভিন্ন মানবিক চ্যারিটিতে।






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *