Main Menu

সোনাগাজীতে বালু মহালে অগ্নিসংযোগের ঘটনায় মামলা :অাটক ৪

ফেনী প্রতিনিধি : ফেনীর সোনাগাজীতে স্থানীয় সাংসদ হাজী রহিম উল্যাহর বাতিজা বেলাল হোসেনের বালু মহালে হামলা,ভাংচুর ও অগ্নি সংযোগের ঘটনায় শনিবার রাতে মামলা হয়েছে।

উপজেলা ছাত্রলীগের  সাধারন সম্পাদক ইফতেখার হোসেন কে প্রধান অাসামি করে ২২জনের নাম উল্লেখ করে এজাহার দিয়েছে বালু মহালের কর্মচারী চর সোনাপুর গ্রামের শাহজাহানের ছেলে অাবদুল হক। ঘটনার পর  জড়িত সন্দেহে অাটককৃত ৪জনই এজাহারভুক্ত অাসামি বলে জানিয়েছে পুলিশ।

প্রসঙ্গত, গত বৃহস্পতিবার রাতে উপজেলার মুহুরী প্রজেক্ট এলাকায় বেলাল এন্টারপ্রাইজের ইজারাকৃত বালু মহালে অগ্নিসংযোগের  ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, ফেনী -৩(সোনাগাজী-দাগনভূঁঞা) আসনের স্বতন্ত্র সাংসদ হাজী রহিম উল্যাহর ভাতিজা বেলালের আমিরাবাদ ইউনিয়নের সোনাপুর গ্রামস্থ মুহুরী প্রজেক্ট সংলগ্ন তার নিজস্ব বালু মহালে ওই দিন রাতে ১১টি সিএনজি চালিত অটোরিক্সা যোগে ৩০-৪০ জনের এক দল সশস্ত্র দুবৃর্ত্তরা এসে হামলা চালায়। এসময় তারা তিনটি এ্যাস্কেবেটর মেশিন ভাংচুর ও বালু সরবরাহের কাজে নিয়োজিত একটি পিক আপ গাড়ীতে অগ্নি সংযোগ করে। খবর পেয়ে সাংসদের লোকজন ঘটনাস্থলে যেতে চাইলে দুবৃর্ত্তরা কয়েকটি ককটেল বিস্ফোরনসহ বেশ কয়েক রাউন্ড ফাকা গুলি করে পালিয়ে যায়।

খবর পেয়ে সোনাগাজী মডেল থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে আলামত সংগ্রহ করে বিভিন্নস্থানে অভিযান চালায়। পরে পুলিশ সোনাগাজী- ফেনী সড়কের ডাক বাংলা এলাকায় তল্লাশি চালিয়ে ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে আরিফুল ইসলাম(১৯),দলিলুর রহমান(১৯), নেজাম উদ্দিন(১৯),ওয়াসকুরুনী সুজন(২১)কে আটক করে। তারা সবাই সোনাগাজী বিভিন্ন গ্রামের বাসিন্দা বলে পুলিশ জানায়। এব্যাপারে সাংসদ রহিম উল্যাহ  বলেন, স্থানীয় সন্ত্রাসী আইয়ুব নবী ফরহাদ ও ইফতেখারুল আলমের নেতৃত্বে সন্ত্রাসীরা আমার বালু মহালে হামলা ভাংচর ও অগ্নিসংযোগ করে এক কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি করেছে।

সোনাগাজী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) মো.হুমায়ুন কবির  বলেন, অভিযোগ ,ঘটনার সঙ্গে জড়িত এজাহারভুক্ত চার জনকে আটক করা হয়েছে। বাকীদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যহত অাছে।






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *