Main Menu

বাংলাদেশী শ্রমীকদের সম্মান করুন

মোঃস্বপন মজুমদার বাহরাইন :

আমি ফেরত চাই তাদের সম্মান যেই ৯৫% প্রবাসী বাঙালির শ্রমে বাহরাইনের বিল্ডিং রাস্তাঘাট সবকিছু তৈরি হচ্ছে।
বাহরাইনে বাংলাদেশ দূতাবাস প্রধান মেজর জেনারেল কে এম মুমিনুর রহমান।
আওয়ামীলীগ বাহরাইন শাখা আয়োজিত ক্যাপ্টেন এ.বি তাজুল ইসলাম এমপি -র সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন মান্যবর রাষ্ট্রদূত।
তিনি বলেন, যতক্ষণ পর্যন্ত আমরা এই বাহরাইনে নিজেদেরকে নিজেরা সম্মানিত করতে না পারবো ততক্ষণ অন্য কেউ করবেনা।
তিনি বলেন, আমি ফেরত চাই যেই বাংলাদেশীরা ৯৫ % কনস্ট্রাকশন করছে, এখানে এতো উচু বিল্ডিং তৈরি করছে, রাস্তাঘাট তৈরী করছে, এখানে রাস্তাঘাট পরিস্কার থাকতোনা সমস্ত কাজ করছে বাংলাদেশীরা, এখানে সমস্ত লোক খেতো পারতোনা যদি আমাদের লোক সবজ্বি চাষ না করতো। আমরা যতই ছোট কাজ করিনা কেনো
সম্মানটা চাই অন্তত এদেশের কাছ থেকে। এবং সে অনুযায়ী আমরা কাজ করবো। আর যদি তারা সম্মান না করে তাহলে কিভাবে সম্মান আদায় করতে হয় তা আমার জানা আছে।
তিনি বলেন আপনারা মনে রাখতে হবে আমি যা করি, যা সিদ্ধান্ত নেই, নিশ্চয়ই এটা আমার নিজেস্ব কোনো সিদ্ধান্ত নয়, আমি নেই আমার দেশের স্বার্থে, আমার জনগণের স্বার্থে, আর জনগণ বাংলাদেশের জনগণ না, এখানে বাহরাইনে অবস্থানরত প্রবাসী বাংলাদেশী জনগণ।
এমন কোনো সিদ্ধান্ত আমি নেই না
যা ক্ষতিগ্রস্ত করে নিজেদেরকে। আমরা আশা করছি আগামী ছয় মাস হয়তো নিয়ন্ত্রণ করতে হবে যথেষ্ট পরিমাণ আমাকে, কিছু নিয়মকানুন ঠিক করতে হবে। আমি আশা করি এর পর থেকে বাহরাইন সরকার এবং এদেশের জনগণ(বাহরাইনীরা ) আমাদেরকে দেখলে সম্মান করবে ইনশাআল্লাহ।

তিনি বলেন, বাংলাদেশী ব্যবসায়ীদের নিয়ে শিগগিরই নির্দলীয় একটি শক্তিশালী ব্যবসায়ী সংগঠন করতে যাচ্ছি, যাতে করে আমার দেশের পন্য এদেশে পরিচিতি লাভ করে এবং বাংলাদেশের সুনাম বৃদ্ধি করে অর্থনৈতিকভাবে সাবলীল হওয়া যায় । এ সময় তিনি সবাইকে ঐক্যের কথা বলেন, বিভক্তভাবে ছড়িয়ে ছিটিয়ে না থেকে একসঙ্গে কাজ করার পরামর্শ দেন, একসঙ্গে না থাকলে পরে দুর্বল হয়ে পরবেন ক্ষতিগ্রস্ত হবেন আপনারা, তিনি বলেন এটা পবিত্র কোরআনের কথা।
এসময় পূর্ববর্তী এক বক্তার বক্তব্যের প্রসঙ্গে তিনি বলেন, এ পর্যন্ত ৭০ থেকে ৮০ হাজার বাঙালির সাথে আমি নিজে কথা বলেছি, সকলের সমস্যা শুনেছি, এবং সমাধান করার চেষ্টা করেছি।যা অতীতে কেউ করেনি তা আমি করেছি।
যেই দূতাবাসের দরজা সাধারণ জনগণের জন্য বন্ধ ছিলো তা আমি খোলে দিয়েছি। সাধারণ জনগণের স্বার্থে, প্রবাসী ভোক্তভোগিদের সমস্যা সমাধানের স্বার্থে আপনারা যারা ফজলুল করিম সাহেব, শাহ জালালদের মত অনেককে কতবার ফেরত আসতে হয়েছে কথা না বলে। কারণ আমার সময়টুকু সাধারণ ঐ কর্মস্থল থেকে যারা এসেছেন তাদের জন্য দিয়েছি।
প্রসঙ্গত বিগত দূতাবাস প্রধানের সময় কালে ৬৪ জন ব্লাকলিষ্ট ব্যক্তিদের আত্ম সমর্থন সুযোগ আদায়ের বিভিন্ন প্রচেষ্টার কথাও তুলে ধরেন মান্যবর রাষ্ট্রদূত।
তিনি বলেন আপনাদের আবেগ থাকতেই পারে, আপনারা বলবেন, আমি শুনবো কিন্তু আদবের সঙ্গে। মনে রাখতে হবে দূতাবাস কোনো ব্যক্তি নয় এটা একটা ইনস্টিটিউট একটা প্রতিষ্ঠান,
এদেশের রাজাও যখন কথা বলে তখন Your Excellency সম্বোধন করে কথা বলে because it’s constitution.
আপনারা যখন মিথ্যার সাথে হাততালি দিচ্ছিলেন তখনই মনে হচ্ছিলো আপনারা কেমন।
এ সময় তিনি পবিত্র কোরআন এর সূরা নিসার ১৩৫ নম্বর আয়াতের উদৃতি দিয়ে বলেন, যখন আপনারা স্বাক্ষ দেন তখন আপনাকে সঠিক স্বাক্ষ দিতে হবে যদিও আপনার বিরুদ্ধে যায়,যদিও আপনার পিতামাতার বিরুদ্ধে যায়,যদিও আপনার আত্মীয় পরিজনের বিরুদ্ধে যায় তবুও আপনাকে সত্য স্বাক্ষ দিতে হবে।
এবং ১৬৮ আয়াতে বলা আছে, যে কুফরি করে অর্থাৎ আল্লাহ্ তাওয়ালার হুকুম তামিল করেনা এবং সত্য চাপা রাখে তাকে কোনো দিন আল্লাহ্ তাওয়ালা সঠিক পথে পরিচালিত করবেন না। ১৬৯ আয়াতে বলা আছে চিরকাল তাদের অবস্থান হবে জাহান্নাম।
দেশের বদনাম হয় এমন কাজ না করতে সকলের প্রতি আহবান জানান।
অনুষ্ঠানে আওয়ামীলীগের সভাপতি মোঃ শাহ জালাল এর সভাপতিত্বে এ সময় উপস্থিত ছিলেন, সংবর্ধিত অতিথি ক্যাপ্টেন এ.বি তাজুল ইসলাম এমপি, যুবলীগের যুগ্ম সম্পাদক সমবায় ব্যাংকের চেয়ারম্যান ও বাফুফের সহ সভাপতি মহিউদ্দীন আহমেদ মহি, সমাজের সভাপতি ফজলুল করিম বাবলু, সাধারণ সম্পাদক ইমাম হোসেন বাবুল, আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি শেখ বজলুর রহমান সহ যুবলীগ, শ্রমিক লীগ, সেচ্ছাসেবক লীগ ও বঙ্গবন্ধু পরিষদ সহ প্রবাসী বাঙালিরা।






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *