তরুণরা কর্মসংস্থান সৃষ্টি করবে – ফেনীতে প্রতিমন্ত্রী পলক

ফেনী :
ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেছেন, বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলার আধুনিক রূপ শেখ হাসিনার স্মার্ট বাংলাদেশ। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর তথ্যপ্রযুক্তি উপদেষ্টা সজিব ওয়াজেদ জয় স্মার্ট বাংলাদেশের চারটি স্তম্ভ আমাদের জন্য নির্ধারিত করেছেন।

সেগুলো হল স্মার্ট নাগরিক, স্মার্ট অর্থনীতি, স্মার্ট সরকার ও বৈষম্যহীন সমাজ। তরুনদের সবাইকে চাকরি দেওয়া সম্ভব নয়। সবাই ইউরোপ, মধ্যপ্রাচ্যে চলে যেতে পারবে না। তাহলে নিজের গ্রামে বসে আর্থিক সামলম্বী হওয়ার ক্ষেত্র তৈরি করতে হবে।

বুধবার দুপুরে ফেনী পিটিআই মাঠে জেলা প্রশাসন এবং তথ্য ও প্রযুক্তি অধিদপ্তরের আয়োজনে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের অধীনে ‘হার পাওয়ার’ প্রকল্পের আওতায় ল্যাপটপ বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।

প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, ফেনী জেলায় ১১৪টি শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাব আছে, আরও ১০০ ল্যাব তৈরি করা হবে। বিশ্বজয়ের হাতিয়ার একটি স্মার্ট ল্যাপটপ।

প্রতিবছর ২০-২৫ লাখ তরুণ-তরুণী কর্মক্ষেত্রে প্রবেশ করছে। প্রধানমন্ত্রীর অসংখ্য সিদ্ধান্তে নারীর ক্ষমতায়ন, কর্মক্ষেত্র তৈরি হয়েছে। ২০০৮ সালে ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ ছিলো না। এখন শতভাগ বিদ্যুতের আলোয় আলোকিত।

ফেনী জেলা প্রশাসক শাহীনা আক্তারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন, ফেনী-১ আসনের এমপি আলাউদ্দিন আহম্মদ চৌধুরী, ফেনী-২ আসনের এমপি নিজাম উদ্দিন হাজারী, পুলিশ সুপার জাকির হাসান, ই-কমার্সের চেয়ারম্যান শমী কায়সার।

কোডার্স্টাস্ট বাংলাদেশের বিভাগীয় প্রধান, (প্রকল্প ও যোগাযোগ) কাজী তারানার সঞ্চালনায় স্বাগত বক্তব্য দেন তথ্য ও প্রযুক্তি অধিদপ্তর মহাপরিচালক মোস্তফা কামাল।

হার পাওয়ার প্রকল্পের আওতায় ফেনী, চাঁদপুর ও লক্ষীপুর ৭৪৫ প্রশিক্ষণার্থীকে ল্যাপটপ প্রদান করা হয়। এরপর প্রতিমন্ত্রী পলক পরশুরাম উপজেলার আলাউদ্দিন আহমেদ নাসিম কলেজ সংলগ্ন ‘শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং ও ইনকিউবেশন সেন্টার’ স্থাপনের নির্ধারিত জায়গা পরিদর্শন করবেন।

জানাযায়, উপজেলা পর্যায়ে উইমেন আইটি সার্ভিস প্রোভাইডার কোর্সে ৬ মাসব্যাপী ৮০ জন নারীকে প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে। তারা প্রশিক্ষণ শেষে অনলাইন ও অফলাইনে সাবলম্বী হওয়ার সুযোগ পাবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *