Main Menu

ঝালকাঠিতে স্কুল ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচন স্থগিতের প্রতিবাদে মানববন্ধন

রিয়াজুল ইসলাম বাচ্চু, ঝালকাঠি :
ঝালকাঠির পোনাবালিয়া ইউনিয়নের কে এ খান মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির নির্ধারিত তারিখে নির্বাচন স্থগিতের প্রতিবাদে মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করা হয়েছে।
রবিবার (২৪ অক্টোবর) সকালে বিদ্যালয়ের সামনের সড়কে ঘন্টাব্যাপী এ মানববন্ধন কর্মসূচির আয়োজন করে ওই বিদ্যালয়ের প্রাক্তন শিক্ষার্থী, অভিভাবক ও এলাকাবাসী।

মানববন্ধন চলাকালে বক্তব্য দেন, ঝালকাঠি সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মো. আবু বকর সিকদার, ঢাকা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ সভাপতি মো. তাইবুর রহমান, স্থানীয় সুলতান হোসেন খান ও মোশাররফ মোল্লাসহ আরো অনেকে। বক্তারা বলেন, আজ ২৪ অক্টোবর বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল।

কিন্তু একটি চক্র তাদের স্বার্থ হাসিলের জন্য আদালতে মামলা-মোকদ্দমা করে নির্বাচন স্থগিত করিয়েছে। বক্তারা বিধি মোতাবেক নির্বাচনের মাধ্যমে বিদ্যালয়ের পূর্র্ণাঙ্গ ম্যানেজিং কমিটি গঠনে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন। অন্যথায় তারা আরও কঠোর আন্দোলনের হুশিয়ারি দেন। মানববন্ধনে বিদ্যালয়টির প্রাক্তন শিক্ষার্থী, অভিভাবক ও এলাকার কয়েক শতাধিক মানুষ অংশ নেন।

এ ব্যাপারে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো: মাহতাব হোসেন জানান, “আদালতে নির্বাচন নিয়ে ঝালকাঠি জজকোর্ট আদালতে একটি মামলা দায়ের হয়েছে। মামলাটি দায়ের করেন পোনাবালিয়া ইউনিয়নের নুরুল্লাপুর গ্রামের নিবাসী ওই বিদ্যালয়ের অভিভাবক সদস্য প্রার্থী (ভোটারনং-১৫৫) সুমন কুমার চন্দ্র।এই মামলার কারনে প্রিজাইডিং অফিসার ও উপজেলা শিক্ষাকর্মকর্তা মো: আমিনুল ইসলাম নির্বাচন সাময়িকভাবে স্থগিত করেছেন।”

প্রিজাইডিং অফিসার ও উপজেলা শিক্ষাকর্মকর্তা মো: আমিনুল ইসলাম জানান, “পোনাবালিয়া ইউনিয়নের নুরুল্লাপুর গ্রামের নিবাসী ওই বিদ্যালয়ের অভিভাবক সদস্য প্রার্থী (ভোটারনং-১৫৫) সুমন কুমার চন্দ্র ঝালকাঠি জজ আদালতে ভোটার তালিকা ত্রুটিপূর্ণ, বেআইনী,ভাক্ত, যোগসাজসী মর্মে অভিযোগ এনে মামলা করেছেন। মামলা দায়ের ও আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি অবনতি হতে পারে আশংকা থাকায় বিজ্ঞ আইনজীবির সাথে পরামর্শ করে নির্বাচন স্থগিত করা হয়েছে।”

নুরুল্লাপুর গ্রামের নিবাসী ঢাকা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ সভাপতি মো. তাইবুর রহমান জানান, আমরা নির্বাচনী তফসিল মোতাবেক প্রচারনা চালাচ্ছি, তখন হঠাৎ শুনতে পাই ১৮ অক্টোবর ঝালকাঠি জজ কোর্ট আদালতে সুমন কুমার চন্দ্র নামে প্রতিদ্ব›িদ্ধ এক প্রার্থী মামলা দায়ের করেছে। নির্বাচনে আমাদের জনপ্রিয়তা দেখে তারা পরাজয় বরন করবে বুজতে পেরে নির্বাচন বন্ধ করার জন্যে পরিকল্পিতভাবে এ মামলা দায়ের করেছে। মামলায় প্রধান শিক্ষক ও সম্পাদক, সভাপতি ম্যানেজিং কমিটি, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার, জেলা শিক্ষা অফিসার, বরিশাল শিক্ষা বোর্ডের বিদ্যালয় পরিদর্শক, চেয়ারম্যান মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড কে বাদী করা হয়। কিন্তু আদালত কোন স্টে অর্ডার না দেয়া সত্ত্বেও প্রিজাইডিং অফিসার আইনজীবির পরামর্শে নির্বাচন অযৌক্তিকভাবে স্থগিত করেন। তিনি আরো বলেন, ভোটার তালিকায় কোন অনিয়ম বা অসঙ্গতি থাকে তাহলে তা সংশোধন করে অবিলম্বে নির্বাচন দেয়ার জন্যে অনুরোধ করছি। এটা এলাকাবাসির প্রাপনের দাবী।

ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি রাকিব বিন বাসার বলেন, প্রিজাইডিং অফিসার নির্বাচন স্থগিত করেছেন। এখানে আমাদের কোন হাত নাই। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, কি কারনে নির্বাচন স্থগিত করেছেন তা প্রিজাইডিং অফিসার ভালো বলতে পারবেন। তবে শুনেছি একজন প্রতিদ্বন্ধি প্রার্থী মারা দায়ের করায় নির্বাচন স্থগিত করা হয়েছে।
ঝালকাঠি সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, সাবেকুন্নাহার মুঠোফোনে জানান, আমি একটি মিটিং আছি, পরে কথা বলবো #

শেয়ার করুনঃ





Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *