Main Menu

ফেনীতে মন্দিরে হামলা : বিচার বিভাগীয় তদন্ত ও দোষীদের দ্রুত বিচার দাবি

ফেনী :
সাম্প্রদায়িক সহিংসতার প্রতিবাদে ফেনীর কেন্দ্রিয় শহীদ মিনারে গণঅনশন ও বিক্ষোভ সমাবেশ করে বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রীষ্টান ঐক্য পরিষদ।

শনিবার ভোর ৬টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত কেন্দ্রিয় কর্মসূচির অংশ হিসাবে ফেনী জেলা কমিটির ডাকে হাজার হাজার সংখ্যালঘু সম্প্রদায় এ কর্মসূচিতে যোগদেন।

গণঅনশন ও বিক্ষোভ সমাবেশের সমর্থন জানিয়ে বক্তব্য রাখেন সচেতন নাগরিক সমাজের আহবায়ক সিনিয়র আইনজীবী অ্যডভোকেট বীর মুক্তিযোদ্ধা গিয়াস উদ্দিন আহমেদ নান্নু, ফেনী জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি নুর হোসেন, বাংলাদেশ সমাজতান্ত্রিক দলের সভাপতি অ্যাডভোকেট এ,কে,এম ফয়জুল হক মিল্কী, ফেনী জেলা খেলাঘর ও বামাস সভাপতি অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর আলম নান্টু, ফেনী সময় পত্রিকার সম্পাদক মোঃ শাহদাত হোসাইন, চ্যানেল২৪ প্রতিনিধি দিলদার হোসেন স্বপন, চ্যানেল আই প্রতিনিধি রবিউল হক রবী, ফেনী রিপোর্টার্স ইউনিটির সাধার সম্পাদক আলী হায়দার মানিক।

বক্তারা বলেন দেশের বিভিন্ন স্থানে মন্দিরে হামলা প্রতিমা ভাঙচুর, এবং হিন্দুদের বাড়িঘর, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান হামলা লুটপাট ও আগুন দেওয়া ঘটনায় জড়িত ব্যক্তিদের দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে বিচারের দাবি জানিয়েছেন। একই সাথে দেশে সংখ্যালঘুদের নিরাপত্তা সুরক্ষা করতে হিন্দু সুরক্ষা আইন ও দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল গঠনের দাবী তুলেছেন।

ফেনী জেলা হিন্দু বৌদ্ধ খ্রীষ্টান ঐক্য পরিষদের সভাপতি শুকদেব নাথ তপনের সভাপতিত্বে সমাবেশে আরও বক্তব্য রাখেন সাংবাদিক যতন মজুমদার, অ্যাডভোকেট সমির চন্ডকর, মাষ্টার হীরালাল চক্রবর্তী, অ্যাডভোকেট রশিক শেখর,অমল বিশ্বাস, তুষার কান্তি বসাক, সুভ্রত সাহা, সুনিল রায়,পরিমল রায়, বঙ্গবন্ধু চিকিৎসক পরিষদের সাধারন সম্পাদক ডাক্তার বিমল দাস, গৌরাঙ্গ ভৌমিক, সরোজ চক্রবর্তী ,সম্ভু বৈষ্মব, মরন মজুমদার ও অজিত রায় প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। বক্তারা বলেন দ্রুত সময়ের মধ্যে এ সকল ঘটনায় দোষীদের গ্রেফতার কারে শাস্তি নিশ্চিত এবং তদন্ত প্রতিবেদন জনসম্মুখে প্রকাশেরও দাবি জানায় সংগঠনটি।

সাম্প্রদায়িক সহিংসতা তদন্তে সুপ্রিম কোর্টের অবসরপ্রাপ্ত একজন বিচারপতির নেতৃত্বে বিচার বিভাগীয় তদন্ত কমিটি গঠন করতে হবে। সাম্প্রদায়িক হামলার ঘটনায় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের যদি গাফিলতি থাকে, তা তদন্ত করে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নিতে হবে।

গণঅনশন শেষে শহীদ মিনারের সামনে থেকে বিক্ষোভ সমাবেশে করেন ফেনী জেলা হিন্দু বৌদ্ধ খৃষ্ট্রান ঐক্যপরিষদ। বক্তরা হামলায় ক্ষতিগ্রস্ত সব মন্দির ও বাড়িঘর সরকারি খরচে পুনর্র্নিমাণ এবং নিহত প্রত্যেকের পরিবারকে ৫০ লাখ ও আহত ব্যক্তিদের ২০ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দেওয়ার দাবী করা হয়।

একাধিক বক্তা বলেন প্রশাসনের সদিচ্ছা থাকলে এসব ঘটনা এড়ানো যেত। প্রশাসনে এখনো ঘাপটি মেরে আছে মৌলবাদী চক্র ও খন্দকার মোস্তাকের মত কর্মকর্তারা।

এ ছাড়া ধর্মের নামে সাম্প্রদায়িকতা বন্ধের কার্যকরী উদ্যোগের দাবী করা হয়। তারা বলেন মুক্তিযুদ্ধের সরকারকে অস্থিতিশীল করতে হিন্দুদের ওপর এসব হামলা করা হয়েছে।

বক্তারা আরও বলেন, যারা উসকানি দিচ্ছে, তাদের বিরুদ্ধে দ্রুত আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানাই। পাশাপাশি সাম্প্রদায়িক হামলা ও সহিংসতার সময় যেসব জনপ্রতিনিধি এগিয়ে আসেননি, তাঁদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রীর প্রতি তিনি আহ্বান জানান।

এ ছাড়াও বাহাত্তরের সংবিধান পুনঃপ্রতিষ্ঠা এবং একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে দেওয়া প্রতিশ্রুতি সংখ্যালঘু সুরক্ষা আইন প্রণয়ন, সংখ্যালঘু কমিশন গঠনের দ্রুত বাস্তবায়ন দাবি করেন এই নেতা।

শেয়ার করুনঃ





Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *