Main Menu

লিসবনে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ঈদুল ফিতর উদযাপন

জহুর উল হক :
পর্তুগালের রাজধানী লিসবনে যথাযথ ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্য ও ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে পর্তুগাল সরকারের স্বাস্থ্য বিধি ও সামাজিক দূরত্ব মেনে মুসলমানদের বৃহত্তম ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতর উদযাপিত হয়েছে।

লিসবনের মাতৃমনিজ পার্কে, বায়তুল মোকারম বাংলাদেশ ইসলামিক সেন্টার ও মাতৃম মনিজ জামে মসজিদের যৌথ উদ্দ্যোগে বিশাল ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হয়। বাংলাদেশিদের দ্বারা পরিচালিত এটিই পর্তুগালের সবচেয়ে বড় ঈদ জামাত । এছাড়া লিসবনের সেন্ট্রাল জামে মসজিদে দুইটি, ওডিভিলাস ঈদগাঁও একটি, দামাইয়া খেলার মাঠে দুইটি, আমাদোরা, রিবাইরালো বাংলাদেশী জামে মসজিদ, লংগাইরা-আলমোগরাভ, আলগ্রাবে বাঙ্গালী অধ্যুষিত এলাকায় ফারোর স্হানীয় স্টেডিয়াম, কাসকাইস, ওডিমিয়ারা খেলার মাঠে একটি করে, বন্দর নগরী ও বাণিজ্যিক শহর পোর্তোর কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে দুইটি, মিনদেলো পাইকারী বাজার মসজিদ, কোইমব্রা জামে মসজিদে একটি করে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়।

পর্তুগালে নিযুক্ত বাংলাদেশ দুতাবাসের মান্যবর রাষ্ট্রদূত তারিক আহসান ঈদুল ফিতর উপলক্ষে পর্তুগালবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানান। তিনি বলেন, এই দিনে সবার জীবনে বয়ে আনুক সুখ-শান্তি ও সমৃদ্ধি এবং সমাজে সৃষ্টি হোক সৌহার্দ্যের মেলবন্ধন। উৎসবকে ঘিরে সবার মধ্যে সৌহার্দের বন্ধনকে আরও সুসংহত করবে এই প্রত্যাশা করেন রাষ্ট্রদূত।

লিসবন বাইতুল মোকাররম মসজিদের খতিব অধ্যাপক মাওলানা আবু সায়িদ ঈদ উল ফিতরের জামাত পরিচালনা করেন, নামাজ পূর্বে ঈদ উল ফিতরের তাৎপর্য নিয়ে বয়ান করেন মাওলানা আলাউদ্দিন এবং কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন জুবায়ের আহমেদ।

নামাজ শেষে মুসলিম উম্মাহর শান্তি কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয় । বাংলাদেশী বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠনের নেতাকর্মীসহ বিভিন্ন দেশের মুসলিমদের ঈদ জামাতে নামাজ আদায় করেন।

শেয়ার করুনঃ





Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *