Main Menu

প্রধানমন্ত্রীর উপহার দুটি ‘সি অ্যাম্বু্লেন্স’ সন্দ্বীপবাসীর কোন কাজে আসেনি | বাংলারদর্পণ

প্রতিবেদকঃ
প্রধানমন্ত্রীর উপহার দুটি সি অ্যাম্বু্লেন্স কোন কাজেই আসেনি সন্দ্বীপবাসীর। কোটি টাকা দিয়ে কেনা দু’টি অ্যাম্বু্লেন্সই সাগরে চলাচলের অনুপযোগী। তাই নিয়োগ হয়নি জ্বালানির জন্যও নেই কোনো বরাদ্দ। করোনার মহামারীতে সরকারি টাকার এমন নয় ছয় করার খেসারত কেন দিতে হবে সাধারণ মানুষের, এমন প্রশ্ন সন্দ্বীপবাসীর।

সাগরবেষ্টিত সন্দ্বীপে নেই ভালোমানের কোনও সরকারি হাসপাতাল। উপজেলার চার লাখ মানুষের দুর্ভোগ লাঘবে দুটি সি এ্যাম্বুলেন্স প্রধানমন্ত্রী উপহার হিসেবে দেয়া হয় সন্দীপের জনগণকে। কিন্তু কোটি টাকায় কেনা অ্যাম্বুলেন্সের সুফল একদিনের জন্যও পায়নি দ্বীপের বাসিন্দারা।

গুরুতর অসুস্থ রোগীকে এখন চট্টগ্রামে চিকিৎসার জন্য নিতে হয় ট্রলারে কিংবা স্পিডবোটে করে। করোনার নমুনা নিতেও চরম ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে সবাইকে। স্থানীয় এক বাসিন্দা জানান, এই এ্যাম্বুলেন্সটি রোগী পারাপারের জন্য দেয়া হয়েছে। তবে আমরা রোগী পারাপার করতে কখনও দেখেননি তারা।

সন্দ্বীপবাসীর জন্য চলাচলের উপযোগী একটি সি এ্যাম্বুলেন্স দেওয়ার জন্য অনুরোধ জানান তিনি। ১৩ বছর আগে উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগকে দেয়া সি অ্যাম্বুলেন্সটি কেনা হয়েছিল ৩২ লাখ টাকায়। এছাড়া পাঁচ বছর আগে উপজেলা প্রশাসনকে দেয়া ৬৫ লাখ টাকার দামি সি অ্যাম্বুলেন্সটিরও সেবা পায়নি কোনও রোগী। দুটি সি অ্যাম্বুলেন্সের একটিরও নেই উত্তাল সাগর পাড়ি দেয়ার মতো ফিটনেস।

চট্টগ্রাম সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বি বলেন, এই ব্যপারে আমরা আমাদের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সাথে কথা বলছি। আমাদের এমপি মহাদয়ের সাথে এই বিষয়ে যোগাযোগ আছে। আশা করি নতুন যে অ্যাম্বুলেন্সগুলো আসবে সেগুলো সন্দ্বীপবাসী ব্যবহার করতে পারে- সেই ধরনেরই আসবে।

এ ব্যাপারে স্থানীয় সাংসদ মাহফুজুর রহমান মিতা বলেন, দুটি সি এ্যাম্বুলেন্সই হাওরে চলার উপযোগী। তবে সদ্বীপের চলাচলের জন্য উপযোগী নয়। সাগরে চলার উপযোগী এমন এ্যাম্বুলেন্স বরাদ্দের দাবি জানাচ্ছি।
বাংলারদর্পণ






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *