Main Menu

ভাতিজা বৌকে ধর্ষনের মামলায় চাচা শ্বশুরের জামিন : ভিকটিমের বিরুদ্ধে আদালতের মামলা

ফেনী প্রতিনিধি :
ফেনীর সোনাগাজীতে ভাতিজা বৌকে ধর্ষনের মামলায় এজাহার নামীয় আসামী ভিকটিমের চাচা শ্বশুর সফি উল্লাহকে জামিন দিয়েছে ফেণীর নারী ও শিশু নির্যাতন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মামুনুর রশিদ । একই সঙ্গে স্ববিরোধি অভিযোগের দায়ে বাদীকে(ভিকটিম রুনা) জেলহাজতে পাঠিয়েছে আদালত ।

বিবাদী পক্ষের আইনজীবি এডভোকেট ফয়জুল হক মিলকি বলেন, মঙ্গলবার সকালে আদালতে স্বশরীরে হাজির হয়ে জামিন প্রার্থনা করেন সফি উল্লাহ। এ সময় আসামীর বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ মিথ্যা বলে আইনজীবির মাধ্যমে আদালতে এফিডেভিট দেয় ভিকটিম। আদালত দীর্ঘ শুনানী শেষে সফি উল্লাহর জামিন মঞ্জুর করেন এবং মিথ্যা মামলা দায়ের করায় ভিকটিমের বিরুদ্ধে নিয়মিত মামলা করার নির্দেশ দেন।

নির্দেশনা অনুযায়ী নারী ও শিশু নির্যাতন ট্রাইব্যুনালের পেশকার রবিউল ইসলাম বাদী হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ১৭ধারা মোতাবেক ভিকটিমের বিরুদ্ধে মামলা দেন।

কোর্ট পরিদর্শক গোলাম জিলানী বলেন, উক্ত মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে রুনাকে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। এফিডেভিট সুত্রে জানা গেছে, গত ২৫জুন রাতে মুখোশধারী যুবক তাকে ধর্ষন করেছিল। এতে সে অন্তঃস্বত্বা হয়। সফি উল্লাহর সাথে ভূমি বিরোধ থাকায় ভিকটিম তার শ্বাশুড়ি কর্তৃক প্ররোচিত হয়ে মামলা দায়ের করেন।

রুনার শ্বাশুড়ী বলেন, ধর্ষন মামলা দায়েরের মাত্র ৬দিন পর ভিকটিমকে জোরপূর্বক আদালতে নেয় আসামীর ছেলেরা। আসামী আত্বসমর্পনকালে ভিকটিম কেন স্বেচ্ছায় আদালতে যাবে ? তিনি ন্যায় বিচারের স্বার্থে বিচার বিভাগীয় তদন্ত চেয়েছেন। সোনাগাজী মডেল থানার ওসি মঈন উদ্দিন বলেন, মামলা হওয়ার পর থেকে ভিকটিমকে ফেনীর সদর থানা এলাকায় তার পরিবারের জিম্মায় দেয়া হয়েছিল । আসাামী সফি উল্লাহ পলাতক ছিল ।

প্রসঙ্গত, গত ২২নভেম্বর চাচা শ্বশুর সফি উল্লাহর বিরুদ্ধে সোনাগাজী থানায় ধর্ষন মামলা করেন উপজেলার ছাড়াইতকান্দি গ্রামের প্রবাসী ইয়াসীনের স্ত্রী ৫মাসের অন্তঃস্বত্বা রুনা আক্তার । তার স্বামী দুবছর যাবত বিদেশে কর্মরত । সফি উল্লাহ একই গ্রামের হাজী বাড়ীর বাসিন্দা।






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *