Main Menu

সোনাগাজীতে পুলিশের উপর আবার ও হামলা ॥ আহত ৮ পুলিশ সদস্য

ফেনী প্রতিনিধি।

ফেনীর সোনাগাজীতে   আসামী ধরতে গিয়ে  পিটুনীতে ৮ পুলিশ সদস্যসহ ১০ জন আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। জানা যায়, বুধবার দিবাগত রাত ২টার সময় উপজেলার চরছান্দিয়া ইউনিয়নের উত্তর চরছান্দিয়া গ্রামের  পশ্চিম মাঝি বাড়ীতে পুলিশ  সন্দেহভাজন আসামী গ্রেফতার করতে মডেল থানার ওসি (তদন্ত) মামুন রহমানের নেতৃত্বে পুলিশের একটি টহল দল ওই বাড়ীতে অভিযান চালায়।

এসময় বাড়ীর লোকজন কে পুলিশ পরিচয় দেওয়ার পরও তারা ডাকাত ডাকাত চিৎকার করে পুলিশের উপর  হামলা চালায়। তাদের হামলা ও পিটুনীতে মডেল থানার এ.এস.আই দেলোয়ার হোসেন,এএসআই সালাউদ্দিন,এ.এস.আই আরিফ হোসেন ও কনেষ্টবল আবুল হাসেমসহ আট পুলিশ সদস্য ও গৃহকর্তা ফকির আহম্মদ, তার স্ত্রী রাজিয়া বেগম আহত হয়।

আহত পুলিশ কনষ্টেবল আবুল হাসেম কে চিকিৎসার জন্য প্রথমে সোনাগাজী হাসপাতাল ও পরে ফেনী আধুনিক সদর হাসপাতালে উন্নত চিকিৎসার জন্য স্থানান্তর করা হয়। পুলিশের উপর হামলার অভিযোগে ঘটনাস্থল থেকে সত্তর বছরের বৃদ্ধ ফকির আহাম্মদ ও তার ছেলে জাহিদ(২৫) কে গ্রেফতার করা হয়। তবে স্থানীয়রা জানায় ,পুলিশ যে বাড়ীতে অভিযান চালিয়েছে সেই বাড়ীতে কোন মামলার আসামী ছিলনা। সাম্প্রতিক ওই এলাকায় কয়েকটি ডাকাতির ঘটনায় এমনিতে ডাকাত আতংক বিরাজ করছে।

পুলিশের একজন চিহ্নিত সোর্সের সাথে ওই বাড়ীর জাহিদের দীর্ঘ বিরোধের জেরে সোর্সের ভুল তথ্যে প্রভাবিত হয়ে পুলিশ জাহিদ কে গ্রেফতার করতে গেলে ডাকাত ভেবে অনভিপ্রেত হামলার ঘটনা ঘটে।পুলিশের বেধড়ক পিটুনীতে আহত  রাজিয়া বেগম(৬৫) বলেন,পুলিশ গভীর রাতে দরজা খোলার জন্য ডাকাডাকি করে। আমার স্বামী ডাকাত ভেবে দরজা খুলতে দেরী করায় পুলিশ দরজা ভেঙ্গে ঘরে প্রবেশ করে সবাইকে এলোপাথারী পিটাতে থাকে। ঘরের লোকজনের আত্মচিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে এলে আমার স্বামী ও ছেলেকে মারধর করে নিয়ে যায়।

সুত্র জানায়, গ্রেফতারকৃত পিতা-পুত্রের বিরুদ্বে ইতিপূর্বে এলাকায় ও থানায় কোন মামলা বা অভিযোগ নেই। এ ব্যাপারে এলাকায় মানুষের মাঝে মিশ্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে। সোনাগাজী মডেল থানার ওসি মো. হুমায়ুন কবির জানান, জাহিদকে একটি ডাকাতি মামলায় জড়িত সন্দেহে গ্রেফতার করতে গেলে ফকির আহম্মদ ও তার ছেলে জাহিদ পুলিশের উপর হামলা চালায়।
উল্লেখ্য, ডিসেম্বরে  চর দরবেশ ইউনিয়নের চর সাহাভীকারী গ্রামের প্রপুল্ল মেম্বারের বাড়ীতে নারী নির্যাতনের মামলার আসামী গ্রেফতার করতে গেলে বাড়ীর লোকজনের হামলায় ৪ পুলিশ কর্মকর্তা আহত হয়। এর পুর্বে ২০১৬ সালের জুলাই মাসে আমিরাবাদ ইউনিয়নের তিনবাড়ীয়া গ্রামে আসামী গ্রেফতার করতে গেলে তার আত্বীয়দের হামলায় ১৬পুলিশ সদস্য আহত হয়।






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *