Main Menu

সামরিক ব্যয়ে বাংলাদেশের অবস্থান কোথায় ?

নিউজ ডেস্ক :

বাংলাদেশের সামরিক ব্যয় গত এক দশকে ১২৩ শতাংশ বেড়েছে। হিসেবটা ২০০৭ সাল থেকে ২০১৭ পর্যন্ত। সুইডেন-ভিত্তিক গবেষণা সংস্থা স্টকহোম ইন্টারন্যাশনাল পিস অ্যান্ড রিসার্চ ইন্সটিটিউট বা সিপ্রির বরাত দিয়ে এমনটাই জানিয়েছে বিবিসি।

সিপ্রি তাদের গবেষণায় পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের সামরিক ব্যয়ের চিত্র তুলে ধরেছে। সংস্থাটির প্রতিবেদনে অনুযায়ী ২০০৭ সালে বাংলাদেশে সামরিক খাতে ব্যয় ছিল প্রায় ছয় হাজার ৬০০ কোটি টাকা, যা ২০১৭ সালে বেড়ে দাঁড়িয়েছে প্রায় ২৮ হাজার ৮০০ কোটি টাকা।

বৃহৎ প্রতিবেশী ভারতের সামরিক খাতে ব্যয় বাংলাদেশের তুলনায় প্রায় ১৮ গুণ বেশি। আর গত দশ বছরে ভারতের সামরিক ব্যয় বেড়েছে প্রায় ৪৫ শতাংশ। আর প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, মিয়ানমারের সামরিক খাতে বৃদ্ধির হার ৪০ শতাংশ থেকে ৯৯ শতাংশের মধ্যে।

বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব পিস অ্যান্ড সিকিউরিটি স্টাডিজের চেয়ারপার্সন মেজর জেনারেল (অব.) আ.ন.ম মুনিরুজ্জমান বিবিসিকে বলেন, ‘সামরিক বাজেটের একটি বড় অংশ ব্যয় হয় বেতন-ভাতা এবং স্থাপনা রক্ষণাবেক্ষণের কাজে। এরপর সীমিত অংশ দিয়ে অস্ত্র ক্রয় করা হয়। নতুন সাবমেরিন এবং অন্যান্য সমরাস্ত্র ক্রয়ের কারণে ব্যয় বৃদ্ধি পেয়েছে।

তিনি আরও বলেন, প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীনে আবহাওয়া অধিদপ্তরের জন্যও সামরিক বাজেট থেকে টাকা খরচ করা হয়।

স্টকহোম ইন্টারন্যাশনাল পিস অ্যন্ড রিসার্চ ইন্সটিটিউট-এর প্রতিবেদনে তুলে ধরা হয়েছে মিয়ানমারের সামরিক বাজেট বাংলাদেশের চেয়ে কম। তাহলে মিয়ানমার সামরিক বাহিনীর আকার এবং সরঞ্জাম বাংলাদেশের চেয়ে বেশি হয় কীভাবে? এ প্রসঙ্গে মি: মুনিরুজ্জামান বিবিসিকে বলেন, ‘মিয়ানমারের সামরিক বাজেটের পরিষ্কার চিত্র প্রকাশ করা হয় না। চীনের কাছ থেকে তারা প্রচুর অস্ত্র পায়। এসব অস্ত্র কী তারা বিনামূল্যে পায়, নাকি ক্রয় করে – সে সংক্রান্ত কোনো পরিষ্কার চিত্র পাওয়া যায় না।’

সূত্র: বিবিসি






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *