Main Menu

ডিজিটাল বাংলাদেশের উদ্যোক্তা সজীব ওয়াজেদ জয়

 

নিউজ ডেস্ক :

বাংলাদেশে ইনফরমেশন কমিউনিকেশন এন্ড টেকনোলজি প্রতিষ্ঠার অগ্রদূত সজীব ওয়াজেদ জয়, ডিজিটাল বাংলাদেশের উদ্যোক্তা । ১৯৭১ সালের ২৭ জুলাই তিনি ঢাকায় জন্মগ্রহণ করেন। যুদ্ধের সময় তাঁর জন্ম এবং বাংলাদেশের পরবর্তী বিজয়ের জন্য তাঁর নানা পছন্দ করে জয় নামটি দেন। ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের সময়ে জন্মগ্রহণকারী সজীব ওয়াজেদ জয় আমাদের জাতীয় আইসিটি বিভাগ প্রধান। জয় বিদেশের বোর্ডিং স্কুলে পড়াশোনা করেন এবং টেক্সাস বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার বিজ্ঞান, আর্লিংটন এবং পাবলিক প্রশাসনে অধ্যয়ন করেন। তাঁর এই অসাধারণ যোগ্যতার জন্য তিনি আমাদের জাতির অন্য সব নেতৃস্থানীয়দের থেকে পৃথক হয়েছেন। সজীব ওয়াজেদকে ডিজিটাল বাংলাদেশ গঠনের মাস্টারমাইন্ড এবং আওয়ামী লীগের রূপকল্প ২০২১ ঘোষণাপত্রেও অগ্রাধিকার দেওয়া হয়।

জয় বাংলাদেশের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার একমাত্র ছেলে। সজীব ওয়াজেদ প্রথমে ২০০৪ সালে বাংলাদেশের রাজনৈতিক দৃশ্যপটে হাজির হন, যখন তিনি বাংলাদেশে সফর করেন। ২০০৯ সালে জয় আওয়ামী লীগের রংপুর জেলার প্রাথমিক সদস্য হিসেবে যোগ দেন। রংপুর হল তাঁর পিতা ওয়াজেদ মিয়া এবং তাঁর সম্ভাব্য সংসদীয় আসনটির পূর্বপুরুষের স্থান।

১৭ নভেম্বর ২০১৪ তারিখে সজীব ওয়াজেদ জয়কে শেখ হাসিনার সম্মানসূচক আইসিটি উপদেষ্টা হিসেবে নিয়োগ করা হয়। এই পদের জন্য কোন বেতন নেন না তিনি।

নিয়োগের পর আইসিটি বিভাগের উন্নয়নে সজীব ওয়াজেদ জয়ের অবদান অনস্বীকার্য। বাংলাদেশের আইসিটি কাঠামো গঠনে জয় এর উল্লেখযোগ্য অবদানের ফলে, তিনি ২০১৬ সালে উন্নয়ন পুরস্কারের জন্য আইসিটি এক্সপার্ট হিসাবে বিভিন্ন প্রশংসা পেয়েছেন। তার স্বপ্নদর্শী নেতৃত্বের দক্ষতার কারণে ২০০৭ সালে তিনি আন্তর্জাতিক ইয়ং গ্লোবাল লিডার পুরস্কার পেয়েছিলেন।

ডিজিটাল বাংলাদেশের অগ্রদূত সজীব ওয়াজেদ জয়, ২০২১ সালের মধ্যে একটি ডিজিটাল বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার জন্য নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। প্রযুক্তিগত দিক থেকে বাংলাদেশকে উন্নত করার লক্ষ্যে সজীব ওয়াজেদ জয়ের এই অগ্রযাত্রা আজ সারা বিশ্বে প্রশংসিত।






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *