Main Menu

ভিজিএফ’র চাল বিতরণে অনিয়মের অভিযোগে মেম্বার-চেয়ারম্যান অবরুদ্ধ

 

এস,এম,ওয়াহিদুল ইসলাম, সুনামগঞ্জ থেকেঃ- দিরাই উপজেলার ৮নং তাড়ল ইউনিয়নের বিতর্ক যেন পিছু ছাড়ছে না! দুইবার চেয়ারম্যান এর প্রতি অনাস্থা! কোনকোন ওয়ার্ড মেম্বারের প্রতি দুর্নীতির অভিযোগ এনে এলাকাবাসীর ইউ,এন,ও এবং দুদকে আবেদন! কার্যক্রমে স্থবিরতা, বিলম্বে কাজ বাস্তবায়ন, সব কিছু মিলিয়ে হজরবল অবস্থা তাড়ল ইউনিয়ন পরিষদে। আজ ভিজিএফ চাল বিতরণ উদ্বোধন করেন চেয়ারম্যান আব্দুল কুদ্দুছ। ১নং ওয়ার্ডের কার্ডধারী, ভাটি ধলের আব্দুল কায়ুম, লাল মিয়া আব্দুল আজিজ সহ  সদস্য/সদস্যা ৩০কেজির পরিবর্তে ২৪-২৫ কেজি দেওয়ার ও যাতায়াত খরচা জনপ্রতি ১০০/- নেওয়ার প্রতিবাদে ১নং ওয়ার্ডের মেম্বার গোলাম রব্বানী সহ উপস্থিত অন্যান্য মেম্বার ও চেয়ারম্যান কে অবরুদ্ধ করে তীব্র প্রতিবাদ করতে থাকে। কিছু সচেতন এলাকাবাসী মুঠো ফোনে দিরাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মঈন উদ্দিন ইকবাল কে ঘটনা অবহিত করেন। সাথেসাথে উনি ধল বাজারস্থ তাড়ল ইউনিয়ন কার্যালয়ে উদ্দেশ্যে ধল গ্রামে চলে যান। এদিকে ইউ,এন,ও আসছেন খবর রটেগেলে চেয়ারম্যান আব্দুল কুদ্দুছ জনতার দাবির প্রতি একাত্ম ঘোষণা করে ফোনে ইউ,এন,ও, র সাথে পরামর্শ করে এলাকার মান্যগণ্য ব্যক্তিদের সহায়তায় মেম্বারদের কে বাদ্য করেন ২৮কেজি করে চাউল বিতরণ করতে।  এএলাকাবাসী সমঝোতা করায়, ইউ,এন,ও ধলগ্রাম থেকে দিরাই ফেরত চলে যান।

এদিকে ৫নং ওয়ার্ড মেম্বার মঞ্জুর বিরুদ্ধে ও কনাই মিয়া নামের একজন কার্ডধারী জনপ্রতি যাতায়াত ভাড়া ৫০/- অভিযোগ করেন। এলাকাবাসী ও চেয়ারম্যান এর সাথে আলাপ করে জানা যায়- ইতিপূর্বে ১নং ওয়ার্ড মেম্বার গোলাম রব্বানির বিরুদ্ধে কর্মসৃজন কর্মসূচির হতদরিদ্রদের টাকা কাজ না করায়ে আত্মসাৎ করার অভিযোগে ইউ,এন,ও এবং দুদক বরার আবেদন করেন। জনগণ কর্তৃক মেম্বারদের উপর আর মেম্বর ও চেয়ারম্যান একে অন্যের উপর অভিযোগ পালটা অভিযোগে তাড়ল ইউনিয়নের কার্যক্রম বাধাগ্রস্ত এবং ইমেজ ক্ষুন্ন হচ্ছে বলে সচেতন এলাকাবাসীর অভিমত।






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *