Main Menu

চট্টগ্রামে র‍্যাবের অভিযান : বিপন্ন প্রজাতির পাখি ও প্রাণী উদ্ধার

চট্টগ্রাম ব্যুরো :

চট্টগ্রাম মহানগরীর কোতোয়ালী থানাধীন রিয়াজ উদ্দিন বাজারে বিভিন্ন স্টোর হতে বিপন্ন প্রজাতির পাখি ও প্রানী উদ্ধারসহ ২,৫০,০০০/- টাকা জরিমানা করেছে র‌্যাব-৭ এর ভ্রাম্যমান আদালত।

 

র‌্যাব-৭, চট্টগ্রাম গোপন সংবাদের মাধ্যমে জানতে পারে যে, চট্টগ্রাম মহানগরীর কোতোয়ালী থানাধীন রিয়াজ উদ্দিন বাজার নুপুর মার্কেট এর বিভিন্ন স্টোরে বন্যপ্রাণী ব্যবসার উদ্দেশ্যে চট্টগ্রাম বিভাগের প্রত্যন্ত ও দুর্গম পাহাড়ী এলাকা হতে বিলুপ্তপ্রায় ও বিপন্ন  প্রজাতির বিভিন্ন ধরণের পাখি ও প্রাণী শিকার করে সারাদেশে উচ্চমূল্যে বিক্রয়ের জন্য সংরক্ষণ করে রেখেছে। উক্ত সংবাদের ভিত্তিতে গত ৩০ নভেম্বর ২০১৭ ইং তারিখ ১৩০০ ঘটিকা হতে ২১০০ ঘটিকা পর্যন্ত লেঃ কমান্ডার আশেকুর রহমান, (এক্স), বিএন (র‌্যাব সদর দপ্তরের বিজ্ঞ নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট জনাব মোঃ আনিসুর রহমান এবং আবু নাঈম মোঃ শহিদুল আলম, ফরেস্টার, বণ্যপ্রানী ব্যবস্থাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষন বিভাগ, চট্টগ্রাম এর সহায়তায়) এর নেতৃত্বে বর্ণিত স্থানে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে ১,২৮৮ টি বিভিন্ন প্রজাতির পাখি (ময়ন-১,০২৬ টি, ঘুঘু-৯০ টি, টিয়া-১৩১ টি, মুনিয়া-১৫ টি, তোতা-১৫ টি, কাঠ ঠোকড়া-০১টি এবং চড়ুই-১০ টি) এবং ০৭ টি বিভিন্ন প্রকার প্রাণী (বানর-০২টি, বেজী-০৩টি, বন মোরগ-০২টি) উদ্ধার করা হয়। বিলুপ্তপ্রায় ও বিপন্ন প্রজাতির বিভিন্ন ধরণের পাখি ও প্রাণী বিক্রয়ের উদ্দেশ্যে সংরক্ষণ করার দায়ে মারিয়া স্টোর এর মালিক ১। মোঃ জাফর আহমেদ (৫৫), পিতাঃ- মৃত মন্নু মিয়া, গ্রাম- আলকরন, ৩নং গলি, থানা- কোতোয়ালী, জেলা-চট্টগ্রাম’কে ৫০,০০০/- টাকা, ইত্যাদি স্টোর এর ম্যানেজার ২। মোঃ ইউসুফ (৩৬), পিতাঃ- মৃত সোলায়মান সওদাগর, গ্রাম- আলকরন, থানা- কোতোয়ালী, জেলা-চট্টগ্রাম’কে ৫০,০০০/- টাকা, আলী স্টোর এর মালিক ৩। মোহাম্মদ আলী (৬০), পিতাঃ- মৃত হাজী আব্দুল জলিল, গ্রাম- তারগাছ, থানা- কসবা, জেলা- বি-বাড়িয়া’কে ৫০,০০০/- টাকা, ৪। মোঃ ইমারন আলী (২৮) এবং ৫। ইরফান আলী (২১), উভয়ের পিতাঃ- মোহাম্মদ আলী, গ্রাম- জজলস, ৩০/৭০, নয়াবাজার, থানা- পাহাড়তলী, জেলা-চট্টগ্রামদের’কে ৫০,০০০+৫০,০০০/- (১,০০,০০০/-) টাকা জরিমানাসহ সর্বমোট ২,৫০,০০০/- জরিমানা করেছে র‌্যাব-৭ এর ভ্রাম্যমান আদালত (মামলা নং-৭১/১৭,৭২/১৭,৭৩/১৭ এবং ৭৪/১৭ তারিখ-৩০/১১/২০১৭)।

 

উল্লেখ্য যে, উদ্ধারকৃত পাখি ও প্রানীগুলোকে অবমুক্ত করা হয়েছে এবং বন্য প্রাণী ও পাখি সংরক্ষন করার দায়ে আদায়কৃত জরিমানার অর্থ সরকারী কোষাগারে জমা করা হয়েছে।






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *