Main Menu

রোহিঙ্গা সমস্যা সমধানের দাবিতে চট্টগ্রামে থানায় ইসলামী আন্দোলনের মানববন্ধন

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি :

গণহত্যা বন্ধ, রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর শিক্ষা, কর্ম, ভূমিস্বত্ব, ভোটাধিকার ও নাগরিক মর্যাদা ফিরিয়ে দেওয়া, বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে শরণার্থী হিসেবে মানবেতর জীবন যাপনরত সকল রোহিঙ্গাদের স্বদেশে ফিরিয়ে নিয়ে পুনর্বাসনের ব্যবস্থা, রোহিঙ্গাবিরোধী অভিযানগুলোকে গণহত্যা হিসেবে গণ্য করে এসব অভিযানে হত্যা, ধর্ষন, বাড়ি-ঘর জ্বালিয়ে-পুড়িয়ে ধ্বংস, নারী-শিশু-বৃদ্ধদের নির্যাতন ও দেশত্যাগে বাধ্য করাসহ মানবতাবিরোধী অপরাধের তদন্তে জতিসংঘের অধীনে একটি আন্তর্জাতিক দতন্ত কমিশন গঠন এবং এসব অপরাধের সাথে জড়িত মিয়ানমারের সেনা, বিজিপি, পুলিশ, প্রশাসন ও উগ্র বৌদ্ধ সন্ত্রাসীদের বিচারসহ ৫ দফা দাবিতে মিয়ানমার অভিমুখে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের #লংমার্চ যাত্রা করবে কাল। আগামীকাল (রবিবার) সকাল ৯ ঘটিকায় ঢাকার যাত্রাবাড়ি থেকে লক্ষাধিক মানবতাবাদী জনতার হাজার হাজার গাড়িবহরসহ এ লংমার্চে নেতৃত্ব দেবেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের সংগ্রামী আমীর হযরত মাওলানা মুফতী সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করীম (পীর সাহেব চরমোনাই)।

এ দিকে লংমার্চকে সফল করার আহ্বানে এবং রোহিঙ্গা সমস্যার সমাধানের দাবিতে চট্টগ্রাম মহানগরীর থানায় থানায় ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের উদ্যোগে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। ডবলমুরিং, কোতোয়ালী, ইপিজেড, বায়েজিদ, শেরশাহ, পাঁচলাইশ, খুলশি, বাকলিয়া, বন্দর, পতেঙ্গা, চান্দগাঁও ও কর্ণফুলি থানার বিভিন্ন সকড়ে এসব মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। এসব মানববন্ধন থেকে নেতৃবৃন্দ মিয়ানমারে ১৩৫টি জাতিগোষ্ঠীর রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর সাংবিধানিক স্বীকৃতি, রোহিঙ্গাদের মানবাধিকার সুনিশ্চিত করা, শিক্ষা-কর্ম, পুলিশ-প্রশাসন ও সেনাবাহিনীতে রোহিঙ্গাদের জন্য কোটা বরাদ্দ এবং রাখাইন রাজ্যের স্থানীয় উগ্র বৌদ্ধদের জাতিগত বিদ্বেষ থেকে রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীকে সুরক্ষায় উত্তর রাখাইন রাজ্যে সংখ্যাঘরিষ্ট রোহিঙ্গাদের জন্য আরাকান নামে স্বতন্ত্র রাজ্য প্রতিষ্ঠা করে স্বায়ত্বশাসন কার্যকর এবং রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারের রাজনীতিতে অংশগ্রহণ ও দল গঠনের অধিকারের দাবি জানান ।

এসব মানববন্ধনে স্থানীয় নেতৃবৃন্দ ছাড়াও আলহাজ মুহাম্মদ আবুল কাশেম মাতব্বর, আলহাজ মুহাম্মদ আল-ইকবাল, মাওলানা সুলতানুল ইসলাম ভূঁইয়া, ডা. মুহাম্মদ রেজাউল করীম, এইচএম মুসলেহ উদ্দীন, মু. সগির আহমদ চৌধুরী, মাওলানা তরীকুল ইসলাম সরকার, মুহাম্মদ তাজুল ইসলাম শাহীন, ওলামা-মাশায়েখ নেতা মাওলানা শেখ মুহাম্মদ আমজাদ হোসাইন, শ্রমিক নেতা আলহাজ মুহাম্মদ ওয়ায়েজ হোসাইন ভুঁইয়া, ডা. মুহাম্মদ ফরিদ খান, অধ্যাপক মাওলানা মুহাম্মদ রফিকুল আলম, আলহাজ মুহাম্মদ আলী আকবর, অধ্যাপক নজরুল ইসলাম, শিক্ষক নেতা মাওলানা কারী দিদারুল মওলা, ছাত্রনেতা মুহাম্মদ জহিরুল ইসলাম প্রমুখ নগরনেতৃবৃন্দ বক্তব্য রাখেন।

নেতৃবৃন্দ দল-মত নির্বিশেষে সকল মানবতাবাদী জাতি-গোষ্ঠী ও সম্প্রদায়ের মানুষকে শরীক একাত্বতা পোষণের জন্য উদাত্ত আহ্বান জানানো হয়েছে।

চট্টগ্রামে গণজমায়েত
১। ১৯ ডিসেম্বর (সোমবার) সকাল ৮ ঘটিকায়, ওয়াসা জমিয়তুল ফালাহ মসজিদ চত্বর।






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *