Main Menu

নিজাম হাজারীর রায় || ফেনীতে কঠোর অবস্থানে পুলিশ

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ ৬ ডিসেম্বর ২০১৬।

Exif_JPEG_420
Exif_JPEG_420

ফেনীতে জয়নাল হাজারী ও নিজাম হাজারীর বিবদমান সমর্থকদের মধ্যে টানটান উত্তেজনা বিরাজ করছে। নিজাম হাজারীর সংসদ সদস্য পদের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে করা রিটের রায়কে কেন্দ্র করে এ উত্তেজনা। আজ মঙ্গলবার হাইকোর্ট ডিভিশনের একটি বেঞ্চ রায় প্রদান করবেন। রায়কে সামনে রেখে নিজাম হাজারীর সমর্থকরা ‘ষড়যন্ত্রকারীদের’ বিরুদ্ধে ফেনীতে বিক্ষোভ ও সমাবেশের ডাক দিয়েছে। অন্যদিকে সাবেক এমপি জয়নাল হাজারী রায়ের পর ফেনীতে আসার ঘোষণা দিয়েছেন। এমন অবস্থায় ফেনীতে চরম উদ্বেগ ও উৎকণ্ঠার সৃষ্টি হয়েছে। পরিস্থিতি সামাল দিতে চট্টগ্রাম থেকে বহুসংখ্যক দাঙ্গা পুলিশ আনা হয়েছে ফেনীতে।
স্থানীয় আওয়ামী লীগের বিভক্তিকে কেন্দ্র করে জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক জয়নাল হাজারীর সমর্থক জেলা যুবলীগের সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক সাখাওয়াত হোসেন ভূঞা গত বছর হাইকোর্টে একটি রিট পিটিশন করেন। রিটে তিনি অভিযোগ করেন, ২০০৬ সালে চট্টগ্রাম জেলা ও দায়রা জজ আদালতে একটি অস্ত্র মামলায় এমপি নিজাম হাজারীর ১০ বছরের সাজা হয়। এই রায়ের বিরুদ্ধে নিজাম হাজারী উচ্চ আদালতে আপিল করেন। উচ্চ আদালত আপিল খারিজ করে সাজা বহাল রাখেন। তবে নিজাম হাজারী জেলে
গেলেও প্রায় আড়াই বছর সাজা কম খেটে কারাগার থেকে মুক্তি পান। রিটে আরও উল্লেখ করা হয়, নিজাম হাজারী সংবিধানের ৬৬(২)(ঘ) বিধানমতে ২০১৫ সালের আগে সংসদ নির্বাচন করতে পারেন না। কিন্তু মিথ্যা হলফনামায় তিনি ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি নির্বাচনে সংসদ সদস্য হয়েছেন। যদিও তার আইনজীবীরা বিভিন্ন যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করে বলেছেন, নিজাম হাজারী কারাগারের সব নিয়ম-কানুন মেনে সাজার মেয়াদ শেষে মুক্তি পেয়েছেন।
উচ্চ আদালত আজ মঙ্গলবার রায়ের তারিখ স্থির করেছেন। স্থানীয় পর্যবেক্ষকরা জানান, আদালতের শুনানি ও রায়ের প্রত্যেক তারিখে নিজাম হাজারীর সমর্থকরা ফেনীতে বিক্ষোভ সমাবেশের আয়োজন করেছে। গত ১ ডিসেম্বর মামলার নির্ধারিত তারিখে নিজাম হাজারীর সমর্থকরা ফেনী ট্রাঙ্ক রোডে আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশে এই মামলাকে ষড়যন্ত্র হিসেবে আখ্যায়িত করে। এই ষড়যন্ত্রের দাঁতভাঙা জবাব দেওয়া হবে বলে জেলা যুবলীগ সভাপতি দিদারুল কবির রতন ঘোষণা দেন। আজ মঙ্গলবার শহরে বিক্ষোভ সমাবেশের ডাক দেওয়া হয়েছে।
অন্যদিকে ফেনীর সাবেক আওয়ামী লীগ নেতা ও এমপি জয়নাল হাজারীর সমর্থকরা সার্বিক পরিস্থিতিতে নিজেদের অবস্থান শক্ত করে তুলেছেন। জয়নাল হাজারী ফেসবুক লাইভে দেওয়া বার্তায় ঘোষণা করেছেন, নিজাম হাজারীর রায় ঘোষণার পর তিনি ফেনীতে বিজয় দিবসের সভায় যোগদান করবেন। সভায় তার সব সমর্থক উপস্থিত থাকবেন। এ অবস্থা বিশ্লেষণ করে জয়নাল হাজারী ও নিজাম হাজারীর সমর্থকরা ফেসবুকে নিয়মিত বিভিন্ন স্ট্যাটাস প্রকাশ করছেন।
যুবলীগ নেতাদের ঘোষণার পর জেলা ছাত্রলীগ রায় ঘোষণার দিনে ব্যাপক শোডাউনের আয়োজন করেছে। সভা সফল করার জন্য প্রতিটি উপজেলা ও ইউনিয়ন কমিটিকে উপস্থিত থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। ফেনীর পুলিশ সুপার রেজাউল হক বলেন, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ইতিমধ্যে চট্টগ্রাম থেকে ৪শ’ দাঙ্গা পুলিশ ফেনীতে এসে পেঁৗছেছে। তিনি আশা প্রকাশ করেন, পুলিশ অবশ্যই পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে সক্ষম হবে।
এদিকে চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি সফিকুল ইসলাম গতকাল সোমবার বিকেলে ফেনী সফরে আসেন। তিনি ফেনী পুলিশ সুপারের সম্মেলন কক্ষে বিভিন্ন থানার ওসি ও ইন্সপেক্টরদের সঙ্গে এক রুদ্ধদার বৈঠকে মিলিত হন। ডিআইজি সাংবাদিকদের বলেন, কোনো সন্ত্রাসীকে ছাড় দেওয়া হবে না।






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *