Main Menu

নোয়াখালীতে ডাকাতির স্বর্ণ ভাগাভাগি নিয়ে গোলাগুলি, ডাকাত গুলিবিদ্ধ

নোয়াখালী প্রতিনিধি :
নোয়াখালী সদর উপজেলায় ডাকাতির স্বর্ণ ভাগাভাগি নিয়ে নিজেদের মধ্যে প্রথমে ভাকবিতন্ডা-হাতাহাতি ও এক পর্যায়ে গোলাগুলির ঘটনায় মো.রুবেল (২৭) নামের এক ডাকাত গুলিবিদ্ধ হয়েছে।

বুধবার দিবাগত রাতে উপজেলার নোয়ান্নই ইউনিয়নের আতাশপুর গ্রামের মিলন মিয়ার নতুন বাড়িতে ডাকাতি পরবর্তী রাত তিনটার দিকে দাদপুর ইউনিয়নের হাকিমপুর ব্রিকস ফিল্ড সংলগ্ন এলাকা থেকে গুলিবিদ্ধ রুবেলকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

গুলিবিদ্ধ মো.রুবেল দাদপুর ইউনিয়নের দাদপুর গ্রামের মো. হানিফের ছেলে। তার বিরুদ্ধে থানায় একাধিক অস্ত্র ও মাদক মামলা রয়েছে বলে পুলিশ সুত্রে জানা গেছে।

ভুক্তভোগী পরিবারের সদস্য আমেনা বেগম শিউলি বলেন, বুধবার রাত ২টার দিকে উপজেলার নোয়ান্নই ইউনিয়নের আতাশপুর গ্রামের প্রবাসী মিলন মিয়ার নতুন বাড়ির ঘরের দরজা ভেঙ্গে ভিতরে প্রবেশ করে ঘরের সবাইকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে স্বর্ণালঙ্কার ও মালামাল লুট করে নেয়। এসময় একজন ডাকাত ডাকাতি হওয়া স্বর্ণালঙ্কার তার কাছে দিতে বললে তার সাথে অন্য ডাকাতদের বাকবিতন্ডা শুরুর এক পর্যায়ে হাতাহাতি হয়। এতে স্বর্ণালঙ্কার থাকা ডাকাতের মুখোশ খুলে যায়। এসময় পুনরায় মুখোশ পড়ে স্বর্ণালঙ্কার নিয়ে ওই ডাকাত ঘর থেকে বাহির হয়ে যাওয়ার সময় অপর ডাকাতরা তাকে লক্ষ করে গুলি ছোঁড়লে সে গুলিবিদ্ধ হয়। পরে অপর ডাকাতরা ডাকাতি হওয়া মালামালসহ তাকে নিয়ে চলে যায়। পরবর্তীতে দাদপুর ইউনিয়নের হাকিমপুর ব্রিকস ফিল্ড সংলগ্ন এলাকা থেকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় ডাকাত রুবেলকে স্থানীয় এলাকাবাসী উদ্ধার করে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করেন।
নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার সৈয়দ মহিউদ্দিন আবদুল আজিম বলেন, রুবেল নামের এক গুলিবিদ্ধ যুবককে হানপাতালের জরুরি বিভাগে আনা হয়। তার চোখে মুখে ও পেটে ছড়রা গুলি বিদ্ধ হয়েছে। তার অবস্থা আশংকাজনক দেখে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

সুধারার মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহেদ উদ্দিন উদ্দিন বলেন, প্রবাসীর বাড়িতে ডাকাতির খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। সরেজমিনে ঘটনার তদন্ত করে জানা গেছে ডাকাত রুবেলের নেতৃত্বে ওই বাড়িতে ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে।

ওসি শাহেদ উদ্দিন বলেন, ডাকাত রুবেলের সাথে সাদ্দাম ও কালামসহ ৪/৫জন সহযোগী ছিলো। তাদের বিরুদ্ধে ভুক্তভোগী আমেনা বেগম শিউলি বাদি হয়ে দস্যুতার অভিযোগে মামলা দায়ের করেছেন। গুলিবিদ্ধ রুবেলের বিরুদ্ধে একাধিক মাদক মামলা রয়েছে। অভিযুক্তদের গ্রেফতারে পুলিশের অভিযান অব্যাহত আছে।

শেয়ার করুনঃ





Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *