Main Menu

ডিমলায় কলেজ ছাত্রীকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগে আটক ৩

শামীম ইসলাম ,ডিমলা, নীলফামারী :

নীলফামারীর ডিমলায় প্রেম ঘটিত কারনে  কলেজ ছাত্রী সুরভীকে পিটিয়ে হত্যার পর তার মরদেহ হাসপাতালে রেখে পালিয়ে যায় তার প্রেমিকের বাড়ীর লোকজন। এ ঘটনায় ৩ জনকে আটক করেছে ডিমলা থানা পুলিশ। এবং বুধবার (১৯শে ডিসেম্বর) দুপুরে ডিমলা সরকারি হাসপাতাল হতে নিহত কলেজ ছাত্রীর লাশ উদ্ধার করে জেলা মর্গে পাঠায় পুলিশ।এর আগে মঙ্গলবার (১৮ই ডিসেম্বর) রাতে উপজেলার বালাপাড়া ইউনিয়নের সোভানগঞ্জ বালাপাড়া গ্রামে এ মর্মান্তিক গটনাটি ঘটে। নিহত সুরভী একই জেলার ডোমার উপজেলার মেলাপাঙ্গা গ্রামের আব্দুর ছাত্তারের মেয়ে। ও নীলফামারী সরকারি মহিলা কলেজের অনার্স (রাষ্ট্র বিজ্ঞান) দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী।

আটকৃতরা হলেনঃ উপজেলা সোভানগঞ্জ বালাপাড়া গ্রামের মৃত জয়নালের ছেলে আফজাল হোসেন(৫০), আরফানের মামা ফয়মুদ্দিনের ছেলে খুশিয়ার রহমান(৪৫) এবং মফিজ উদ্দিনের ছেলে শাহজাহান (৩০) জানা গেছে, কলেজ ছাত্রী সুরভী আক্তারের সঙ্গে আফজাল হোসেনের ছেলে আরফান আলীর (২২)এর সাথে প্রেমের সম্পর্ক চলে আসছিলো। গত ১৭ ই ডিসেম্বর আরফান সুরভীকে বিয়ের কথা বলে নিজ বাড়ীতে নিয়ে আসেন। আসার পরে আরফানের পরিবারের লোকজন সুরভীর সঙ্গে আরফানের বিয়ে দিতে অনিহা প্রকাশ করেন।

এ ঘটনায় এলাকায় একাধিকবার সমঝোতার চেষ্টা করেও তা সম্ভব না হওয়ায় ওই দিন রাতে আরফান সহ তার বাড়ীর লোকজন সুরভী আক্তারকে মারধরের মাধ্যমে হত্যা করে তার মরদেহ ডিমলা হাসপাতালে রেখে পালিয়ে যায়। ঘটনার পর থেকে প্রেমিক আরফান পালাতক রয়েছে। নিহতের বাবা  আব্দুর ছাত্তার বলেন, আরফানের পরিবার আমার মেয়েকে পিটিয়ে হত্যা করেছে।আমি দোষীদের বিচার চাই।

ডিমলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মফিজ উদ্দিন শেখ বলেন, দুপুরে ডিমলা হাসপাতাল থেকে সুরভীর মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য জেলা সদর আধুনিক হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়। এ ব্যাপারে সুরভীর পরিবার থেকে মামলার প্রস্তুতি চলছে।

 






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *