Main Menu

ফেনীতে মাদক বিরোধী সমাবেশে এমপি রহিম ও পুলিশ কর্মকর্তার বিচারের দাবী 

ফেনী প্রতিনিধি :
ফেনী আলীয়া মাদ্রাসা মাঠে রোববার সন্ধ্যায় ফেনী মাদকদ্রব্য অধিদপ্তর কতৃক আয়োজিত মাদক বিরোধী সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জমান খাঁন কামাল এমপি।
এসময় সমাবেশে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, ফেনী জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক নিজাম উদ্দিন হাজারী এমপি। তিনি ফেনীর সদ্য বিদায়ী পুলিশ সুপার রেজাউল হক পিপিএম এর বিচার দাবী করে বলেন, এসপি রেজউল হক ২০০৪ সালে ২১ শে আগষ্ট  প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা সমাবেশে গ্রেনেড হামলাকারীদের সহয়তাকারী ছিলেন। তখন তিনি রমনা জোনের এসি ছিলেন এবং গ্রেনেড হামলার দিন মুল ষ্টেজের পাশে তার দায়িত্ব ছিল। হামলার পরবর্তীতে তৎকালীন বিএনপি জোট সরকার তাকে পদন্নোতি দিয়ে একই জোনের এডিসি করেন।
২১শে আগষ্ট গ্রেনেড হামলার সহায়তাকারী হিসেবে তার বিরুদ্ধে তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা গ্রহন করার জন্য অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর প্রতি জোর দাবী জানান। তিনি অারো বলেন, হাজী রহিম উল্যাহ স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়ে অা’লীগ নেতা কর্মীদের বিরুদ্ধে অবস্থান নেয়। তাকে  অা’লীগের দলীয় সংসদীয় কমিটিতে  গ্রহন না করায় প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানান।
অপরদিকে,  সোনাগাজী উপজেলা অা’লীগের সাধারন সম্পাদক ও পৌর মেয়র অ্যাড. রফিকুল ইসলাম খোকন বলেন,  হাজী রহিম উল্যাহ এমপির অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের কারনে মুহুরী সেচ প্রকল্প হুমকির মুখে। তিনি অারো বলেন,  স্বতন্ত্র এমপি মুহুরী প্রজেক্ট এলাকায় নিরিহ জনগনের ও সরকারের শত শত একর জমি দখলের চেষ্টা করছেন।  গত তিন বছরে অা’লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতা কর্মীদের নামে শতাধিক মামলা দিয়েছেন স্বতন্ত্র সাংসদ। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর মাধ্যমে তিনি প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করে বলেন, সোনাগাজী উপজেলার সকল জনপ্রতিনিধি ও দলের নেতা কর্মীদের নিয়ে হাজী রহিমের বিচার দাবীতে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সামনে অনশন পালন করা হবে।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন,  কেউ অাইনের উর্ধ্বে নয়,  অাইন সবার জন্য সমান, সকল অপরাধীর বিচার হবে।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন,  স্বরাষ্ট্রসচিব (সেবা) ফরিদ উদ্দিন অাহমদ চৌধুরী ও চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি মনিরুজ্জামান।

উল্লেখ্য, অাদিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে ২০১৪ সালের নভেম্বর থেকে সাংসদ নিজাম উদ্দিন হাজারী ও হাজী রহিম উল্যাহর মধ্যে দ্বন্দ চলছে।  এরই জেরে উভয় গ্রুপের মধ্যে একাধিকবার সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে বহু হতাহতের ঘটনাও ঘটেছে  এবং উভয় গ্রুপের নেতা কর্মীদের বিরুদ্ধে শতাধিক মামলা হয়েছে।






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *