Main Menu

ঢাকা ফ্রুতাসের ১৬তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন

সাইফুল আমিন, মাদ্রিদ, স্পেন :
সৎ নিষ্ঠা শক্তি ও সাহস নিয়ে কাজ করলে একজন মানুষ কিংবা একটি প্রতিষ্ঠান সফলতার শিখরে পৌছতে পারে, স্পেনের মাদ্রিদে বাংলাদেশি ব্যাবসায়ী প্রতিষ্ঠান “ঢাকা ফ্রুতাস”তার উৎকৃষ্ট প্রমাণ।

প্রতিষ্ঠানটি স্পেনে সবচেয়ে বড় বাংলাদেশি ব্যাবসায়ী প্রতিষ্ঠান এবং স্পেনে এ ধরনের ব্যাবসায় তিন নাম্বার স্থান অধিকার করেছে ঢাকা ফ্রুতাস। আজ ঢাকা ফ্রুতাসের” ১৬ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর অনুষ্ঠান।

ঢাকা ফ্রুতাস,স্পেনিশদের কাছে পরিচিত একটি নাম।যার সুনাম সুনাম স্পেনিশ প্রশাসন থেকে শুরু করে প্রত্যেকটি নাগরিকের মুখে মুখে।

এখানে প্রায় তিন শতাধিক প্রবাসী বাংলাদেশিদের কর্মসংস্থান হওয়ার পাশাপাশি,স্পেনিশ সহ বিভিন্ন দেশের আরও শতাধিক কর্মী এখানে কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করেন।

গত ১৯ জুন মাদ্রিদে স্থানীয় এক হলরুমে অনুষ্ঠিত “ঢাকা ফ্রুতাসের” ১৬তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর অনুষ্ঠানে উপস্থিত সবার মুখেই ছিলো এ প্রতিষ্ঠানের সফলতার গল্প। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন উক্ত প্রতিষ্ঠানের স্বত্বাধিকারী আল আমিন মিয়া।

তামিম ইকবাল ও সাইদ আনোয়ারের যৌথ সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন স্পেনে নিযুক্ত বাংলাদেশ দূতাবাসের রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ সারোয়ার মাহমুদ এন ডি সি,বিশেষ অতিথি ছিলেন দূতাবাসের মিনিস্টার এন্ড হেড অব চেনচারী এটিএম আব্দুর রউফ মন্ডল।

বাংলাদেশ মসজিদ কমিটির সভাপতি খোরশেদ আলম মজুমদার, বাংলাদেশ এসোসিয়েশনের সভাপতি আল মামুন,সাবেক সভাপতি জামাল উদ্দিন মনির, কাজী এনায়েতুল করিম তারেক, সাধারণ সম্পাদক কামরুজ্জামান সুন্দর।

গ্রেটার ঢাকা এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক মিলটন ভুইয়া কচি, ঢাকা জেলা এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক মাসুদুর রহমান, বৃহত্তর কুমিল্লা এসোসিয়েশনের সভাপতি নূর হোসেন পাটোয়ারী, বৃহত্তর ফরিদপুর জেলা এসোসিয়েশনের সভাপতি হেমায়েত খান, এস এম মনির প্রমূখ।

আমন্ত্রিত অতিথিবৃন্দ এবং “ঢাকা ফ্রুতাসে” কর্মরত সবাই প্রতিষ্ঠানটির সফলতার পেছনের চিত্র তুলে ধরে বলেন সৎ এবং নিষ্ঠাবান হলে যে একজন মানুষ সফলতার চুড়ান্ত শিখরে উঠতে পারেন মাদ্রিদে ঢাকা ফ্রুতাসের স্বত্বাধিকারীরা আল আমিন মিয়া তারই উদাহরণ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ সারোয়ার মাহমুদ প্রবাসীদের রেমিট্যান্স দেশের উন্নয়ন অগ্রযাত্রায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকার কথা তুলে ধরে প্রবাসীদের বৈধপথে রেমিট্যান্স পাঠানোর সুপরামর্শ দেন এবং দূতাবাসের পক্ষ থেকে সকল প্রকাশ সেবা দানের প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেন।

সভাপতির বক্তব্যে আল আমিন মিয়া তার প্রতিষ্ঠানে কর্মরত সবাইকে নিষ্ঠা ও দ্বায়িত্বশীল হয়ে কাজ করার আহবান জানান এবং তার পক্ষ থেকে যথাযথ সুযোগ সুবিধা দেয়ার আশ্বাস দেন।

পরে লটারি ড্র এর মধ্যদিয়ে অনুষ্ঠান শেষ হয়,এবার লটারির মাধ্যমে এ প্রতিষ্ঠানে কর্মকর্তা পাঁচজন উমরাহ হজ্ব পালনের সুযোগ পান।

শেয়ার করুনঃ





Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *