Main Menu

বাংলার প্রতিটি ঘরে জয়নাল হাজারীর মত একটা সন্তানের জন্ম হোক | বাংলারদর্পন

আমার কলম চলবে আজ একজন সন্ত্রাসীর পক্ষে, যাকে বাংলার মানুষ গডফাদার হিসেবে চিনে, সে আর কেউ নয় ফেনীর মুকুটবিহীন সম্রাট জয়নাল হাজারী।

এই হাল জামানায় একমাত্র শেখ হাসিনা ছাড়া সন্ত্রাসী জয়নাল হাজারীর খবর এখন আর কেউ রাখেনা । এইতো কিছুদিন আগেই আপনারা সবাই দেখলেন, এই সন্ত্রাসীকে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ৪০ লক্ষ টাকা দিয়েছেন। যে টাকা দিয়ে মালয়েশিয়ার একটি হাসপাতালে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বেঁচে আছেন।

আমি ওই সন্ত্রাসী গডফাদার জয়নাল হাজারীর জন্য সবার কাছে আজ দোয়ার দরখাস্ত আবেদন করছি । সবাই এই সন্ত্রাসী গডফাদার জয়নাল হাজারীর জন্য দোয়া করবেন।

আর আমি দোয়া করবো, এই বাংলার প্রত্যেকটা ঘরে অন্তত একজন করে জয়নাল হাজারীর মত সন্ত্রাসী, গডফাদার এর যেন জন্ম হয়।

আচ্ছা আপনারাই বলুন, বিষয়টা আমার মাথায় ধরছেনা। জয়নাল হাজারী একজন মুক্তিযোদ্ধা, একজন সন্ত্রাসী,একজন গডফাদার, একজন মুকুট বিহীন সম্রাট। কত নামেই না তিনি পরিচিত। তার নামের সাথে যদি কাজ মিলাইয়া দেখি, তার কাছে আজ কোটি কোটি টাকা থাকার কথা। ঢাকা চট্টগ্রাম ইউরোপ এশিয়ার প্রতিটি দেশে বাড়ী এবং সুইজ ব্যাংককে টাকা থাকার কথা।

অথচ তাঁর থাকার আজকে একটা বাড়ি নেই, চিকিৎসার জন্য টাকা নেই। তবে তার কাছে একটা গুপ্তধন আছে। সে গুপ্তধন হলো বঙ্গবন্ধুর আদর্শ। যেটা বাংলার ২০ কোটি মানুষের নজরে আসে নাই। শুধু একজনের নজরে এসেছে, নাম তার দেশরত্ন শেখ হাসিনা। হাজারো বিতর্ক স্বর্তেও জীবনের শেষ বয়ষে জয়নাল হাজারীকে বাংলাদেশের প্রাচীন দল অাওয়ামীলীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য করেছেন বঙ্গবন্ধুর কন্যা শেখ হাসিনা।

যাকে এত বড় গডপাদার বলছি তার ত্রিশ বছরের সন্ত্রাসি জীবনে উপজেলা চেয়ারম্যান একরাম ও মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত এর মত প্রকাশ্যে জ্বালিয়ে পুড়িয়ে মারার ঘটনা কি ঘটেছিল। এমন কোন ঘটনা কি ঘটেছিল যে ঘটনায় প্রধানমন্ত্রীর চেয়ার কম্পমান হয়েছিল।
আপনারা জানেন, তাকে সন্ত্রাসি কারা বলেছিল। স্বৈরাচার এরশাদ ৮৬ সালের নির্বাচনে হাজারীকে হারাতে পারেনি তাই সন্ত্রাসি বলেছে। ৯১ ও ৯৬ এর নির্বাচনে খালেদা জিয়ারা হাজারীকে হারাতে পারেনি গডপাদার বলেছে।

আমি সেই সন্ত্রাসীকে স্যালুট জানাই, যেই সন্ত্রাসী বঙ্গবন্ধুর আদর্শ রক্ষা করার জন্য, কখনো সন্ত্রাসী, কখনো গডফাদার হয়েছিলেন। নাম তার জয়নাল হাজারী।

আজকে শেখ হাসিনার দুর্নীতি বিরোধী শুদ্ধি অভিযানে সর্বপ্রথম শেখ হাসিনার ডাকে সাড়া দিতেন, এই সেই জয়নাল হাজারী। ফেনী ট্রাংক রোডে লক্ষ যুবকের জনসমাবেশ ঘটাতেন। যুবকেরা দুর্নীতিবিরোধী স্লোগানে স্লোগানে দেশ ও জাতিকে মাতিয়ে তুলতেন।
আর জয়নাল হাজারী, দুর্নীতিবিরোধী যুবকদের নিয়ে ঢাকার উদ্দেশ্যে লংমার্চ শুরু করতেন।

দেশ প্রেম আর বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ছাড়া কোন কিছুই যাকে গ্রাস করতে পারেনি, নাম তার জয়নাল হাজারী, আমি আবারো তার দীর্ঘায়ু কামনা করে সবার কাছে দোয়ার আর্জি করছি। আল্লাহ হাফেজ।

মোহাম্মদ সাঈদ, বিশ্ব অনলাইনলীগ।

শেয়ার করুনঃ





Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *