Main Menu

দিরাইয়ে অটো-রাইসমিল সীল গালা : সরকারি বিক্রয় নিষিদ্ধ চাউল উদ্ধার

 

এস,এম,ওয়াহিদুল ইসলাম, সুনামগঞ্জ থেকেঃ সুনামগঞ্জের দিরাই পৌরসভার হাইস্কুল রোডে সরকারি বিক্রয় নিষিদ্ধ চাউল আটক করা হয়েছে। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রাত সাড়ে ৯ টার সময় দিরাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মঈন উদ্দিন ইকবাল ও দিরাই থানার ওসি মোস্তফা কামালের নেতৃত্বে এক দল পুলিশ অভিযান চালিয়ে ৮বস্তা চাউল উদ্ধার করেন এবং বিক্রয় নিষিদ্ধ চাউল অবৈধ মজুদ রাখার অভিযোগে- দিরাই হাইস্কুল রোডের “কালনী চাইনিজ অটো রাইস মিল” সীল গালা করেন। প্রত্যক্ষদর্শীদের ভাষ্যমতে, ২৫০ বস্তা সরকারি সীল অংকিত চাউল ভর্তি ইঞ্জিল চালিত নৌকা থেকে ৮ বস্তা চাউল দিরাই হাইস্কুল রোডস্থ মিলে উঠানোর পর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হাজির হয়ে চাউল নিজের জিম্মায় নিয়ে মিলটি সীল গালা করেন।

এনিয়ে দিরাই বাজারে ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে, চতুর্দিকে উৎসুক জনতার ভীর লেগে যায়। এসময় সিলেট মহানগর যুবলীগ নেতা জগদল ইউপিতে বিগত নির্বাচনে নৌকা প্রতীকে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী হুমায়ুন রশিদ লাভলু সহ স্থানীয় কিছু নেতাকর্মী ও সাধারণ দর্শক নৌকার মাঝির জবানবন্দি ভিডিও রেকর্ড করেন। জিজ্ঞাসাবাদে মাঝি বলেন, দিরাই খাদ্য গোদাম হতে ২৫০ বস্তা সরকারি চাউল জগদল ইউপি চেয়ারম্যান শিবলী বেগ’র বাদশা মিয়ার মিলে উঠানোর জন্য নিয়ে আসা। পরে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য মাঝিকে দিরাই থানায় নিয়ে যাওয়া হয়।

কালনী নদীতে ভাসছে চাউল! হাওর পাড়ের হাজারো মানুষ এবছর অকাল বন্যায় ফসল হারিয়ে সরকারি-বেসরকারি অনুদান, ভিজিএফ, ভিটিএফ, ও কৃষি কার্ড সহযোগিতা এবং হালের বলদ ও জায়গাজমি বিক্রি করে দিনযাপন করলেও আজ কালনী নদীতে জেলের জালে মাছের পরিবর্তে উঠছে সরকারি সীলমোহর কৃত চাউল এর বস্তা! একজন পেয়েছেন ৪বস্তা! এমনটা জানিয়েছেন হাইস্কুল পাড়ের ব্যবসায়ী ও একজন জনপ্রতিনিধি নাম প্রকাশ না করার শর্তে। আজ দিরাইয়ে বিষয়টি “টক অফ দ্যা টাউন”।

চেয়ারম্যান শিবলী বেগ এর বক্তব্যঃ আটককৃত সরকারি চাউল আপনার ইউনিয়নের

ভিজিএফ কার্ডধারীদের জন্য বরাদ্দকৃত থেকে বিক্রি করেছেন কিনা?  প্রশ্নের জবাবে শিবলী বেগ বলেন, আমার জগদল ইউপিতে আজকের ভিজিএফ এর চাউল বিতরণের জন্য গতকাল অফিসিয়াল প্রক্রিয়া শেষ করে নিজ গ্রামে প্রতিবারের মত চলে আসি। রাত ১২ টার সময় ২৫০ বস্তা করে মালবাহী দুই নৌকা চাউল নিয়ে গন্তব্য স্থলে আসে। আমি ফোনে দিরাই কিছু ঝামেলা হয়েছে শুনে পরিষদের কিছু সদস্য/সদস্যা ও এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ এর উপস্থিতিতে বস্তা গণনা করে সঠিক পাই আর এখন যাচাইকারী দায়িত্বপ্রাপ্ত অফিসার, দিরাই যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা জনাব মাহফুজুর রহমান এর সাথে আলাপ করেন বলেন ফোন ধরিয়ে দেন। যাচাইকারী কর্মকর্তা এ প্রতিনিধিকে বলেন- পরিষদের সকল সদস্য/সদস্যা এবং এলাকার ৪০-৪৫ জন মান্যগণ্য ব্যক্তিদের সামনে গণনা করে ৫০০ বস্তা চাউল সঠিক পেয়েছি এবং বিতরণ করছি। রাস্তাঘাটে কোন সমস্যা হলে সেটা  দেখার এখতিয়ার আমার নেই।

মিল পরিচালকের বক্তব্যঃ মিল পরিচালক একি ইউপির বখশীপুর গ্রামের মোঃ বাদশা মিয়ার সাথে মুঠো ফোনে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন আমি গ্রামে থাকি! আমার মিল বন্ধ আছে দুই বছর যাবত  ডিও ব্যবসায়ী ও বর্তমান জেলা পরিষদ সদস্য  মিলের অর্ধেক ভাড়া নিয়ে জি,আর, পণ্য ক্রয়বিক্রয় করছেন এব্যাপারে উনার সাথে কথা বললে কি ঘটেছে জানতে পারবেন।

নাজমুল হকের বক্তব্যঃ-

জেলা পরিষদ সদস্য ও ব্যবসায়ী মোঃ নাজমুল হক মুঠো ফোনে বলেন- আমি জেলা পরিষদ সদস্য হওয়ার পর ব্যবসা দেখাশোনা করে ছোট ভাই বাদল! আমরা জি,আর, চাউল ও গম যথাযথ প্রক্রিয়াতে ক্রয়বিক্রয় করি। ইদানীং পূজাকর্মের জন্য প্রাপ্ত ডিও এর বিপরীত চাউল ক্রয় করেছি। আমি আজ সকালে চাউল ক্রয়ের স্বপক্ষে কাগজপত্র দিরাই থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর দাখিল করেছি। আমার মজুদ ও বিক্রয়ের সাথে হিসাব সামঞ্জস্য আছে। শিবলী বেগ আমাদের কাছে চাউল বিক্রি করেননি।

ড্রাইভারের উল্টাপাল্টা বক্তব্যঃ প্রথম ভিডিওতে ইঞ্জিন নৌকা ড্রাইভার বলেছিল চেয়ারম্যান শিবলী বেগ’র চাউল বাদশা মিয়ার অটো মিলে দেওয়ার জন্য নিয়ে আসছে! পরবর্তী ভিডিওতে সে বলছে- হুমায়ুন রশিদ লাভলু পিস্তল বের করে প্রাণে মারার ভয় দেখিয়ে ও সঙ্গীয় আক্কাছ মিয়া গালে থাপ্পড় মেড়ে বাদ্য করেছে মিথ্যে বলতে! এবিষয়ে লাভলু ও আক্কাছ বলেন আমাদের উপর আনিত অভিযোগ মিথ্যে, বানোয়াট। আমরা বিপুল সংখ্যক মানুষের উপস্থিতিতে বক্তব্য ভিডিও করেছি, তাছাড়া ভিডিও করেছি পুলিশ চাউল আটক করার পর, ভয় দেখানোর প্রশ্নই আসেনা।






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *