Main Menu

খালেদা জিয়া আদালতে ন্যায় বিচার না পেলে জনগণ গণঅভ্যূত্থান ঘটাতে প্রস্তুত -ডা. শাহাদাত

 

চট্টগ্রাম ব্যুরোঃ বাংলাদেশের প্রথম মহিলা ও সংসদীয় গণতন্ত্রের প্রথম প্রধানমন্ত্রী বিএনপির চেয়ারপার্সন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে বাংলাদেশের অবিসংবাদিত নেত্রী হিসেবে অভিহিত করে চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সভাপতি ডা. শাহাদাত হোসেন বলেন, ৮০’র দশকে বাংলাদেশের মানুষ যখন গণতন্ত্রের জন্য হাহাকার করছিল, ঠিক তখনই এদেশের মানুষের ভাগ্য পরিবর্তনে গণতন্ত্রের ত্রাণকর্তা হিসেবে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া রাজপথে নেমে দীর্ঘ আন্দোলন সংগ্রামের পথ পরিক্রমায় এদেশের মানুষের হৃদয়ে আপোষহীন দেশনেত্রী হিসেবে সম্মানের সর্বোচ্চ স্থান দখল করে নেন। যার ফলশ্র“তিতে আপোষহীন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে ১৯৯০ সালের ৬ ডিসেম্বর এদেশের আপামর জনগণ স্বৈরাচার এরশাদকে অবৈধ ক্ষমতার মসনদ থেকে হটিয়ে ১৯৯১ সালের জাতীয় নির্বাচনে বেগম খালেদা জিয়াকে বাংলাদেশের ইতিহাসে সংসদীয় গণতন্ত্রের প্রথম প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নির্বাচিত করেন। বাংলাদেশের মানুষের কাছে অত্যাধিক জনপ্রিয় নেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে দেশের মানুষের অধিকার ও ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠার নেত্রী হিসেবে বেছে নিয়েছেন।  ভাগ্যের নির্মম পরিহাস, বাংলাদেশের গণতন্ত্রের ত্রাণকর্তা সেই দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া আজ আওয়ামীলীগ ও তার দোসরদের নানামুখী ষড়যন্ত্রের বেড়াজালে বন্দী আছেন। আমাদের প্রাণের চেয়েও প্রিয় নেত্রীকে তারা অবৈধভাবে সাজানো মামলায় সাজা দেয়ার পাঁয়তারা করছে। আগামী ৮ ফেব্র“য়ারি  যদি আপোষহীন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে কোন পাঁতানো রায় ঘোষণা করা হয় তাহলে এদেশের গণতন্ত্রকামী ছাত্রজনতা তা কখনোই মেনে নিবে না। এদেশের সর্বস্তরের জনগণ সেদিন রাজপথে নেমে আসবে এবং ৯০’র মতন আরেকটি গণঅভ্যুত্থান ঘটিয়ে শেখ হাসিনার অবৈধ ক্ষমতার মসনদ ভেঙ্গে চুরমার করে বাংলাদেশের গণতন্ত্রের ত্রাণকর্তা আপোষহীন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে আবারো বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নির্বাচিত করবেন। আগামী ৮ ফেব্র“য়ারি বেগম খালেদা জিয়া আদালত কর্তৃক ন্যায় বিচার বঞ্চিত হলে, দেশের জনগণ আরেকটি গণঅভ্যুত্থান ঘটাতে প্রস্তুত আছে। আগামী ৮ ফেব্র“য়ারি সাবেক প্রধানমন্ত্রী বিএনপির চেয়ারপার্সন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে জিয়া অরফানেজ ট্রাষ্ট নামক সাজানো মামলার রায় ঘোষণাকে কেন্দ্র করে চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সাথে মহানগর ছাত্রদলের এক মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি উপরোক্ত কথা বলেন। চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রদল সভাপতি গাজী মোঃ সিরাজ উল্লাহ সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক বেলায়েত হোসেন বুলুর সঞ্চালনায় অদ্য ৩০ জানুয়ারি সন্ধ্যা ৬ ঘটিকায় নগরীর কাজীর দেউরীস্থ নাসিমন ভবন দলীয় কার্যালয় প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভার প্রধান বক্তা ছিলেন চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আবুল হাশেম বক্কর। বিশেষ অতিথি ছিলেন নগর বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক ইয়াছিন চৌধুরী লিটন। এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন, মহানগর ছাত্রদলের সহ-সভাপতি ফজলুল হক সুমন, জিয়াউর রহমান জিয়া, যুগ্ম সম্পাদক আলী মর্তুজা খান, ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সদস্য শেখ রাসেল, নগর ছাত্রদলের যুগ্ম সম্পাদক জমির উদ্দিন নাহিদ, হালিশহর থানা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক শাহীনুল কবির, খুলশী থানা ছাত্রদলের সভাপতি আসাদুজ্জামান দিদার, চান্দগাঁও থানা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক গোলজার হোসেন, বাকলিয়া থানা ছাত্রদলের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আজিজুল হক মাসুম, সাধারণ সম্পাদক মোস্তাকিম মাহমুদ, চকবাজার থানা ছাত্রদলের সভাপতি নুরুল আলম শিপু, আকবর শাহ্ থানা ছাত্রদলের সভাপতি জহিরুল হক টুটুল, চকবাজার থানা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক সাদ্দামুল হক প্রমুখ।

প্রধান বক্তার বক্তব্যে আবুল হাশেম বক্কর বলেন, বেগম খালেদা জিয়া বাংলাদেশের মানুষের আবেগ ও ভালবাসা, দেশের মানুষের আস্থা ও ভরসার শেষ আশ্রয়স্থল। আমাদের আবেগ ও অনুভূতির নাম বেগম খালেদা জিয়া। আগামী ৮ ফেব্র“য়ারি যদি আমাদের প্রাণপ্রিয় দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে কোন পাঁতানো রায় ঘোষণা করা হয় তাহলে সেই মুহুর্ত থেকেই এদেশের গণতন্ত্রকামী জনগণ তীব্র গণআন্দোলনের মাধ্যমে অবৈধ হাসিনা সরকারের বিদায় ঘন্টা বাঁজিয়ে ছাড়বে। প্রয়োজনে দেশ অচল করা দেওয়া হবে। বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে কোন ষড়যন্ত্র বরদাশত করবে না বাংলাদেশের জনগণ। দেশের জনগণ এখন খালেদা প্রেমী, কারণ তারা জানে বেগম খালেদা জিয়াই একমাত্র নেত্রী যিনি জনগণের অধিকার আদায়ের জন্য কাজ করেন। জনগণের ভাগ্য পরিবর্তনের জন্য কাজ করেন। বেগম খালেদা জিয়া আমাদের অনুপ্রেরণা, তার বিরুদ্ধে কোন ষড়যন্ত্র বাংলার মাটিতে হতে দেওয়া যাবে না।






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *